× প্রচ্ছদ অনলাইনপ্রথম পাতাশেষের পাতাখেলাবিনোদনএক্সক্লুসিভভারতবিশ্বজমিনবাংলারজমিনদেশ বিদেশশিক্ষাঙ্গনসাক্ষাতকাররকমারিপ্রবাসীদের কথামত-মতান্তরফেসবুক ডায়েরিবই থেকে নেয়া তথ্য প্রযুক্তি শরীর ও মন চলতে ফিরতে ষোলো আনা মন ভালো করা খবরকলকাতা কথকতাখোশ আমদেদ মাহে রমজানস্বাধীনতার সুবর্ণ জয়ন্তী
ঢাকা, ২২ এপ্রিল ২০২১, বৃহস্পতিবার

ফুটবলার মাইনু মারমার তায়কোয়ান্ডোতে জোড়া স্বর্ণ

খেলা

স্পোর্টস রিপোর্টার
৮ এপ্রিল ২০২১, বৃহস্পতিবার

পরিচিতি তার ফুটবলার হিসেবে। টানা ৪-৫ বছর জাতীয় দলেও খেলেছেন মাইনু মারমা। গতকাল নতুন রূপে হাজির হলেন এই ফুটবলার। জাতীয় ক্রীড়া পরিষদের জিমন্যাশিয়ামে বঙ্গবন্ধু বাংলাদেশ গেমসে তায়কোয়ান্ডোতে অংশ নিলেন মাইনু। শুধু অংশই নিলেন না আনসারের হয়ে জিতলেন দু’টি স্বর্ণপদক। গতকাল সিনিয়র মহিলা (অনূর্ধ্ব- ৫৭ কেজি) ইভেন্টের ফাইনালে মাইনু মারমার দাপটের সঙ্গে খেলে ২৫-২ স্কোরে হারান চট্টগ্রাম জেলা ক্রীড়া সংস্থার জান্নাতুল তামান্না তাবাসসুমকে। আগেরদিন মাইনু স্বর্ণ জিতেছিলেন সিনিয়র মহিলা দলীয় (২৪-২৯ বছর) ইভেন্টেও। শ্রাবণী বিশ্বাস এবং শাহানা খাতুনকে সঙ্গে নিয়ে ৬.৯০ স্কোর করেন তিনি।
স্বর্ণজয়ের পর মাইনু বলেন, ‘খুবই খুশি লাগছে। দৃঢ় আত্মবিশ্বাস ছিল সাফল্যের ব্যাপারে।’ ২০০৬ সাল থেকেই তায়কোয়ান্ডো খেলছেন মাইনু। তখন থেকে ২০২১ সাল পর্যন্ত প্রতিটি জাতীয় চ্যাম্পিয়নশিপেই একটি করে স্বর্ণ জিতেছেন। এবারই প্রথম বাংলাদেশ গেমস খেললেন। হিসাব মিলিয়ে বললেন, ‘আমার স্বর্ণসংখ্যা ১৮টি।’ কোচ কোরবান আলীর মাধ্যমেই তায়কোয়ান্ডোর জগতে পা রাখেন মাইনু, ২০০৬ সালে। সেই থেকে খেলাটি এখনো খেলে যাচ্ছেন তিনি। প্রিয় খেলা ফুটবল নিয়ে তিনি বলেন, ‘২০১৭ সালে সর্বশেষ খেলেছিলাম জাতীয় মহিলা ফুটবল দলের হয়ে। তাই বলে ফুটবল খেলা এখনো ছাড়িনি। এবারের মহিলা ফুটবল লীগে সেন্ট্রাল মিডফিল্ডার হিসেবে খেলছি এফসি ব্রাহ্মণবাড়িয়ার হয়ে। তবে ফুটবলের পাশাপাশি তায়কোয়ান্ডোকা হিসেবে এসএ গেমস খেলতে চাই। ফুটবলে যা অনেক কঠিন। কেননা মহিলা ফুটবল এখন অনেক উন্নতি করেছে। যারা এখন খেলছে, তাদের ফর্ম-ফিটনেসের চেয়ে আমি অনেক পিছিয়ে। তবে চলতি মহিলা ফুটবল লীগে ভালো খেলে দৃষ্টি আকর্ষণের চেষ্টা করবো।’

অবশ্যই দিতে হবে *
অবশ্যই দিতে হবে *
অন্যান্য খবর