× প্রচ্ছদ অনলাইনপ্রথম পাতাশেষের পাতাখেলাবিনোদনএক্সক্লুসিভভারতবিশ্বজমিনবাংলারজমিনদেশ বিদেশশিক্ষাঙ্গনসাক্ষাতকাররকমারিপ্রবাসীদের কথামত-মতান্তরফেসবুক ডায়েরিবই থেকে নেয়া তথ্য প্রযুক্তি শরীর ও মন চলতে ফিরতে ষোলো আনা মন ভালো করা খবরকলকাতা কথকতাখোশ আমদেদ মাহে রমজানস্বাধীনতার সুবর্ণ জয়ন্তীসেরা চিঠি
ঢাকা, ১৬ অক্টোবর ২০২১, শনিবার , ১ কার্তিক ১৪২৮ বঙ্গাব্দ, ৮ রবিউল আউয়াল ১৪৪৩ হিঃ

কলাপাড়ায় সার সংকট দিশাহারা কৃষক

বাংলারজমিন

কলাপাড়া (পটুয়াখালী) প্রতিনিধি
১৮ সেপ্টেম্বর ২০২১, শনিবার

পটুয়াখালীর কলাপাড়ায় চলমান আমন মৌসুমে সার সংকট দেখা দিয়েছে। ফলে দিশাহারা হয়ে পড়েছেন ভুক্তভোগী চাষিরা।
সংশ্লিষ্ট সূত্রে জানা যায়, জেলা সারের গুদাম পরিত্যক্ত ঘোষণা করায় গত ২৩শে আগস্ট বাংলাদেশ কেমিক্যাল ইন্ডাস্ট্রিজ কর্পোরেশন বিসিআইসি ভবন থেকে স্বাক্ষরিত এক চিঠির মাধ্যমে পটুয়াখালীর লাউকাঠিতে একমাত্র সার গুদাম স্থানান্তরের সিন্ধান্ত গ্রহণ করে। ফলে গত ২৪শে অক্টোবর সর্বশেষ সার সরবরাহ শেষে এ গুদামের কার্যক্রম বন্ধ হয়ে যায়। আর এতেই বিপাকে পড়েছে উপজেলার সার সরবরাহকারী প্রতিষ্ঠনাসহ প্রান্তিক কৃষকরা।
বাংলাদেশ ফার্টিলাইজার এসোসিয়েশন কলাপাড়া উপজেলা শাখার সাধারণ সম্পাদক ও পৌর শহরের বিসিআইসি ডিলার খান ট্রেডার্সের স্বত্বাধিকারী মো. জাকির হোসেন জানান, চলতি সেপ্টেম্বর মাসে কলাপাড়া উপজেলায় সরকারিভাবে ১ হাজার ২২৪ টন সার পাওয়ার কথা থাকলেও ১৫ই সেপ্টেম্বর পর্যন্ত ডিলাররা সার বরাদ্দ পেয়েছেন মাত্র ৪০ টন। এ ছাড়া উপজেলা পর্যায়ে প্রতিষ্ঠান পর্যন্ত সার পৌঁছাতে বস্তা প্রতি গুনতে হচ্ছে অতিরিক্ত ভাড়া ৩৫ টাকা। লতাচাপলী ইউপির আছালত খাঁ গ্রামের কৃষক মাসুম বিল্লাহ জানান, তিনি প্রায় ৯ একর জমিতে আমনের চাষ করেছেন। কিন্তু গত একমাস ধরে তিনি সার কিনতে পারছেন না।
ফলে তিনি দুশ্চিন্তায় রয়েছেন।
পটুয়াখালী শাখার বাফার ব্যবস্থাপক (বাণিজ্যিক) মশিউর ইসলাম জানান, লাউকাঠি গুদামঘরটির ছাদ নষ্ট হয়ে যাওয়ায় গুদাম ক্লোজ করা হয়েছে। তবে । ঊর্ধ্বতন মহলে সিন্ধান্ত গ্রহণ করা হয়েছে নতুন করে গুদামঘর স্থাপন করা হবে। সেই লক্ষ্যে জমি অধিগ্রহণের প্রক্রিয়া চলমান আছে।
কলাপাড়া উপজেলা কৃষি কর্মকর্তা এ আর এম সাইফুল্লাহ জানান, সেপ্টেম্বর মাসে কলাপাড়ায় ১ হাজার ২২৪ টন সার পাওয়ার কথা থকালেও আমরা এখনো তা পাইনি। এ বিষয়ে ঊর্ধ্বতন কতৃপক্ষের সঙ্গে কথা বলেছি। দ্রুত সার সরবরাহের জন্য তাদের কাছে অনুরোধ জানানো হয়েছে।
বরিশাল বাফার গুদাম ইনচার্জ আবদুর রহিম খন্দকার  জানান, পটুয়াখালী গুদাম বন্ধ হয়ে যাওয়ায় বরিশাল থেকে  সার সরবরাহ করা হচ্ছে। বৈরি আবহাওয়ায় লেবার  ম্যানেজে আমাদের একটু প্রতিবন্ধকতা সৃষ্টি হয়েছিল। তার পরেও সবকিছু ঠিক থাকলে আমরা প্রতিদিন ৫শ’ টন সার সরবরাহ করছি। আশা করছি কলাপাড়া উপজেলায় প্রতি মাসের সার পৌঁছে দিতে পারবো। আমরা সেই লক্ষ্যে আপ্রান চেষ্টা চালিয়ে যাচ্ছি।

অবশ্যই দিতে হবে *
অবশ্যই দিতে হবে *
অন্যান্য খবর