× প্রচ্ছদ অনলাইনপ্রথম পাতাশেষের পাতাখেলাবিনোদনএক্সক্লুসিভভারতবিশ্বজমিনবাংলারজমিনদেশ বিদেশশিক্ষাঙ্গনসাক্ষাতকাররকমারিপ্রবাসীদের কথামত-মতান্তরফেসবুক ডায়েরিবই থেকে নেয়া তথ্য প্রযুক্তি শরীর ও মন চলতে ফিরতে ষোলো আনা মন ভালো করা খবরকলকাতা কথকতাখোশ আমদেদ মাহে রমজানস্বাধীনতার সুবর্ণ জয়ন্তীসেরা চিঠি
ঢাকা, ২৩ অক্টোবর ২০২১, শনিবার , ৭ কার্তিক ১৪২৮ বঙ্গাব্দ, ১৫ রবিউল আউয়াল ১৪৪৩ হিঃ

গ্রাহক নিঃস্ব হওয়ার পর সরকার পদক্ষেপ নিচ্ছে: হাইকোর্ট

অনলাইন

স্টাফ রিপোর্টার
(১ মাস আগে) সেপ্টেম্বর ২০, ২০২১, সোমবার, ৬:১৬ অপরাহ্ন

দেশের বিভিন্নখাতে প্রতারণা করা ব্যক্তিদের বিরুদ্ধে সরকার ব্যবস্থা নিলেও তা দেরিতে নেয়া হচ্ছে বলে মন্তব্য করেছেন হাইকোর্ট। এ সময় ই-কমার্স প্রসঙ্গে ক্ষোভ প্রকাশ করেন হাইকোর্ট। শুনানির একপর্যায়ে ই-ভ্যালি, এহসান গ্রুপের মতো প্রতিষ্ঠানের প্রতারণা নিয়ে বিচারক বলেন, সরকারতো ব্যবস্থা নিচ্ছেন, কিন্তু সেটা কখন? যখন আমি নিঃস্ব হয়ে গেলাম, আমার রেমিডিটা কোথায়। আমার টাকাটা নিয়ে গেল আমি দ্বারে দ্বারে ঘুরছি। সে থানায় যাবে, জেলে যাবে যাক। কিন্তু আমার টাকাটা যে নিয়ে গেল সেটা কোথায়? আমরা মামলার করার পর চোর ধরা পড়ছে। চুরি তো ঠেকানো যাচ্ছে না।

দেশের গ্রাম পর্যায়ে সুদ কারবারিদের তালিকা প্রণয়নে নির্দেশনা চেয়ে দায়ের করা রিটের ওপর শুনানির সময় বিচারপতি আবু তাহের মো. সাইফুর রহমান ও বিচারপতি মো. জাকির হোসেনের বেঞ্চ এসব কথা বলেন। আদালতে রিটের পক্ষে শুনানি করেন ব্যারিস্টার সৈয়দ সায়েদুল হক সুমন।
রাষ্ট্রপক্ষে ছিলেন ডেপুটি অ্যাটর্নি জেনারেল নুর উস সাদিক চৌধুরী।  আদালত বলেন, আমার বাড়ি কেন অরক্ষিত। আমার বাড়ি মানে বাংলাদেশ। দেশের মানুষ দরজা জানালা বন্ধ করে শান্তিতে ঘুমাবে, কিন্তু আমার ঘর কেন অরক্ষিত। মানুষের টাকা কেন লুট করে নিয়ে যাচ্ছে দেশের বাইরে। এগুলো বন্ধ করা কাদের দায়িত্ব? এটা আমরা দেখতে চাই। আমরা এটা পরীক্ষা করতে চাই। তখন রাষ্ট্রপক্ষের আইনজীবী ডেপুটি অ্যাটর্নি জেনারেল নুর উস সাদিক বলেন, মাই লর্ড, সরকার যে ব্যবস্থা নিচ্ছে না তা কিন্তু নয়। এহসান গ্রুপের তাকে গ্রেপ্তার করা হয়েছ; ই-ভ্যালির তাদেরও গ্রেপ্তার করা হয়েছে। তখন বিচারক বলেন, সরকারতো ব্যবস্থা নিচ্ছে কিন্তু সেটা কখন? যখন আমি নিঃস্ব হয়ে গেলাম, আমার রেমিডিটা কোথায়। আমার টাকাটা নিয়ে গেল আমি দ্বারে দ্বারে ঘুরতেছি। সে থানায় যাবে, জেলে যাবে যাক, কিন্তু আমার টাকাটা যে নিয়ে গেল সেটা কোথায়। আমরা মামলার করার পর চোর ধরা পড়ছে। চুরিতো ঠেকানো যাচ্ছে না। বিচারক আরো বলেন, সরকারের কাজ কি? এদেশের মানুষের মৌলিক অধিকার, তাদের আইনের শাসন সমস্ত কিছুৃ। সেখানে সরকার ঠিক মত কাজ করছে কি না আমরা দেখব।
গত ৭ সেপ্টেম্বর, গ্রাম পর্যায়ে ছড়িয়ে থাকা সুদ কারবারিদের তালিকা করার নির্দেশনা চেয়ে হাইকোর্টে রিট করেন সুপ্রিম কোর্টের আইনজীবী ব্যারিস্টার সায়েদুল হক সুমন।

অবশ্যই দিতে হবে *
অবশ্যই দিতে হবে *
পাঠকের মতামত
**মন্তব্য সমূহ পাঠকের একান্ত ব্যক্তিগত। এর জন্য সম্পাদক দায়ী নন।
শহীদুল আলম
২০ সেপ্টেম্বর ২০২১, সোমবার, ১০:৪১

গ্রাহক নিঃস্ব হওয়াই মুল লক্ষ্য! গার্মেন্টে মহিলাদের চাকরি হওয়ার কারণে অনেক লাটসাহেব কাজের বুয়া পাচ্ছে না। বিদেশে গিয়ে গরীব ধনী হওয়ার কারণে সমাজে এখন আর প্রভাব প্রতিপত্তিদের দাপট টিকছে না। গ্রাহক নিঃস্ব হয়ে গেলে, সলভেন্ট ফ্যামিলি তার পরিবারের ব্যয় বহনে হতাশ হয়ে গেলে তো রাজনৈতিক মাস্তানদের কাছে কিছু “উপহার” পাওয়ার জন্য ধর্ণা দিবে! অতীতের রাজনৈতিক সমর্থনের জন্য মাফ চেয়ে ক্ষমতাসীনদের নেক নজর পেতে চেষ্টা করবে। এর চেয়ে জনসমর্থন পাওয়ার আর কী সুযোগ আছে?

Mamun Hazari
২০ সেপ্টেম্বর ২০২১, সোমবার, ৬:৩৩

এগুলোর সাথে সরকারের উচ্চ পর্যায়ের মানুষ গুলো জড়িত যার কারণে সরকার প্রথমে এগুলোর বিরুদ্ধে ব‍্যবস্থা নেন না।

অন্যান্য খবর