× প্রচ্ছদ অনলাইনপ্রথম পাতাশেষের পাতাখেলাবিনোদনএক্সক্লুসিভভারতবিশ্বজমিনবাংলারজমিনদেশ বিদেশশিক্ষাঙ্গনসাক্ষাতকাররকমারিপ্রবাসীদের কথামত-মতান্তরফেসবুক ডায়েরিবই থেকে নেয়া তথ্য প্রযুক্তি শরীর ও মন চলতে ফিরতে ষোলো আনা মন ভালো করা খবরকলকাতা কথকতাস্বাধীনতার সুবর্ণ জয়ন্তী
ঢাকা, ১৩ এপ্রিল ২০২১, মঙ্গলবার

কর প্রদানে মানসিকতা পরিবর্তন করতে হবে: সালমান এফ রহমান

অনলাইন

অর্থনৈতিক রিপোর্টার
(১ মাস আগে) ফেব্রুয়ারি ২৫, ২০২১, বৃহস্পতিবার, ৫:২১ অপরাহ্ন

প্রধানমন্ত্রীর বেসরকারি শিল্প ও বিনিয়োগ বিষয়ক উপদেষ্টা সালমান এফ রহমান বলেছেন, অর্থনৈতিক উন্নয়নে রাজস্ব আহরণ অন্যতম প্রধান অনুষঙ্গ, তবে বাংলাদেশের জিডিপিতে করের অবদান দক্ষিণ এশিয়ার দেশগুলোর মধ্যে উল্লেখযোগ্য হারে কম। তিনি জিডিপিতে করের অবদান বাড়ানোর জন্য সকলকে কর প্রদানে আগ্রহী হওয়ার আহ্বান জানান এবং এজন্য কর প্রদানের মানসিকতা পরিবর্তনের উপর জোরারোপ করেন।

আজ বিডা’র কার্যালয়ে ঢাকা চেম্বার অব কমার্স অ্যান্ড ইন্ডাস্ট্রির (ডিসিসিআই) সভাপতি রিজওয়ান রাহমানের নেতৃত্বে পরিচালনা পর্ষদের সঙ্গে সাক্ষাতকালে সালমান এফ রহমান এ আহ্বান জানান। এ সময় ঢাকা চেম্বারের পরিচালনা পর্ষদের সদস্যবৃন্দ উপস্থিত ছিলেন।

উপদেষ্টা বলেন, জাতীয় রাজস্ব বোর্ড (এনবিআর) এ বছর প্রায় ৫৫ হাজার নাগরিককে কর জাল-এর আওতায় নিয়ে এসেছে। তিনি কর আহরণের লক্ষ্যমাত্রা অর্জনের জন্য বিদ্যমান রাজস্ব কাঠামো যুগোপযোগীকরণ এবং ডিজিটাল ব্যবস্থার কার্যক্রম আরো দ্রুততার সঙ্গে সম্পন্ন করার উপর জোরারোপ করেন।

সালমান এফ রহমান বলেন, কক্সবাজার বিমানবন্দরকে বিশ্বমানের বিমানবন্দরে পরিণত করার বিষয়টি সরকারের বিবেচনায় রয়েছে, যা উন্নত যোগাযোগ অবকাঠামো ও এই অঞ্চলে অর্থনৈতিক উন্নয়ন নিশ্চিতকরণে গুরুত্বপূর্ণ ভূমিকা রাখবে।

সাক্ষাৎকালে ঢাকা চেম্বারের সভাপতি রিজওয়ান রাহমান বলেন, বৈশ্বিক বাণিজ্যের নেতিবাচক প্রভাব, বাণিজ্য যুদ্ধ, ব্রেক্সিট, স্বল্পন্নোত দেশ হতে বাংলাদেশের উত্তরণ এবং সর্বোপরি কোভিড-এর প্রভাবের কারণে দেশের বেসরকারিখাত বেশ প্রতিকূলতার মাঝে পরিচালিত হচ্ছে।


তিনি বলেন, ব্রেক্সিট পরবর্তী সময়ে ইউরোপীয় ইউনিয়নের বাজারে শুল্ক ও কোটামুক্ত সুবিধা গ্রহণ করতে হলে বাংলাদেশকে ২৭টি শর্ত পূরণ করতে হবে, এমন বাস্তবতায় যথাসময়ে ইইউ-এর শর্তপূরণের কার্যক্রম তদারকি এবং ইইউ-এর সঙ্গে যোগাযোগ আরো সুদৃঢ় করতে একটি ‘ন্যাশনাল স্ট্রাটেজি কমিটি’ প্রণয়নের প্রস্তাব করেন।

ডিসিসিআই’র সভাপতি বলেন, দেশে ব্যবসা পরিচালনা ব্যয় হ্রাস এবং দেশি-বিদেশি বিনিয়োগ আকর্ষনে বিডা ‘ওয়ান স্টপ সার্ভিস’ চালু করেছে, যা ব্যবসায়ীদের মাঝে আশার সঞ্চার করেছে, তবে এ সেবার কার্যকর প্রয়োগের জন্য সংশ্লিষ্ট সকল সংস্থায় দক্ষ জনবল নিয়োগে জোরারোপ করেন।

তিনি উল্লেখ করেন, বিশ্বব্যাপী করোনা মহামারির কারণে ২০১৯-২০২০ অর্থবছরে বৈশ্বিক বৈদেশিক বিনিয়োগ প্রায় ১ ট্রিলিয়ন ডলার কমে গেছে এবং উল্লেখিত সময়ে বাংলাদেশের বৈদেশিক বিনিয়োগের পরিমাণ ছিল ২.৩৭ বিলিয়ন ডলার। এমতাবস্থায় বৈদেশিক বিনিয়োগ আকর্ষণে তিনি সরকারের শিল্পনীতি, আমদানি-রপ্তানি নীতি, বৈদেশিক মুদ্রা নীতিমালাসহ সংশ্লিষ্ট সকল নীতিমালার সমন্বয় খুবই জরুরি বলে মত প্রকাশ করেন, ঢাকা চেম্বারের সভাপতি।

রিজওয়ান রাহমান বলেন, কোম্পানি আইনে একক ব্যক্তি মালিকানাধীন কোম্পানি নিবন্ধনের ক্ষেত্রে বিদ্যমান আইনে মূলধনের সীমা ২৫ লাখ টাকা এবং বার্ষিক বিক্রয়ের পরিমাণ ১ কোটি টাকা নির্ধারণ করা হয়েছে, তা কিছুটা যৌক্তিকীকরণ করা প্রয়োজন, এর মাধ্যমে ছোট ছোট প্রতিষ্ঠানসমূহ একক মালিকানাধীন কোম্পানি হিসেবে নিবন্ধন হতে আগ্রহী হবে এবং এর মাধ্যমে কর আহরণের সীমা আরো বর্ধিত হবে।

অবশ্যই দিতে হবে *
অবশ্যই দিতে হবে *
পাঠকের মতামত
**মন্তব্য সমূহ পাঠকের একান্ত ব্যক্তিগত। এর জন্য সম্পাদক দায়ী নন।
quamrul
২৫ ফেব্রুয়ারি ২০২১, বৃহস্পতিবার, ৫:৪৮

First transparency and accountability om spending our tax money has to be ensured. Our tax money can't be spent on unusual salary and benefit increase of public servant and rampant corruption in public procurement

অন্যান্য খবর