× প্রচ্ছদ অনলাইনপ্রথম পাতাশেষের পাতাখেলাবিনোদনএক্সক্লুসিভভারতবিশ্বজমিনবাংলারজমিনদেশ বিদেশশিক্ষাঙ্গনসাক্ষাতকাররকমারিপ্রবাসীদের কথামত-মতান্তরফেসবুক ডায়েরিবই থেকে নেয়া তথ্য প্রযুক্তি শরীর ও মন চলতে ফিরতে ষোলো আনা মন ভালো করা খবরকলকাতা কথকতাখোশ আমদেদ মাহে রমজানস্বাধীনতার সুবর্ণ জয়ন্তীসেরা চিঠি
ঢাকা, ১৬ অক্টোবর ২০২১, শনিবার , ৩০ আশ্বিন ১৪২৮ বঙ্গাব্দ, ৮ রবিউল আউয়াল ১৪৪৩ হিঃ

সাড়ে ছয় মাস পর করোনা শনাক্তের হার ৫ শতাংশের নিচে

প্রথম পাতা

স্টাফ রিপোর্টার
২২ সেপ্টেম্বর ২০২১, বুধবার

দেশে করোনায় রোগী শনাক্তের হার ৫ শতাংশের নিচে নেমেছে। সাড়ে ছয় মাস পর করোনার একদিনের শনাক্তের হার ৪ দশমিক ৬৯ শতাংশে পৌঁছেছে। এ সময়ে করোনায় মৃত্যু হয়েছে আরও ২৬ জনের। মৃত্যুর এই সংখ্যাও প্রায় চার মাসের মধ্যে সবচেয়ে কম। এর আগে চলতি বছরের ৭ই মার্চ শনাক্তের হার ছিল ৪ দশমিক ৩ শতাংশ। দেশে এ পর্যন্ত মোট মৃতের সংখ্যা ২৭ হাজার ২৭৭ জন। নতুন করে শনাক্ত হয়েছেন ১ হাজার ৫৬২ জন। সরকারি হিসাবে এ পর্যন্ত মোট শনাক্ত ১৫ লাখ ৪৫ হাজার ৮০০ জন।
গত ২৪ ঘণ্টায় ১ হাজার ৬০৩ জন এবং এখন পর্যন্ত ১৫ লাখ ৪ হাজার ৭০৯ জন সুস্থ হয়ে উঠেছেন। গতকাল স্বাস্থ্য অধিদপ্তরের প্রেস বিজ্ঞপ্তিতে এই তথ্য জানানো হয়েছে।

এতে আরও জানানো হয়, দেশে ৮১০টি পরীক্ষাগারে গত ২৪ ঘণ্টায় ৩৩ হাজার ৩৭৫টি নমুনা সংগ্রহ এবং ৩৩ হাজার ৩২৭টি নমুনা পরীক্ষা করা হয়েছে। এখন পর্যন্ত ৯৪ লাখ ৯৮ হাজার ৪১৪টি নমুনা পরীক্ষা করা হয়েছে। নমুনা পরীক্ষা বিবেচনায় গত ২৪ ঘণ্টায় শনাক্তের হার ৪ দশমিক ৬৯ শতাংশ। শনাক্ত বিবেচনায় সুস্থতার হার ৯৭ দশমিক ৩৪ শতাংশ এবং শনাক্ত বিবেচনায় মৃত্যুর হার ১ দশমিক ৭৬ শতাংশ। গত ২৪ ঘণ্টায় মারা যাওয়া ২৬ জনের মধ্যে পুরুষ ১৬ জন এবং নারী ১০ জন। তাদের নিয়ে দেশে মোট পুরুষ মারা গেছেন ১৭ হাজার ৫৩৯ জন এবং নারী ৯ হাজার ৭৩৮ জন। তাদের মধ্যে বয়সভিত্তিক বিশ্লেষণে দেখা যায়, ৯১ থেকে ১০০ বছরের মধ্যে ১ জন, ৮১ থেকে ৯০ বছরের মধ্যে ১ জন, ৭১ থেকে ৮০ বছরের মধ্যে ৫ জন, ৬১ থেকে ৭০ বছরের মধ্যে ৮ জন, ৫১ থেকে ৬০ বছরের মধ্যে ৫ জন, ৪১ থেকে ৫০ বছরের মধ্যে ৩ জন, ৩১ থেকে ৪০ বছরের মধ্যে ২ জন, ২১ থেকে ৩০ বছরের মধ্যে ১ রয়েছেন। মারা যাওয়া ২৬ জনের মধ্যে ঢাকা বিভাগে ১৫ জন, চট্টগ্রাম বিভাগে ৩ জন, রাজশাহীতে ৩ জন, খুলনা বিভাগে ২ জন, সিলেটে ২ জন, ময়মনসিংহে ১ জন। তাদের মধ্যে সরকারি হাসপাতালে মারা গেছেন ২১ জন, বেসরকারি হাসপাতালে ৪ জন এবং বাসায় ১ জন।

অবশ্যই দিতে হবে *
অবশ্যই দিতে হবে *
অন্যান্য খবর