× প্রচ্ছদ অনলাইনপ্রথম পাতাশেষের পাতাখেলাবিনোদনএক্সক্লুসিভভারতবিশ্বজমিনবাংলারজমিনদেশ বিদেশশিক্ষাঙ্গনসাক্ষাতকাররকমারিপ্রবাসীদের কথামত-মতান্তরফেসবুক ডায়েরিবই থেকে নেয়া তথ্য প্রযুক্তি শরীর ও মন চলতে ফিরতে ষোলো আনা মন ভালো করা খবরকলকাতা কথকতাখোশ আমদেদ মাহে রমজানস্বাধীনতার সুবর্ণ জয়ন্তী
ঢাকা, ২১ এপ্রিল ২০২১, বুধবার

জিয়া কি ফোন করেছিলেন? তাহের নিজেই হয়তো গুল মাইরা দিছে

প্রথম পাতা

স্টাফ রিপোর্টার
৮ মার্চ ২০২১, সোমবার

তাহের কিন্তু ফেঁসেছেন জেলখানায় দেয়া তার স্টেটমেন্টের কারণে। তখন তারা কেউ কল্পনাও করতে পারেননি, আওয়ামী লীগ ২১ বছর পর পাওয়ারে ফিরে আসবে। তারা ভেবেছেন, আর্মি এদের ক্রাশ করে দিয়েছে। তা না হলে ওই স্টেটমেন্ট উনি এভাবে দেন না। জিয়া যখন গৃহবন্দি হলেন, তখন তিনি তাহেরকে ফোন করেছেন তাকে হেল্প করার জন্য। যারা সার্ভিং অফিসার, যারা জিয়ার খুব ক্লোজ, যেমন মনজুর, মীর শওকত আলী, আমিনুল হক-এরা তো জিয়ার লোক। এদের কাউকে উনি ফোন করেন নাই। উনি করেছেন তাহেরকে, যিনি আর্মিতে আর নেই।
আদৌ জিয়া তাকে ফোন করেছেন কিনা। কারণ জিয়াকে যখন ইনটার্ন করা হয়, তখন তার রুমের টেলিফোন লাইন কেটে দেয়া হয়েছিল।
লেখক, গবেষক মহিউদ্দিন আহমদ এ প্রশ্ন রাখেন শরীফ নুরুল আম্বিয়ার কাছে। বর্তমানে জাসদের একাংশের এই নেতা জবাবে বলেন, এটা একটা গুরুত্বপূর্ণ তথ্য। মহিউদ্দিন আহমদ জানতে চান, জিয়া যে তাহেরকে ফোন করেছেন, এই কনভারসেশনের সাক্ষী কে? জবাবে আম্বিয়া বলেন, তাহের নিজেই হয়তো গুল মাইরা দিছে।
মহিউদ্দিন আহমদের লেখা সদ্য প্রকাশিত ‘প্রতিনায়ক: সিরাজুল আলম খান’ শীর্ষক বইতে এই বিবরণ পাওয়া যায়। এতে বলা হয়েছে, ১৫ই আগস্ট ও ৭ই নভেম্বর এই দুটি গুরুত্বপূর্ণ দিনে গণবাহিনীর গুরুত্বপূর্ণ নেতা শরীফ নুরুল আম্বিয়া ঢাকায় ছিলেন না। এক সাক্ষাৎকারে তিনি ওই সময়টি নিয়ে কিছু মন্তব্য করেছেন।
মহিউদ্দিন আহমদ: কর্নেল তাহেরের সঙ্গে সিরাজুল আলম খানের সমীকরণ কী ছিল? বিশেষ করে ৭ই নভেম্বরের অভ্যুত্থানের ব্যাপারে?
শরীফ নুরুল আম্বিয়া: সিরাজ ভাই তাহেরকে ডিজওউন করেন নাই, ফেসও করেন নাই। আবার নিজেও কোনো পথ বাইর করেন নাই।
মহি: আমার অনুসন্ধান বলে, তাহের ওয়াজ ইনভলভড ইন ফিফটিনথ আগস্ট। তিনি ফিল্ড লেভেলে অ্যাকশনে ছিলেন না। কিন্তু তার নলেজে ছিল।
আম্বিয়া: থাকতে পারে।
মহি: ট্রাইব্যুনালে দেয়া তাহেরের স্টেটমেন্টে এটা আছে। সকালে মেজর খন্দকার আবদুর রশিদ তাকে ফোন করেছেন। তারপর তাহের রেডিও স্টেশনে গেছেন। রশিদ তাকে ফোন করে কেন?
আম্বিয়া: যোগাযোগ না থাকলে ফোন করবে কেন?
মহি: উনি এসে খোন্দকার মোশ্‌তাককে যে সাজেশনগুলো দিয়েছেন বলে দাবি করেছেন-প্রথমটাই হলো ডিক্লেয়ার মার্শাল ল’। একটা পলিটিক্যাল পার্টিতো মার্শাল ল’ দিতে পারে না? খোন্দকার মোশ্‌তাক তো মার্শাল ল’ দিলো পাঁচদিন পরে?
আম্বিয়া: নলেজে ছিল এটা প্রমাণ করার যথেষ্ট সুযোগ আছে। কিন্তু উনি প্ল্যানিংয়ে ছিল এটা প্রমাণ করা কঠিন। হয়তো ঠিক, হয়তোবা না।
তাহেরকে জিয়ার ফোন করা নিয়ে আলাপ এগুতে থাকে। তাহের নিজেই হয়তো গুল মাইরা দিছে নুরুল আম্বিয়ার এই মন্তব্যের জবাবে মহিউদ্দিন আহমদ বলেন, হতে পারে। জিয়ার অনুরোধে আমি তার প্রাণ বাঁচাতে গেছি-এই ধারণা দেয়ার জন্য। জিয়াকে যখন ইনটার্ন করা হয়, তাকে যে মারা হবে না- এটা তো অলরেডি এনসিওর করা হয়েছে। এ দায়িত্বটা ছিল মেজর হাফিজের। মেজর জিয়াউদ্দিন ছাড়া আর কোনো অফিসার তো তাহেরের সঙ্গে ছিল না? এবং পরবর্তী সময়ে তাহেরের ফাঁসির ব্যাপারে এভরিবডি ওয়াজ আনঅ্যানিমাস। জাসদ যে পরে তাহেরকে ক্যারি করেছে, এটা জাসদের জন্য আরো বেশি ডিজাস্টার হয়েছে। এ জন্য জাসদকে আরো পে করতে হবে।

অবশ্যই দিতে হবে *
অবশ্যই দিতে হবে *
পাঠকের মতামত
**মন্তব্য সমূহ পাঠকের একান্ত ব্যক্তিগত। এর জন্য সম্পাদক দায়ী নন।
মিলন
৯ মার্চ ২০২১, মঙ্গলবার, ৭:৪৯

জাসদ চেপ্টার বাংলাদেশের রাজনীতিতে ক্লোজ।

অন্যান্য খবর