× প্রচ্ছদ অনলাইনপ্রথম পাতাশেষের পাতাখেলাবিনোদনএক্সক্লুসিভভারতবিশ্বজমিনবাংলারজমিনদেশ বিদেশশিক্ষাঙ্গনসাক্ষাতকাররকমারিপ্রবাসীদের কথামত-মতান্তরফেসবুক ডায়েরিবই থেকে নেয়া তথ্য প্রযুক্তি শরীর ও মন চলতে ফিরতে ষোলো আনা মন ভালো করা খবরকলকাতা কথকতাখোশ আমদেদ মাহে রমজানস্বাধীনতার সুবর্ণ জয়ন্তীসেরা চিঠি
ঢাকা, ২৩ অক্টোবর ২০২১, শনিবার , ৭ কার্তিক ১৪২৮ বঙ্গাব্দ, ১৫ রবিউল আউয়াল ১৪৪৩ হিঃ

বান্ধবীর বাড়িতে বেড়াতে এসে গণধর্ষণের শিকার তরুণী

বাংলারজমিন

ফটিকছড়ি (চট্টগ্রাম) প্রতিনিধি
২১ সেপ্টেম্বর ২০২১, মঙ্গলবার

চট্টগ্রামের ফটিকছড়ির ভূজপুরে সহকর্মী বান্ধবীর বাড়িতে বেড়াতে গিয়ে সংঘবদ্ধ গণধর্ষণের শিকার হয়েছেন গার্মেন্ট কর্মী এক তরুণী।

গত সোমবার রাতে ভূজপুর থানাধীন দাঁতমারা ইউপির পূর্ব সোনাই লাল বাইন্তির পার্শ্বে রাবারবাগানে এ ঘটনা ঘটে।

গতকাল রাতে ওই গার্মেন্ট কর্মী নিজে বাদী হয়ে ভূজপুর থানায় একটি মামলা দায়ের করেন। এ ঘটনায় কথিত প্রেমিকসহ আরও তিনজনকে আসামি করা হয়। আসামিরা হলেন- দাঁতমারা ইউপির নতুনপাড়া গণি সওদাগর বাড়ির মো: আব্দুল হকের পুত্র ও কথিত প্রেমিক আরিফ হোসেন (২৫), একই ইউনিয়নের পূর্ব সোনাই গ্রামের হুদা মিয়ার পুত্র নুর মিয়া প্রকাশ মনু মিয়া (২৫), ২ নং ওয়ার্ডের ফরিদ মিয়ার পুত্র মোঃ জাকির হোসেন (৩৫), ও কড়ই বাগান এলাকার মৃত মনা মিয়ার পুত্র জাকির হোসেন প্রকাশ মহিবুলকে (২২)। তার অভিযোগের প্রেক্ষিতে রাতেই আরিফ হোসেন (২৫) নামে একজনকে আটক করেছে পুলিশ।

মামলার বিবরণে জানা যায়, হ্যাপি আক্তার (২১) ছন্দনামের গার্মেন্টকর্মী হেয়াকোর তার সহকর্মী বান্ধবীর মা জনৈক জ্যোৎস্না আক্তারকে মা ডাকেন। গত ১০/১২ দিন পূর্বে জনৈক জ্যোৎস্না আক্তারের বাড়িতে বেড়াতে যায় ওই কিশোরী । সেখানে স্থানীয় মোঃ আরিফ হোসেনের সাথে প্রেমের সম্পর্কে গড়ে উঠে।
পরে ওই কথিত প্রেমিক আরিফ হোসেন তার মায়ের কাছে নিয়ে যাবে বলে ওই কিশোরীকে ফুসলিয়ে গত সোমবার (২০ সেপ্টেম্বর) বিকালে তার ব্যবহৃত মোটরসাইকেলযোগে দাঁতমারা পূর্ব সোনাই ভাওন্তির পার্শ্বে রাবারবাগানে ভিতরে নিয়ে যায়। পরে ওই কথিত প্রেমিকসহ তার তিন বন্ধু মিলে ওই গার্মেন্টকর্মীকে গণধর্ষণ করে।

এ ব্যাপারে দাঁতমারা পুলিশ তদন্তকেন্দ্রের ইনচার্জ গোলাম আফছার জানান, থানায় মামলা হওয়ার পর সোমবার রাতে অভিযান চালিয়ে আরিফ হোসেনকে গ্রেপ্তার করা হয়। ভিকটিমকে উদ্ধার করে ডাক্তারি পরীক্ষার জন্য প্রেরণ করা হয় অন্য আসামিদের গ্রেপ্তারের চেষ্টা চলছে।

অবশ্যই দিতে হবে *
অবশ্যই দিতে হবে *
অন্যান্য খবর