× প্রচ্ছদ অনলাইনপ্রথম পাতাশেষের পাতাখেলাবিনোদনএক্সক্লুসিভভারতবিশ্বজমিনবাংলারজমিনদেশ বিদেশশিক্ষাঙ্গনসাক্ষাতকাররকমারিপ্রবাসীদের কথামত-মতান্তরফেসবুক ডায়েরিবই থেকে নেয়া তথ্য প্রযুক্তি শরীর ও মন চলতে ফিরতে ষোলো আনা মন ভালো করা খবরকলকাতা কথকতাখোশ আমদেদ মাহে রমজানস্বাধীনতার সুবর্ণ জয়ন্তীসেরা চিঠিইতিহাস থেকে
ঢাকা, ২৪ অক্টোবর ২০২১, রবিবার , ৯ কার্তিক ১৪২৮ বঙ্গাব্দ, ১৬ রবিউল আউয়াল ১৪৪৩ হিঃ

জাতীয় চলচ্চিত্র পুরস্কারের জন্য জমা পড়লো ১৪ সিনেমা

বিনোদন

স্টাফ রিপোর্টার
২১ সেপ্টেম্বর ২০২১, মঙ্গলবার

২০২০ সালের জাতীয় চলচ্চিত্র পুরস্কার প্রতিযোগিতায় জমা পড়েছে ১৪টি পূর্ণদৈর্ঘ্য সিনেমা। ২৮টি বিভাগে পুরস্কারের জন্য লড়াই করবে এই সিনেমাগুলো। ১৯ সেপ্টেম্বর বিকেল ৫টা পর্যন্ত গ্রহণ করে প্রযোজকদের কাছ থেকে আবেদনপত্র আহ্বান করে তথ্য মন্ত্রণালয়। বাংলাদেশ চলচ্চিত্র সেন্সর বোর্ডের সচিব মমিনুল হক জানিয়েছেন, করোনার কারণে তুলনায় কম সংখ্যক সিনেমা মুক্তি পেয়েছে। এবার ১৪টি পূর্ণদৈর্ঘ্য চলচ্চিত্র, ৭টি স্বল্পদৈর্ঘ্য ও ৬টি প্রামাণ্যচিত্র জমা পড়েছে।
১৪টি পূর্ণদৈর্ঘ্য সিনেমাগুলোর মধ্যে আছে, বীর, শাহেনশাহ, ঊনপঞ্চাশ বাতাস, গোর, বিশ্বসুন্দরী, একজন মহান নেতা, হলুদ বনি, গণ্ডি, রূপসা নদীর বাঁকে, আমার মা, চল যাই, জয়নগরের জমিদার, সুবর্ণরেখা ও হৃদয় জুড়ে। ৭টি স্বল্পদৈর্ঘ্য সিনেমার মধ্যে আছে- কোথায় পাব তারে, আতর, সাদা গোলাপ, ফেরা, আড়ং, দ্য স্কায়ার্স ও আমার বাবার নাম। ৬টি প্রামাণ্যচিত্রের মধ্যে আছে–স্বাধীনতার ডাকটিকিট, রথযাত্রার বাকি ইতিহাস, বঙ্গবন্ধুর রাজনৈতিক জীবন ও বাংলাদেশের অভ্যুদয়, বায়োগ্রাফি অব নজরুল, দ্য ফ্রন্ট পিয়ার্সম্যান ফজলুল হক ও নীলমুকুট। ১৯৭৫ সালে জাতীয় চলচ্চিত্র পুরস্কার প্রথম প্রদান করা হয়।
বাংলাদেশ সরকার চলচ্চিত্র শিল্পের বিকাশ ও উন্নয়নে উল্লেখযোগ্য অবদানের জন্য ব্যক্তিবিশেষকে এবং শ্রেষ্ঠ চলচ্চিত্র ও প্রামাণ্যচিত্রকে জাতীয় চলচ্চিত্র পুরস্কার প্রদান করে থাকে।

অবশ্যই দিতে হবে *
অবশ্যই দিতে হবে *
অন্যান্য খবর