× প্রচ্ছদ অনলাইনপ্রথম পাতাশেষের পাতাখেলাবিনোদনএক্সক্লুসিভভারতবিশ্বজমিনবাংলারজমিনদেশ বিদেশশিক্ষাঙ্গনসাক্ষাতকাররকমারিপ্রবাসীদের কথামত-মতান্তরফেসবুক ডায়েরিবই থেকে নেয়া তথ্য প্রযুক্তি শরীর ও মন চলতে ফিরতে ষোলো আনা মন ভালো করা খবরকলকাতা কথকতাখোশ আমদেদ মাহে রমজানস্বাধীনতার সুবর্ণ জয়ন্তীসেরা চিঠি
ঢাকা, ১৮ অক্টোবর ২০২১, সোমবার , ২ কার্তিক ১৪২৮ বঙ্গাব্দ, ১০ রবিউল আউয়াল ১৪৪৩ হিঃ

বিকৃত রুচি!

বিশ্বজমিন

মানবজমিন ডেস্ক
(৪ দিন আগে) অক্টোবর ১৩, ২০২১, বুধবার, ১১:৪৭ পূর্বাহ্ন
সর্বশেষ আপডেট: ১০:২৩ পূর্বাহ্ন

বিকৃত রুচির পরিচয় দিয়েছেন যুক্তরাষ্ট্রের ইডাহো রাজ্যে বসবাসরত শ্যানন ও’কনর (৪৭)। তিনি টিনেজারদের দিয়ে মদ্যপ অবস্থায় শারীরিক সম্পর্ক গড়তে বাধ্য করতেন। তাদেরকে প্রচুর পরিমাণে মদ আর কনডম সরবরাহ দিতেন। মদ্যপ অবস্থায় ওইসব টিনেজ যখন শারীরিক সম্পর্কে মিলিত হতো, তখন তিনি তা পর্যবেক্ষণ করতেন। কিন্তু বিষয়টি ফাঁস হয়ে গেছে। এখন আদালতের কাঠগড়ায় শ্যানন ও’কনর। সেখানে তার অপকর্মের বর্ণনা দিচ্ছেন প্রকিসিউটররা। তারা বলেছেন, তিনি নিজেও একজন মা।
যখন একটি মদ্যপ টিনেজার বালক একজন টিনেজার মেয়ের শরীর নিয়ে উন্মত্ততায় মেতে উঠেছে, তখন শ্যানন ও’কনর তা দেখছিলেন। তিনি একটি বেডরুমে বসে তা দেখে হাসিতে ফেটে পড়ছিলেন। যে টিনেজার মেয়েটির শরীর নিয়ে এমন খেলায় মেতে উঠেছে ওই মদ্যপ টিনেজার বালক, সে শ্যানন ও’কনরের ১৫ বছর বয়সী ছেলের একজন ভাল বান্ধবী। এতে যাদেরকে তিনি আসক্ত করতেন, তাদের পিতা-মাতার কাছ থেকে বিষয়টি একেবারে গোপন রাখতেন। শুধু তা-ই নয়। নিজের স্বামীর কাছ থেকেও বিষয়টি গোপন রাখতেন। তিনি ১৪ ও ১৫ বছর বয়সী টিনেজারদের জন্য এমন পার্টির আয়োজন করতেন। তাদেরকে মদ দিতেন, কনডম সরবরাহ দিতেন। এতে তারা এতটাই মদ্যপ হয়ে যেতো যে, বমি করতো। দাঁড়াতে পারতো না। আবার কেউ কেউ অচেতন হয়ে যেতো। এসব নিয়ে আদালতে মামলা চলছে।
ডিস্ট্রিক্ট এটর্নি জেফ রোজেন আদালতে বলেছেন, অবশেষে এমন ঘটনার শিকার অনেক টিনেজার সামনে এগিয়ে এসেছে। তারা ওই গভীর হতাশাজনক অধ্যায় সম্পর্কে জানিয়েছেন। জেফ রোজেন আরো বলেন, একজন অভিভাবক হিসেবে আমি হতাশ। ডিস্ট্রিক্ট এটর্নি হিসেবে এসব শিশুকে যেসব প্রাপ্ত বয়স্করা বিপন্ন করেছেন, তাদেরকে আইনের আওতায় আনতে আমি বদ্ধপরিকর।
