× প্রচ্ছদ অনলাইনপ্রথম পাতাশেষের পাতাখেলাবিনোদনএক্সক্লুসিভভারতবিশ্বজমিনবাংলারজমিনদেশ বিদেশশিক্ষাঙ্গনসাক্ষাতকাররকমারিপ্রবাসীদের কথামত-মতান্তরফেসবুক ডায়েরিবই থেকে নেয়া তথ্য প্রযুক্তি শরীর ও মন চলতে ফিরতে ষোলো আনা মন ভালো করা খবরকলকাতা কথকতাখোশ আমদেদ মাহে রমজানস্বাধীনতার সুবর্ণ জয়ন্তীসেরা চিঠি
ঢাকা, ১৬ অক্টোবর ২০২১, শনিবার , ১ কার্তিক ১৪২৮ বঙ্গাব্দ, ৮ রবিউল আউয়াল ১৪৪৩ হিঃ
কলকাতা কথকতা

কলকাতার কাবুলিওয়ালারা আফগানিস্তানে ফিরতে চান না

কলকাতা কথকতা

জয়ন্ত চক্রবর্তী, কলকাতা
(২ মাস আগে) আগস্ট ১৬, ২০২১, সোমবার, ৯:৩৯ পূর্বাহ্ন

রহমত কাবুলিওয়ালার গল্প বাঙালির মনে আজও জাগরুক। কিশোরী মেয়ে মিনিকে নিজের কন্যাজ্ঞানে ভালোবেসে রহমত এ দেশ ছেড়ে যেতে চায়নি। রবীন্দ্রনাথ ঠাকুরের কাবুলিওয়ালা তাই অমর। বেশ কয়েক দশক পরে রহমতের উত্তরসূরি আসগর, মোহাম্মদ আর জালালরা আর দেশে ফিরতে চাইছে না। রবিবার দুপুরে মধ্যে কলকাতার মেডিকেল কলেজ হাসপাতালের পিছনে তাদের ডেরায় বসে টিভিতে তারা দেখেছে তালেবানের কাছে আফগানিস্তানের পতন। দেখেছে কিভাবে অসহায় আফগান সেনারা তালেবান সেনাদের কাছে আত্মসমর্পণ করেছে। হেরাত, গজনি, মাজার ই শরিফ, কান্দাহার, জালালাবাদ এর মত একটির পর একটি শহর। আসগর এর পরিবার থাকে কান্দাহারের কাছে ছোট একটি শহরে।

স্ত্রী ফাতিমার সঙ্গে শেষ কথা হয়েছিল বৃহস্পতিবার রাতে।
বলেছিল, আফগান সেনা, পুলিশেরা শহর ছেড়ে পালাচ্ছে। সেই শেষ কথা। তারপর থেকে মোবাইল সুইচড অফ। জানি না ওরা বেঁচে আছে কিনা। মাজার ই শরীফে তার ফুফার ইলেক্ট্রনিক্সের শো রুম আছে মোহাম্মদের। এটুকু খবর পেয়েছে দোকান লুট হয়ে গেছে। কিন্তু, ফুফারা বেঁচে আছে কিনা জানে না। আসগর, মোহাম্মদ কিংবা জালালরা কলকাতায় তেজারতি কারবার করে। আফগানিস্তান এখন ইসলামিক আফগানিস্তান আমিরশাহী হয়ে গেছে। তালেবান শাসনে আর দেশে ফিরতে চাই না- বললো আসগর। ১৯৯৬ সাল থেকে ২০০১ পর্যন্ত তালেবানি অত্যাচার দেখেছে আসগর। ডেরায় বসে স্মৃতি রোমন্থন করে শিউরে উঠছিল সে- রাতের বেলায় জিপ আসতো। মেয়েদের তুলে নিয়ে যেত গাড়িতে। গাড়িতেই তারা ধর্ষিত হতো। সেই বোবা কান্না এখনও শুনতে পাই। স্কুল, কলেজ, বিশ্ববিদ্যালয় বন্ধ করে দিয়েছিল তালেবানরা। শুধু খোলা রেখেছিল কিছু মাদ্রাসা, যেখানে উগ্র মৌলবাদের শিক্ষা দেয়া হতো। আসগর স্ত্রী আর দুই ছেলের কথা তুললো- জানি না ওরা বেঁচে আছে কিনা। যদি থাকে ওদের এখানে নিয়ে আসবো, আমার যদি খুদকুরো জুটে যায় ওদেরও যাবে। শুধু অশিক্ষিত হিং, কাজু, কিসমিসের ব্যবসায়ী, টাকা বন্ধকে খাটানো কাবুলিওয়ালারা শুধু নয়, দিল্লির জহরলাল নেহেরু বিশ্ববিদ্যালয়ের আফগান ছাত্ররা ভিসার মেয়াদ বাড়ানোর আবেদন করছে। তারাও ফিরতে চায় না দুঃস্বপ্নের শাসনে। তালেবানের অত্যাচারের শোনা কাহিনী তাদের স্মৃতিতে যে দগদগে ঘা এর মতোই থেকে গেছে।

