× প্রচ্ছদ অনলাইনপ্রথম পাতাশেষের পাতাখেলাবিনোদনএক্সক্লুসিভভারতবিশ্বজমিনবাংলারজমিনদেশ বিদেশশিক্ষাঙ্গনসাক্ষাতকাররকমারিপ্রবাসীদের কথামত-মতান্তরফেসবুক ডায়েরিবই থেকে নেয়া তথ্য প্রযুক্তি শরীর ও মন চলতে ফিরতে ষোলো আনা মন ভালো করা খবরকলকাতা কথকতাখোশ আমদেদ মাহে রমজানস্বাধীনতার সুবর্ণ জয়ন্তী
ঢাকা, ১৯ এপ্রিল ২০২১, সোমবার

আমেরিকার অলিম্পিক বয়কটের ডাক

অনলাইন

বিশেষ সংবাদদাতা
(১ মাস আগে) মার্চ ১, ২০২১, সোমবার, ১:৪৯ অপরাহ্ন

চীনে মানবাধিকার লঙ্ঘন করা হয়েছে। তাই ২০২২ সালের অলিম্পিক না খেলার ডাক উঠল আমেরিকা থেকে। রিপাবলিকানদের পক্ষ থেকে এমনটাই জানিয়েছে নিকি হালে। ওয়াশিংটন পোস্ট সূত্রে খবর, এবিষয়ে অলিম্পিক কর্তৃপক্ষকে তারা একটি চিঠি পাঠাবে। সেখানে তারা বিকল্প স্থানের দাবিও জানাবে। প্রসঙ্গত, ২০২২ সালের ৪ঠা ফেব্রুয়ারি থেকে বেইজিংয়ে বসবে অলিম্পিকের আসর। বিষয়টি নিয়ে যদিও হোয়াইট হাউসের পক্ষ থেকে বিশেষ কোনও কথা বলা হয়নি। এটা সকলেই জানে অলিম্পিকের আসরকে অন্যভাবে কাজে লাগাতে চাইছে বেইজিং।
নিকি হালে মনে করেন, অবিলম্বে মার্কিন প্রেসিডেন্ট জো বাইডেনের উচিত অলিম্পিক বয়কট ঘোষণা করে দেয়া। তিনি আরও বলেন, আমরা চুপচাপ থাকতে পারি না চীনের কাজ দেখে। তারা মানবাধিকার রক্ষা না করে যে অপরাধ করেছে তার ক্ষমা নেই। চীনে অলিম্পিক গেম হলে তা নিয়ে অস্বস্তিতে পড়বে বিশ্বের বহু দেশ। যদি আমেরিকা অলিম্পিকে অংশগ্রহণ করে তবে বিশ্ব এটাই মনে করবে, চীনের কমিউনিস্ট পার্টির সম্পর্ক বিশ্বের সঙ্গে ভাল এবং উন্নত। তাই তার সমর্থনে আমেরিকা তাদের দল পাঠিয়েছে সেখানে। যে দেশে মানবাধিকার রক্ষার সমস্ত ধরনের ব্যবস্থা রয়েছে সেখানেই অলিম্পিকের আসর বসা উচিত বলে মনে করেন নিকি হালে। ইতিমধ্যেই বহু মানবাধিকার সংস্থা বেইজিংয়ে অলিম্পিকের আসর সরিয়ে নেয়ার প্রস্তাব দিয়েছে। অন্যদিকে ফক্স নিউজের একটি খবর থেকে জানা গিয়েছে, নিকি হালের এই বক্তব্য একান্তই তার ব্যক্তিগত। তবে আমেরিকা যদি সত্যি অলিম্পিক বয়কট করে তবে বিশ্বের রাজনীতিতে চীন-আমেরিকা সম্পর্ক নতুন করে প্রভাব ফেলবে।

অবশ্যই দিতে হবে *
অবশ্যই দিতে হবে *
অন্যান্য খবর