শ্যানন ও’কনর নিজে শ্যানন ব্রুগা হিসেবেও পরিচিত। তার বিরুদ্ধে ইডাহো রাজ্যে মামলা হয়েছে। সেখানেই তিনি এখন বসবাস করেন। ২০২০ সালের শুরু থেকে গত ১২ মাসের ভিতর টিনেজারদের নিয়ে তিনি এমন অনেক পার্টির আয়োজন করেছেন। নিজের ছেলে, সহযোগী এবং অন্যদের নিয়ে আয়োজন করেন এসব পার্টি। এতে যারা যোগ দিয়েছে, তাদেরকে গোপনীয়তা বজায় রাখার জন্য প্রচ- চাপ দেয়া হতো। শ্যানন ও’কনর তাদেরকে বলতেন, যতি এ কথা কাউকে বলো, তাহলে জেল অবধারিত।
১৪ বছর বয়সী একটি টিনেজার মেয়ে এসব ইভেন্ট নিয়ে কথা বলেছে। সে বলেছে, তাকে প্রতিশোধ নেয়ার হুমকি দেয়া হয়েছে। সে বলেছে, একবার একটি টিনেজার বালকের হাতে কনডম ধরিয়ে দেন শ্যানন ও’কনর। তারপার তাকে ধাক্কা দিয়ে একটি রুমে নিয়ে যান। সেই রুমের ভিতর মদ্যপ অবস্থায় ম্যাট্রেসের ওপর বসে ছিল ১৪ বছর বয়সী একটি টিনেজার মেয়ে। ওই ছেলেকে দেখে মেয়েটি ভয় পেয়ে যায়। সে দৌড়ে বাথরুমে ঢুকে ভিতর থেকে দরজা বন্ধ করে দেয়।
আরেকটি ঘটনায় শ্যানন ও’কনর একটি বালককে একটি রুমে নিয়ে যায়। সেখানেও ছিল একটি মদ্যপ মেয়ে। ওই মেয়েটিকে যৌন নির্যাতন করা হয়েছে বলে দাবি করেছেন প্রসিকিউটাররা। পরে মদ্যপ ও ওই অবস্থায় মেয়েটিকে একা ফেলে আসায় শ্যানন ও’কনরের সঙ্গে মুখোমুখি হয় মেয়েটি। সে চিৎকার করে শ্যানন ও’কনরকে বলে, আমার কি হতে যাচ্ছিল আপনি কি জানেন?
২০২০ সালের অক্টোবরে বাচ্চাদের জন্য সান্তা ক্লারায় একটি কটেজ ভাড়া নেন। সেখানে তিনি টিনেজারদের গ্যাদারিং আয়োজন করেন। এক পর্যায়ে একটি মেয়ের আঙ্গুল ভেঙে যায়। এখন এসব অভিযোগে বিচারের মুখোমুখি শ্যানন ও’কনর।

অবশ্যই দিতে হবে *
অবশ্যই দিতে হবে *
পাঠকের মতামত
**মন্তব্য সমূহ পাঠকের একান্ত ব্যক্তিগত। এর জন্য সম্পাদক দায়ী নন।
sharful
১৪ অক্টোবর ২০২১, বৃহস্পতিবার, ১১:১২

Have you no any objective news ? Please don't publish such news.

Nurullah
১৩ অক্টোবর ২০২১, বুধবার, ৭:০০

এ মহিলা সাক্ষাত শয়তানের অনুসারী

Md. Kamruzzaman
১৩ অক্টোবর ২০২১, বুধবার, ১:৪০

বিকৃত রুচির মহিলার কঠিন শাস্তি হওয়া উচিৎ ।

অন্যান্য খবর