× প্রচ্ছদ অনলাইনপ্রথম পাতাশেষের পাতাখেলাবিনোদনএক্সক্লুসিভভারতবিশ্বজমিনবাংলারজমিনদেশ বিদেশশিক্ষাঙ্গনসাক্ষাতকাররকমারিপ্রবাসীদের কথামত-মতান্তরফেসবুক ডায়েরিবই থেকে নেয়া তথ্য প্রযুক্তি শরীর ও মন চলতে ফিরতে ষোলো আনা মন ভালো করা খবরকলকাতা কথকতাখোশ আমদেদ মাহে রমজানস্বাধীনতার সুবর্ণ জয়ন্তী
ঢাকা, ২১ এপ্রিল ২০২১, বুধবার

শনাক্ত ৬০০’র উপরেই

প্রথম পাতা

স্টাফ রিপোর্টার
৬ মার্চ ২০২১, শনিবার

দেশে করোনায় নতুন করে আক্রান্তের সংখ্যা বাড়ছেই। ২৪ ঘণ্টায় করোনাভাইরাসে ৬৩৫ জন শনাক্ত হয়েছেন। টানা তিনদিন শনাক্তের সংখ্যা ৬০০ ছাড়ালো। এর আগে জানুয়ারির ১৮ থেকে ২০ তারিখে টানা তিনদিন ৬০০’র বেশি রোগী শনাক্ত হয়েছিলেন। ২৪ ঘণ্টায় শনাক্তের হার ৪ দশমিক ৬৩ শতাংশ। আগের দিন এই হার ছিল ৩ দশমিক ৮৭ শতাংশ। এইদিন শনাক্ত রোগীর সংখ্যা ছিল ৬১৯ জন। ৩রা মার্চ শনাক্ত হয়েছিলেন ৬১৪ জন।
এ পর্যন্ত করোনা শনাক্ত হয়েছেন ৫ লাখ ৪৯ হাজার ১৮৪ জন। গত ২৪ ঘণ্টায় মারা গেছেন ৬ জন এবং এখন পর্যন্ত মারা গেছেন ৮ হাজার ৪৪১ জন।
বিশ্লেষণে দেখা যায়, ১লা মার্চ দেশে হঠাৎ করে করোনা শনাক্ত বেড়ে যায়। ওইদিন শনাক্ত হয় ৫৮৫ জন। শনাক্তের হার ছিল ৪ দশমিক ৩১ শতাংশ। ২রা মার্চ ছিল শনাক্তের হার ৩ দশমিক ৩৬ শতাংশ, ৩রা মার্চ করোনা রোগী শনাক্তের হার ছিল ৩ দশমিক ৭৪ শতাংশ।
এই বিষয়ে জনস্বাস্থ্যবিদরা বলছেন, মানুষ স্বাস্থ্যবিধি মানছেন না। দেশের জনসংখ্যার কমপক্ষে ৭০ ভাগ টিকার আওতায় আনতে হবে বলে মনে করেন তারা। টিকা নিলেও স্বাস্থ্যবিধি মানতে হবে বলে পরামর্শ বিশেষজ্ঞদের। না হলে সংক্রমণ ঠেকানো যাবে না।

গতকাল স্বাস্থ্য অধিদপ্তরের করোনাবিষয়ক নিয়মিত সংবাদ বিজ্ঞপ্তিতে জানানো হয়, গত ২৪ ঘণ্টায় করোনা রোগী শনাক্তের হার ৪ দশমিক ৬৩ শতাংশ, এখন পর্যন্ত শনাক্তের হার ১৩ দশমকি ৩৩ শতাংশ। গত ২৪ ঘণ্টায় শনাক্ত বিবেচনায় সুস্থতার হার ৯১ দশমিক ২৫ শতাংশ এবং শনাক্ত বিবেচনায় মৃত্যুহার এক দশমিক ৫৪ শতাংশ। গত ২৪ ঘণ্টায় করোনা থেকে সুস্থ হয়েছেন ৬৭৬ জন, এখন পর্যন্ত সুস্থ হয়েছেন ৫ লাখ ১ হাজার ১৪৪ জন। গত ২৪ ঘণ্টায় করোনার নমুনা সংগ্রহ করা হয়েছে ১৩ হাজার ৮৭৯টি, এবং নমুনা পরীক্ষা করা হয়েছে ১৩ হাজার ৭১০টি। এ পর্যন্ত করোনার মোট নমুনা পরীক্ষা করা হয়েছে ৪১ লাখ ১৯ হাজার ৩১টি। গত ২৪ ঘণ্টায় মারা যাওয়া ৬ জনের মধ্যে পুরুষ ৪ জন, নারী ২ জন। এখন পর্যন্ত করোনায় আক্রান্ত হয়ে পুরুষ মারা গেছেন ৬ হাজার ৩৮১ জন এবং নারী ২ হাজার ৬০ জন। শতকরা হিসাবে পুরুষ ৭৫ দশমিক ৬০ শতাংশ, নারী ২৪ দশমিক ৪০ শতাংশ। মারা যাওয়া ৬ জনের মধ্যে বয়স বিবেচনায় ৬০ বছরের ওপরে রয়েছেন ৪ জন, ৫১ থেকে ৬০ বছরের মধ্যে আছেন ১ জন এবং ২১ থেকে ৩০ বছরের মধ্যে আছেন ১ জন। তাদের মধ্যে ঢাকা বিভাগের ৩ জন, চট্টগ্রাম বিভাগের ২ জন আর খুলনা বিভাগের আছেন ১ জন। তারা সবাই হাসপাতালে মারা গেছেন।

অবশ্যই দিতে হবে *
অবশ্যই দিতে হবে *
অন্যান্য খবর