× প্রচ্ছদ অনলাইনপ্রথম পাতাশেষের পাতাখেলাবিনোদনএক্সক্লুসিভভারতবিশ্বজমিনবাংলারজমিনদেশ বিদেশশিক্ষাঙ্গনসাক্ষাতকাররকমারিপ্রবাসীদের কথামত-মতান্তরফেসবুক ডায়েরিবই থেকে নেয়া তথ্য প্রযুক্তি শরীর ও মন চলতে ফিরতে ষোলো আনা মন ভালো করা খবরকলকাতা কথকতাখোশ আমদেদ মাহে রমজানস্বাধীনতার সুবর্ণ জয়ন্তী
ঢাকা, ১৬ এপ্রিল ২০২১, শুক্রবার

রোভারের কীর্তিতে বিস্মিত সকলেই

অনলাইন

নিজস্ব সংবাদদাতা
(১ মাস আগে) মার্চ ৬, ২০২১, শনিবার, ১২:৪৬ অপরাহ্ন

নিজেকে বাঁচিয়ে চলতে সকলেই জানে। সেই তালিকায় বাদ নেই নাসার রোভারও। নিজেকে ৪ মিটার এগিয়ে ফের ১৫০ ডিগ্রিতে ঘুরিয়ে নিতে পারে সে। এরপর মঙ্গলের মাটি থেকে প্রয়োজনীয় কাজটি সেরে নিতেও সে বেশ পটু। ওয়াশিংটন পোস্টের খবর অনুসারে, লাল গ্রহের মাটিতে নিজের কাজ করে চলেছে রোভার। ৬ চাকার যানবাহনটি ৩৩ মিনিটে ৬ দশমিক ৫ মিটার পথ চলতে পারে। এরপর লাল মাটির পথ বুঝে নিজেকে এগিয়ে পিছিয়ে নিয়ে যেতে পারে সে। নাসার মহাকাশবিজ্ঞানীরা জানিয়েছেন, প্রথম থেকেই মঙ্গলের মাটিতে নিজের কাজ দক্ষতার সঙ্গে করছে রোভার।
নিজেকে এগিয়ে পিছিয়ে নিয়ে যাওয়ার পাশাপাশি রাউন্ড মোডে ঘোরা রোভারকে বাড়তি সুবিধা দিয়েছে। এরপর রোভারের প্রধান কাজ হল মঙ্গলের মাটিতে বেশ খানিকটা দূরত্ব অতিক্রম করা। তবে কতটা দূরত্ব সে একবারে অতিক্রম করতে পারবে তা নিয়ে খানিকটা হলেও চিন্তায় নাসার মহাকাশবিজ্ঞানীরা। নাসার ইঞ্জিনিয়ারদের মতে, তারা রোভারকে একটি রিমোটে চালানো গাড়ির মত করেই রেখেছেন। ফলে তার প্রতিটি গতিবিধি তাদের নখদর্পণে। রোভার একদিনে ২০০ মিটার পর্যন্ত যেতে পারে। তবে এখনই তাকে দিয়ে এতটা পথ অতিক্রম করানো হবে কিনা তা নিয়ে সিদ্ধান্ত নেবেন বিজ্ঞানিরাই। নাসার বিজ্ঞানী রবার্ট হগ জানিয়েছেন, রোভারের কাছে একটি ড্রোন রয়েছে। এই ড্রোনটিকে সে বর্তমানে সঙ্গে নিয়েই চলছে। পরবর্তীকালে এই ড্রোন উড়বে মঙ্গলের বায়ুমণ্ডলে। তবে তার আগে সেখানকার বায়ুমণ্ডল নিয়ে নিজেদের সমীক্ষা শেষ করতে চায় নাসা। যদি মঙ্গলের বায়ুমণ্ডলে ড্রোন ওড়ানোর মত পরিস্থিতি না থাকে তবে তা ওড়ানো হবে না বলেই জানিয়েছেন বিজ্ঞানীরা।

অবশ্যই দিতে হবে *
অবশ্যই দিতে হবে *
অন্যান্য খবর