× প্রচ্ছদ অনলাইনপ্রথম পাতাশেষের পাতাখেলাবিনোদনএক্সক্লুসিভভারতবিশ্বজমিনবাংলারজমিনদেশ বিদেশশিক্ষাঙ্গনসাক্ষাতকাররকমারিপ্রবাসীদের কথামত-মতান্তরফেসবুক ডায়েরিবই থেকে নেয়া তথ্য প্রযুক্তি শরীর ও মন চলতে ফিরতে ষোলো আনা মন ভালো করা খবরকলকাতা কথকতাস্বাধীনতার সুবর্ণ জয়ন্তী
ঢাকা, ১৩ এপ্রিল ২০২১, মঙ্গলবার
ড. সৈয়দ মঞ্জুরুল ইসলাম

পরীক্ষা বন্ধ করার সিদ্ধান্ত আত্মঘাতী

শেষের পাতা

তামান্না মোমিন খান
২৫ ফেব্রুয়ারি ২০২১, বৃহস্পতিবার

ঢাকা বিশ্ববিদ্যালয়ের ইংরেজি বিভাগের অধ্যাপক ড. সৈয়দ মঞ্জুরুল ইসলাম বলেছেন  পরীক্ষা শুরু করে হুট করে বন্ধ করে দেয়ার সিদ্ধান্ত আত্মঘাতী। পরীক্ষা নেয়াটা বিশ্ববিদ্যালয়ের বাধ্যবাধকতা। তিনি বলেন, একবার পরীক্ষা শুরু করে বন্ধ করা হলে ছাত্রদের মন ভেঙে যায়। পরীক্ষার দাবিতে ছাত্ররা যে আন্দোলন করছে এর যৌক্তিকতা রয়েছে। ছাত্রদের চলমান আন্দোলন নিয়ে মানবজমিনকে তিনি এসব কথা বলেন।
সৈয়দ মঞ্জুরুল ইসলাম বলেন যখন পরীক্ষা নেয়ার সিদ্ধান্ত হয়েছে তখন তো ছাত্রদের সঙ্গে আলোচনা করে এ সিদ্ধান্ত নেয়া হয়নি। তারা মেসে থেকে, যে যেখান থেকে পরীক্ষা দিতে এসেছে।এখন হুট করে পরীক্ষা কেন বন্ধ করলো সেটা আমি বুঝলাম না। আমি মনে করি সকল বিশ্ববিদ্যালয়গুলোর পরীক্ষা শুরু করা উচিত।
পরীক্ষা না নিলে আরো সেশন জোট সৃষ্টি হবে। স্বাস্থ্যবিধি মেনে কীভাবে পরীক্ষা নেয়া সম্ভব এর জন্য সুচারু পরিকল্পনা করতে হবে। তিনি বলেন, এখন প্রশ্ন হচ্ছে বিশ্ববিদ্যালয়ের হল খুলে দিলে ছাত্ররা কতোটা স্বাস্থ্যবিধি মেনে চলবে? আমি মনে করি মেসের চেয়ে হল ছাত্রদের জন্য নিরাপদ। ছাত্ররা হলে থাকলে কিছুটা হলেও তারা স্বাস্থ্যবিধি মেনে চলবে। অনেক ছাত্র আছে টিউশনি করে নিজের খরচ চালায়। আবার বাবা-মাকে বাড়িতে টাকা পাঠায়। সরকার কি এসব ছাত্রদের দায়িত্ব নিতে পারছে। সামনে বিসিএস পরীক্ষা। যেসব ছাত্র বিসিএস পরীক্ষা দেবে তারা হলে থেকে প্রস্তুতি নিয়ে থাকে। গ্রুপ স্ট্যাডি করে থাকে। আমি মনে করি ছাত্রদের নিরাপত্তা সহ সার্বিক দিক চিন্তা করে বিশ্ববিদ্যালয়গুলোর হল খুলে দেয়া দরকার। আর পরীক্ষা বন্ধের সিদ্ধান্ত থেকে দ্রুত সরে আসা উচিত।

অবশ্যই দিতে হবে *
অবশ্যই দিতে হবে *
পাঠকের মতামত
**মন্তব্য সমূহ পাঠকের একান্ত ব্যক্তিগত। এর জন্য সম্পাদক দায়ী নন।
কালাম ফয়েজী
২৬ ফেব্রুয়ারি ২০২১, শুক্রবার, ৭:০৭

একটি কৎসিত সন্দেহের উপর ভিত্তি করে পরীক্ষা বন্ধ রাখা ঘোরতর অন্যায়। আমরা এর নিন্দা ও প্রতিবাদ জানাই। একটি এটোম বোমায় একটি জাতির একাংশের ক্ষতি হয় আর শিক্ষা থেকে সরিয়ে রাখলে একটি জাতি ধ্বংস হয়ে যায়।

অন্যান্য খবর