অবশ্যই দিতে হবে *
অবশ্যই দিতে হবে *
পাঠকের মতামত
**মন্তব্য সমূহ পাঠকের একান্ত ব্যক্তিগত। এর জন্য সম্পাদক দায়ী নন।
Md.Kamal
২৩ আগস্ট ২০২১, সোমবার, ১:৩৫

Published news on truth not your interest, agenda.

Professor Dr, Mohamm
১৬ আগস্ট ২০২১, সোমবার, ২:২৬

ছবিতে যাদের দেখা যাচ্ছে তারাই কি উগ্র মৌলবাদে দীক্ষিত তালেবান যারা গত ৪০ বছর যুদ্ধ করে কাবুল দখলের পর সকলকে মাফ করে দিল? এত রক্ত ক্ষয়ের পর কোন বদলা নিলনা বরং পালিয়ে যাওয়া আশরাফ গানিকে কাপুরুষ হিসেবে তকমা এঁটে দিয়েছে ? ওদের পায়ে তো কোন বুট নেই; হাতে নেই কোন ভারী অস্ত্র । তাহলে, হেরে ভূত হওয়া আমেরিকানরা সন্ত্রাসী তালেবানদের সাথেই কাজ করতে চায় কেন ? কি আছে আফগানদের রাজ্যে ? তবে কলিকাতায় বসবাসরত কাবুলিদের বর্ণনায় ১৯৯৬-২০০১ সালের তালেবানি শাসনামলের যে ভয়ঙ্কর চিত্র আঁকা হয়েছে তার সাথে এই মুহূর্তে সেখানে যা কিছু ঘটছে তার সাথে মিল পাওয়া যাচ্ছেনা । তাই, আমি আসা করব সকল আফগানদের তাদের দেশে ফেরত যাওয়া উচিৎ এবং তাদের দেশকে পুনর্গঠনে অংশ নেয়া উচিত। আর যদি তারা একান্তই না যেতে চান, ভারতীয়দের উচিত তাদের বহিস্কার করা ।

Mir Hassan Ashkary S
১৬ আগস্ট ২০২১, সোমবার, ১২:৪৮

মিথ্যার আড়ালে ঢেকে যাচ্ছে সত্য। মানব জমিন এহেন ডাহা মিথ্যুকদের খবর পাবলিশড করে কিভাবে ?

UK LAPTOP BAZAR
১৫ আগস্ট ২০২১, রবিবার, ১১:৩৪

কাবুলিওয়ালারা সুদের কারবার করে,তাদের ইসলামিক আমিরাত আফগানিস্তান এ কাজ কি?

Md Matiur Rahman
১৬ আগস্ট ২০২১, সোমবার, ১২:২২

Bohu probashi Bangladeshi royese, Jara probash theke ashte chay na. Tar mane ki Bangladesh voyonkor desh?

Rezaul
১৬ আগস্ট ২০২১, সোমবার, ১১:৩১

Fake news

আবু বকর
১৫ আগস্ট ২০২১, রবিবার, ১০:১৮

সংবাদ মেনুফ্যাক্সারিং ওয়ার্কশপ নাকি !

জহিরুল ইসলাম
১৫ আগস্ট ২০২১, রবিবার, ৯:৪৪

মিত্যা সংবাদ আর কত দিন করবে! তালেবানরা ভয়ংকর হলে জনগণ তাদের সমর্থন করছে কেন? মিত্যা সংবাদের খেসারত তোমাদেরকে একদিন দিতে হবে।

অন্যান্য খবর