× প্রচ্ছদ অনলাইনপ্রথম পাতাশেষের পাতাখেলাবিনোদনএক্সক্লুসিভভারতবিশ্বজমিনবাংলারজমিনদেশ বিদেশশিক্ষাঙ্গনসাক্ষাতকাররকমারিপ্রবাসীদের কথামত-মতান্তরফেসবুক ডায়েরিবই থেকে নেয়া তথ্য প্রযুক্তি শরীর ও মন চলতে ফিরতে ষোলো আনা মন ভালো করা খবরকলকাতা কথকতাস্বাধীনতার সুবর্ণ জয়ন্তী
ঢাকা, ১২ এপ্রিল ২০২১, সোমবার
ছাত্রদল-পুলিশ সংঘর্ষ

৪৭ জনের বিরুদ্ধে মামলা ১৩ জন রিমান্ডে

প্রথম পাতা

স্টাফ রিপোর্টার
২ মার্চ ২০২১, মঙ্গলবার

জাতীয় প্রেস ক্লাবের সামনে পুলিশ ও ছাত্রদলের মধ্যে সংঘর্ষের ঘটনায় করা মামলায় ছাত্রদলের ১৩ নেতাকর্মীর পাঁচদিন করে রিমান্ড মঞ্জুর করেছেন আদালত। গতকাল তাদের ঢাকা মহানগর হাকিম আদালতে হাজির করে পুলিশ। এ সময় সুষ্ঠু তদন্তের জন্য তাদের ১০ দিনের রিমান্ডের আবেদন করেন মামলার তদন্তকারী কর্মকর্তা । শুনানি শেষে ঢাকার অতিরিক্ত মুখ্য মহানগর হাকিম (এসিএমএম) আসাদুজ্জামান নূর তাদের প্রত্যেকের পাঁচদিন করে রিমান্ড মঞ্জুর করেন।

বেলা সাড়ে ৩টার দিকে আসামিদের আদালতে তুলে ১০ দিনের রিমান্ড আবেদন করেন মামলার তদন্ত কর্মকর্তা শাহবাগ থানার এস আই মো. আব্দুল্লাহ। রিমান্ড বাতিলের আবেদন করেন ঢাকা বারের নবনির্বাচিত সাধারণ সম্পাদক হযরত আলীসহ আসামি পক্ষের আইনজীবীরা। তারা জানান, শান্তিপূর্ণ সমাবেশে পুলিশ হামলা করেছে। তা ছাড়া তারা সবাই ছাত্র বিবেচনায় রিমান্ড বাতিলের আবেদন করা হয়। শুনানি শেষে পাঁচদিনের রিমান্ড মঞ্জুর করেন বিচারক।
রিমান্ডে নেয়া আসামিরা হলেন- মঞ্জুরুল আলম, আতাউর রহমান, মাসুদ রানা, শফিকুল ইসলাম, শাহিরাজ, আহসান হাবিব ভূঁইয়া রাজু, কবির হোসেন, মনোয়ার ইসলাম, আরিফুল হক, আনিচুর রহমান, খন্দকার অনিক, আবু হায়াত মো. জুলফিকার, আতিফ মোর্শেদ ও রমজান।

এর আগে গত রোববার রাতে জাতীয় প্রেস ক্লাবে পুলিশ ও ছাত্রদলের মধ্যে সংঘর্ষের ঘটনায় বিএনপি’র ৪৭ নেতাকর্মীকে আসামি করে পুলিশ বাদী হয়ে শাহবাগ থানায় মামলাটি করা হয়। মামলায় অজ্ঞাতনামা আরো ২০০-২৫০ জনকে আসামি করা হয়। মামলায় অভিযোগ করা হয়েছে (পুলিশ অ্যাসল্ট) হত্যাচেষ্টা, হামলা ও ভাঙচুর চালানো।

ছাত্রদলের ৩ নেতাকে তুলে নেয়ার অভিযোগ
জাতীয়তাবাদী ছাত্রদলের তিনজন নেতাকে আইনশৃঙ্খলা বাহিনীর সদস্য পরিচয়ে ঢাকা বিশ্ববিদ্যালয়ের টিএসসি এলাকা তুলে নিয়ে যাওয়া হয়েছে বলে অভিযোগ করেছে বিএনপি। এই তিন জন হলেন, ঢাকা বিশ্ববিদ্যালয় ছাত্রদলের আহ্বায়ক কমিটির সদস্য আনিসুর রহমান খন্দকার অনিক, স্যার এ এফ রহমান হল ছাত্রদলের সাংগঠনিক সম্পাদক আবু হায়াত মোহাম্মদ জুলফিকার জেসান এবং সার্জেন্ট জহুরুল হক হলের ছাত্রদল নেতা আতিক মোর্শেদ। বিএনপির সিনিয়র যুগ্ম মহাসচিব রুহুল কবির রিজভী ছাত্রদলের উল্লিখিত নেতাদের তুলে নেয়ার অভিযোগ করেন। তিনি বলেন, সাংবাদিক মুশতাক আহমেদের কারাবন্দী অবস্থায় মৃত্যুর প্রতিবাদে রোববার সকালে জাতীয় প্রেসক্লাবের সামনে সমাবেশ ডেকেছিল ছাত্রদল। কিন্তু সেখানে ছাত্রদলকে সমাবেশ করতে দেয়নি পুলিশ বাহিনী। তারই ধারাবাহিকতায় রোববার সন্ধ্যা সাতটা থেকে সাড়ে সাতটার দিকে ঢাকা বিশ্ববিদ্যালয়ের টিএসসি এলাকা থেকে আইনশৃঙ্খলা বাহিনীর পরিচয়ে উক্ত ছাত্রদল নেতাদেরকে তুলে নেয়া হয়েছে। অথচ পুলিশ তাদের তুলে নেয়ার বিষয়টি অস্বীকার করছে। বিএনপি’র তরফে এমন অভিযোগ করা হলেও এই তিন ছাত্রের বিষয়ে পুলিশের পক্ষ থেকে কোন বক্তব্য পাওয়া যায়নি।

 

অবশ্যই দিতে হবে *
অবশ্যই দিতে হবে *
অন্যান্য খবর