× প্রচ্ছদ অনলাইনপ্রথম পাতাশেষের পাতাখেলাবিনোদনএক্সক্লুসিভভারতবিশ্বজমিনবাংলারজমিনদেশ বিদেশশিক্ষাঙ্গনসাক্ষাতকাররকমারিপ্রবাসীদের কথামত-মতান্তরফেসবুক ডায়েরিবই থেকে নেয়া তথ্য প্রযুক্তি শরীর ও মন চলতে ফিরতে ষোলো আনা মন ভালো করা খবরকলকাতা কথকতাখোশ আমদেদ মাহে রমজানস্বাধীনতার সুবর্ণ জয়ন্তীসেরা চিঠি
ঢাকা, ২৩ অক্টোবর ২০২১, শনিবার , ৮ কার্তিক ১৪২৮ বঙ্গাব্দ, ১৫ রবিউল আউয়াল ১৪৪৩ হিঃ

পরীর পাহাড় নিয়ে আইনমন্ত্রীকে নালিশ দিলেন চট্টগ্রামের আইনজীবী নেতারা

দেশ বিদেশ

স্টাফ রিপোর্টার, চট্টগ্রাম থেকে
২৮ সেপ্টেম্বর ২০২১, মঙ্গলবার

চট্টগ্রামের  ঐতিহ্যবাহী পরীর পাহাড় নিয়ে সৃষ্ট পরিস্থিতি নিয়ে কথা বলতে আইন, বিচার ও সংসদ বিষয়ক মন্ত্রী আনিসুল হকের সঙ্গে দেখা করেছেন চট্টগ্রামের আইনজীবী নেতারা। এ সময় তারা আইনমন্ত্রীকে তাদের বিভিন্ন সমস্যার কথা তুলে ধরেন। রোববার দুপুরে সচিবালয়ে মন্ত্রী আনিসুল হকের সঙ্গে আইনজীবীদের ১০ সদস্যের একটি প্রতিনিধিদলের এই বৈঠক অনুষ্ঠিত হয়। চট্টগ্রাম জেলা আইনজীবী সমিতির সভাপতি এনামুল হকের নেতৃত্বে প্রতিনিধিদলে ছিলেন সমিতির সাধারণ সম্পাদক এএইচএম জিয়া উদ্দিন, বাংলাদেশ বার কাউন্সিলের সদস্য মুজিবুল হক, চট্টগ্রাম জেলা পিপি একেএম সিরাজুল ইসলাম চৌধুরী ও মেট্রোপলিটন পিপি ফখরুদ্দীন চৌধুরী, চট্টগ্রাম জেলা জিপি নাজমুল আহসান খান আলমগীর, চট্টগ্রাম জেলা আইনজীবী সমিতির সাবেক সভাপতি আনোয়ারুল ইসলাম চৌধুরী ও রতন কুমার রায় এবং সাবেক সাধারণ সম্পাদক আব্দুর রশিদ। বৈঠকে আইন ও বিচার বিভাগের সচিব মো. গোলাম সারওয়ার ও যুগ্ম সচিব হাবিবুর রহমান জিন্নাহও উপস্থিত ছিলেন।
জানা গেছে, এ সময় আইনজীবীরা বর্তমান জেলা প্রশাসন অনেকটা ইচ্ছাকৃতভাবে তাদের সঙ্গে ঝামেলা করছেন বলে অভিযোগ করেন। তারা আইনমন্ত্রীকে সৃষ্ট পরিস্থিতিতে ভূমিকা রাখতে অনুরোধ করেন। মন্ত্রী এই সময় তাদের কথা মনোযোগ দিয়ে শুনেন ও বিষয়টি সমাধানের আশ্বাস দেন।
একই সঙ্গে তিনি এই বিষয়ে সমাধান না হওয়া পর্যন্ত সংশ্লিষ্ট সবাইকে ধৈর্য ধরার পরামর্শ দেন।
বৈঠকে আইনমন্ত্রীকে কি কি বিষয়ে জানানো হয়েছে জিজ্ঞাসা করলে আইনজীবী সমিতির সভাপতি এডভোকেট এনামুল হক মানবজমিনকে বলেন, ‘বৈঠকে আমরা আমাদের সমস্যার কথা বলেছি। মন্ত্রী আমাদের সুন্দর সমাধানের আশ্বাস দিয়েছেন। তিনি এই বিষয়ে চট্টগ্রাম জেলা প্রশাসনের বক্তব্যও শুনবেন। এরপর প্রধানমন্ত্রীর সঙ্গে আলোচনা করে বিষয়টি নিষ্পত্তি করবেন বলে জানিয়েছেন।
উল্লেখ্য, ২রা সেপ্টেম্বর কয়েকটি গণমাধ্যমে একটি সতর্কীকরণ বিজ্ঞপ্তি প্রকাশ করে চট্টগ্রাম জেলা প্রশাসন। এতে চট্টগ্রাম আদালত ভবন এলাকার পরীর দীঘির আশেপাশের ৩৫০টি স্থাপনাকে অবৈধ ও ঝুঁকিপূর্ণ উল্লেখ করা হয়। পাশাপাশি এটিকে সম্পূর্ণ সরকারি খাস জায়গা দাবি করে সেখানে কোনো ধরনের স্থাপনা না গড়তে সতর্ক করা হয়। আর এই বিজ্ঞপ্তিকে কেন্দ্র করে এই আদালতপাড়ার আইনজীবীদের সঙ্গে জেলা প্রশাসনের বিরোধ চরমে পৌঁছেছে। আইনজীবীরা বলছেন, তাদের নতুন দু’টি ভবন নির্মাণকাজ বন্ধ করতে প্রতিহিংসাপরায়ণ হয়ে জেলা প্রশাসন এমন বিজ্ঞপ্তি দিয়েছে। এটা নিয়ে তারা জেলা প্রশাসনের বিরুদ্ধে একটি সংবাদ সম্মেলনও করেছে। সর্বশেষ গত শনিবার (২৫শে সেপ্টেম্বর)  জেলা প্রশাসনের এক অনুষ্ঠানে প্রধানমন্ত্রীর মুখ্য সচিব ড. আহমদ কায়কাউস পরীর পাহাড় নিয়ে টানাহ্যাঁচড়া না করতে উভয়পক্ষের প্রতি আহ্বান জানান।

অবশ্যই দিতে হবে *
অবশ্যই দিতে হবে *
অন্যান্য খবর