× প্রচ্ছদ অনলাইনপ্রথম পাতাশেষের পাতাখেলাবিনোদনএক্সক্লুসিভভারতবিশ্বজমিনবাংলারজমিনদেশ বিদেশশিক্ষাঙ্গনসাক্ষাতকাররকমারিপ্রবাসীদের কথামত-মতান্তরফেসবুক ডায়েরিবই থেকে নেয়া তথ্য প্রযুক্তি শরীর ও মন চলতে ফিরতে ষোলো আনা মন ভালো করা খবরকলকাতা কথকতাখোশ আমদেদ মাহে রমজানস্বাধীনতার সুবর্ণ জয়ন্তী
ঢাকা, ১৯ এপ্রিল ২০২১, সোমবার

নারায়ণগঞ্জে পাসপোর্ট করতে গিয়ে রোহিঙ্গা নারীসহ আটক ২

বাংলারজমিন

স্টাফ রিপোর্টার, নারায়ণগঞ্জ থেকে
৪ মার্চ ২০২১, বৃহস্পতিবার

নারায়ণগঞ্জে পাসপোর্ট করতে এসে রোহিঙ্গা নারীসহ দু’জনকে আটক করেছে র‌্যাব। গত মঙ্গলবার বিকালে নারায়ণগঞ্জ আঞ্চলিক পাসপোর্ট অফিসের সামনে থেকে তাদের আটক করে র‌্যাব-১১ এর একটি টিম। তারা হলেন- মো. সুমন (৩২) ও নুর তাজ (১৮)। এ সময় তাদের কাছ থেকে ভুয়া জাতীয় পরিচয়পত্র, জন্মনিবন্ধন, একটি পাসপোর্টের আবেদন ফরম ও একটি মোবাইল উদ্ধার করা হয়েছে। তাদের সঙ্গে থাকা পরিচয়পত্র অনুযায়ী আটক মো. সুমনের বাড়ি বরিশালের গৌরনদী থানার বাসুদিপাড়া ও নুর তাজ দীর্ঘদিন ধরে ঢাকার সবুজবাগ এলাকায় বসবাস করে আসছেন। র‌্যাব-১১ এর অতিরিক্ত পুলিশ সুপার মো. জসিম উদ্দিন চৌধুরী পিপিএম জানান, প্রাথমিক জিজ্ঞাসাবাদে নুর তাজ জানিয়েছেন- তার কোনো পিতা-মাতা নেই। টেকনাফের রোহিঙ্গা ক্যাম্পে তার পালিত মা আমেনার কাছে থাকেন তিনি। তিনি দালাল মো. সুমনের সহায়তায় বিদেশে যাওয়ার জন্য পাসপোর্ট তৈরি করতে নারায়ণগঞ্জ আঞ্চলিক অফিসে আবেদন করেন।
কিন্তু নুর তাজের কাছ থেকে জব্দকৃত আলামত পর্যালোচনা ও প্রাথমিক অনুসন্ধানে জানা গেছে, তার বাবার নাম সাদিক। যিনি বর্তমানে অস্ট্রেলিয়ায় বসবাস করছেন। মা শারমিন এবং দুই ভাই আনোয়ার হোসেন এবং পরেশ সাদিকদের সঙ্গে ঢাকার মুগদা এলাকায় ৪ বছর ধরে ভাড়া বাসায় বসবাস করে আসছেন তিনি। এর আগে বেশ কয়েকবার তারা নারায়ণগঞ্জের জালকুড়ি এলাকায় বসবাস করেছেন। তিনি রোহিঙ্গা হয়েও বাংলাদেশি নাগরিক হিসেবে পরিচয় দিয়ে তার মায়ের নামে জাতীয় পরিচয়পত্র, তার ভাই আনোয়ার হোসেনের নামে পাসপোর্ট তৈরি করেছেন। এ ছাড়া নিজের নামে ২০২০ সালে জন্মসনদপত্র তৈরি করেছেন। এখন তার মায়ের জাতীয় পরিচয়পত্র ব্যবহার করে পাসপোর্ট তৈরি করতে নারায়ণগঞ্জে আসেন। এমন তথ্যের ভিত্তিতে গত মঙ্গলবার অভিযান চালিয়ে নারায়ণগঞ্জ পাসপোর্ট অফিসের সামনে থেকে নুর তাজ ও তার সহযোগী সুমনকে গ্রেপ্তার করে র‌্যাব। র‌্যাবের এই কর্মকর্তা আরো জানান, গ্রেপ্তারকৃত মো. সুমন ঢাকার মতিঝিল এলাকায় ট্র্যাভেল এজেন্সিতে চাকরির আড়ালে মোটা অঙ্কের টাকার বিনিময়ে নামে-বেনামে পাসপোর্ট, জন্মসনদ ও জাতীয় পরিচয়পত্র তৈরিতে সহায়তা করে আসছিল। গ্রেপ্তারকৃত দুইজনের বিরুদ্ধে আইনগত ব্যবস্থা প্রক্রিয়াধীন রয়েছে বলেও জানান তিনি।


 

অবশ্যই দিতে হবে *
অবশ্যই দিতে হবে *
অন্যান্য খবর