× প্রচ্ছদ অনলাইনপ্রথম পাতাশেষের পাতাখেলাবিনোদনএক্সক্লুসিভভারতবিশ্বজমিনবাংলারজমিনদেশ বিদেশশিক্ষাঙ্গনসাক্ষাতকাররকমারিপ্রবাসীদের কথামত-মতান্তরফেসবুক ডায়েরিবই থেকে নেয়া তথ্য প্রযুক্তি শরীর ও মন চলতে ফিরতে ষোলো আনা মন ভালো করা খবরকলকাতা কথকতাখোশ আমদেদ মাহে রমজানস্বাধীনতার সুবর্ণ জয়ন্তীসেরা চিঠি
ঢাকা, ২২ সেপ্টেম্বর ২০২১, বুধবার , ৬ আশ্বিন ১৪২৮ বঙ্গাব্দ, ১৩ সফর ১৪৪৩ হিঃ

তালেবান হুমকিতে দেশ ছেড়েছেন আফগান নারী বক্সিং চ্যাম্পিয়ন সীমা

বিশ্বজমিন

মানবজমিন ডেস্ক
(১ সপ্তাহ আগে) সেপ্টেম্বর ১৩, ২০২১, সোমবার, ২:০৬ অপরাহ্ন

আফগানিস্তানের লাইটওয়েট বক্সিং চ্যাম্পিয়ন সীমা রেজাই। বয়স ১৮ বছর। তালেবানদের হত্যার হুমকি পেয়েছেন তিনি। এ কারণে দেশ ছাড়তে বাধ্য হয়েছেন। এ খবর দিয়েছে বৃটেনভিত্তিক অনলাইন আল আরাবি। তিনি যাতে পেশাগত প্রশিক্ষণে না যান, এ জন্য বার বার তাকে হত্যার হুমকি দিতে থাকে তালেবানরা। সীমা লাইটওয়েট বক্সিং চ্যাম্পিয়ন ছাড়াও আফগানিস্তানে নারীদের জাতীয় বক্সিং টিমের সদস্য। তিনি বলেন, পুরুষ কোচের কাছ থেকে তিনি প্রশিক্ষণ নিচ্ছিলেন, এটা ধরা পড়ার কারণে তাকে আফগানিস্তান ছাড়তে হয়েছে।
সীমা রেজাই বলেন, মধ্য আগস্টে তালেবানরা কাবুল দখল করে। এ সময়ে আমার কোচের সঙ্গে বক্সিং প্রশিক্ষণে ছিলাম। কিছু লোক সে খবর তালেবানদের কানে পৌঁছে দেয়। জানায়, একজন পুরুষ কোচ আমাকে প্রশিক্ষণ দিচ্ছেন। এ অবস্থায় প্রশিক্ষণ বন্ধ করার হুমকি দিয়ে তারা আমার বাড়িতে চিঠি পাঠায়। জানিয়ে দেয়, আমি চাইলে যুক্তরাষ্ট্রে গিয়ে বক্সিং চর্চা করতে পারি। হুমকি দেয়। বলে, আমি যদি বক্সিং বন্ধ না করি তাহলে আমাকে হত্যা করবে তারা।

এ ঘটনার পর এই টিনেজার অ্যাথলেট নিজেই আফগানিস্তান ছাড়েন। দেশে রেখে যান পরিবার। বিদেশে গিয়ে সেখানে বক্সিং প্রশিক্ষণ অব্যাহত রেখেছেন। উদ্ধার অভিযানের এক ফ্লাইটে তিনি কাতারের উদ্দেশে দেশ ছাড়েন। বর্তমানে যুক্তরাষ্ট্রের ভিসা পেতে চেষ্টা চালিয়ে যাচ্ছেন। আশা করেন, যুক্তরাষ্ট্রে পৌঁছাতে পারলে স্পোর্টস ক্যারিয়ার অব্যাহত রাখতে পারবেন। উল্লেখ্য, সীমা রেজাই তার পরিবারের সমর্থন ছাড়াই ১৬ বছর বয়স থেকে পেশাদারী বক্সিং শুরু করেন। প্রশিক্ষণে যেসব সরঞ্জাম লাগে তা কিনে দিয়েছিলেন তার কোচ। তালেবানদের ক্ষমতা দখলের আগেও আফগানিস্তানে একজন নারীর জন্য অ্যাথলেট হওয়াটা খুবই চ্যালেঞ্জিং ছিল। কারণ, সেখানকার সমাজে এসব চর্চা নিয়ে আছে নেতিবাচক ধ্যানধারণা। আফগানিস্তানের সমাজ ব্যবস্থা নারীদের স্পোর্টস ক্যারিয়ারকে ভালভাবে দেখে না। এ কারণে তিনি মনে করেন ফেডারেশন এবং আফগান অলিম্পিক কমিটি আন্তর্জাতিক প্রতিযোগিতায় নারীদের অংশ নেয়ার ক্ষেত্রে খুব কমই বিনিয়োগ করে।

অবশ্যই দিতে হবে *
অবশ্যই দিতে হবে *
অন্যান্য খবর