× প্রচ্ছদ অনলাইনপ্রথম পাতাশেষের পাতাখেলাবিনোদনএক্সক্লুসিভভারতবিশ্বজমিনবাংলারজমিনদেশ বিদেশশিক্ষাঙ্গনসাক্ষাতকাররকমারিপ্রবাসীদের কথামত-মতান্তরফেসবুক ডায়েরিবই থেকে নেয়া তথ্য প্রযুক্তি শরীর ও মন চলতে ফিরতে ষোলো আনা মন ভালো করা খবরকলকাতা কথকতাখোশ আমদেদ মাহে রমজানস্বাধীনতার সুবর্ণ জয়ন্তীসেরা চিঠিইতিহাস থেকে
ঢাকা, ২৬ অক্টোবর ২০২১, মঙ্গলবার , ১১ কার্তিক ১৪২৮ বঙ্গাব্দ, ১৮ রবিউল আউয়াল ১৪৪৩ হিঃ
আর মাত্র ৩ দিন

শ্রীলঙ্কার কাছে হারে চিন্তিত নন প্রধান নির্বাচক

খেলা

স্পোর্টস রিপোর্টার
১৪ অক্টোবর ২০২১, বৃহস্পতিবার

বিশ্বকাপ সামনে রেখে প্রস্তুতি ম্যাচে শ্রীলঙ্কার কাছে হার দেখেছে বাংলাদেশ দল। তবে এতে চিন্তিত নন প্রধান নির্বাচন মিনহাজুল আবেদীন নান্নু। বাছাইপর্ব ও মূল পর্বে বাংলাদেশের সাফল্যের বিষয়ে আশাবাদী জাতীয় দলের এ সাবেক অধিনায়ক। আগামী ১৭ই অক্টোবর শুরু হচ্ছে টি-টোয়েন্টি বিশ্বকাপের প্রথম পর্ব। বাছাইপর্বের ম্যাচ শুরুর আগে ওমান ও আরব আমিরাতের কন্ডিশনের সঙ্গে খাপ খাইয়ে নিতে প্রস্তুতি ম্যাচ খেলছে টাইগাররা। ওমান এ-দলের বিপক্ষে প্রস্তুতি ম্যাচে হেসে খেলে জয় পেলেও ডমিঙ্গো শিষ্যরা হোঁচট খেয়েছে শ্রীলঙ্কার বিপক্ষে অফিসিয়াল ওয়ার্ম আপ ম্যাচে । আবুধাবিতে লঙ্কানদের বিপক্ষে ৪ উইকেটের হার নিয়ে মাঠ ছাড়তে হয়েছে লিটন-সৌম্যদের। তবে দলের এই হারে চিন্তিত নন মিনহাজুল আবেদীন।
কন্ডিশনের সঙ্গে মানিয়ে নেয়ার পর ক্রিকেটাররা ভালোভাবে বিশ্বকাপ শুরু করতে পারবে বলেও মনে করেন তিনি। গতকাল সংবাদমাধ্যমকে মিনহাজুল আবেদীন বলেন, ‘অনুশীলন ম্যাচ নিয়ে খুব একটা চিন্তার কারণ নেই। অনেকেই সকাল থেকে প্রশ্ন করছেন অনুশীলন ম্যাচটা আমরা হেরে গেলাম কেন? অনুশীলন ম্যাচটা মূলত আমরা পুরো বিশ্বকাপে কোন প্ল্যান নিয়ে আগাচ্ছি সেটা ও খেলোয়াড়দের কন্ডিশনের সঙ্গে খাপ খাইয়ে নেয়ার একটা চেষ্টা।’ প্রধান নির্বাচক বলেন, ‘ওমানের উইকেট আর আবুধাবির উইকেট কাছাকাছি, এমন উইকেটে ছেলেরা খুব একটা বেশি খেলেনি। আশা করছি ১৫ তারিখের মধ্যে আরেকটি প্রস্তুতি ম্যাচ খেলবো। আর সেটির মাধ্যমে ছেলেরা নিজেদের পুরোপুরি প্রস্তুত করে নিতে পারবে। আশা করছি বিশ্বকাপ ভালোভাবে শুরু করতে পারবো। বাছাইপর্বের তিনটা ম্যাচ আমাদের জন্য খুবই গুরুত্বপূর্ণ।’ ১৪ই অক্টোবর আয়ারল্যান্ডের বিপক্ষে নিজেদের শেষ প্রস্তুতি ম্যাচ খেলবে বাংলাদেশ। এরপর ১৭ই অক্টোবর বাছাইপর্বের প্রথম ম্যাচে স্কটল্যান্ডের বিপক্ষে মাঠে নামবে মাহমুদুল্লাহ বাহিনী।
মঙ্গলবার শ্রীলঙ্কার বিপক্ষে প্রস্তুতি ম্যাচে টসে জিতে আগে ব্যাট করার সিদ্ধান্ত নেন মাহমুদুল্লাহর অনুপস্থিতিতে দলকে নেতৃত্ব দেয়া লিটন কুমার দাস। তবে সৌম্য সরকার ছাড়া (৩৪) কেউই ছুঁতে পারেননি ২০-এর ঘর। ওমান ‘এ’ দলের পর শ্রীলঙ্কার বিপক্ষেও রান পাননি অভিজ্ঞ ব্যাটার মুশফিকুর রহীম। বাজে ব্য্যাটিংয়ের পর বোলিংয়ে শুরুটা ভালো করেছিল বাংলাদেশ। মাত্র ৭৫ রানেই ৬ উইকেট হারায় লঙ্কানরা। কিন্তু শেষে আভিশকা ফার্নান্দো ও চামিকা করুনারত্মের ব্যাটিংয়ে ৬ বল বাকি থাকতেই ১৪৮ রানের লক্ষ্যে পৌঁছায় লঙ্কানরা। ইনিংসের ১১তম ওভারেই ছয় উইকেট পতনের পর হাল ধরেন আভিশকা ফার্নান্দো। চামিকা করুনারত্নের সঙ্গে সপ্তম উইকেটে ৮.১ ওভারে অবিচ্ছিন্ন ৭৩ রানের জুটি গড়ে দলকে জিতিয়েই মাঠ ছাড়েন তিনি। আভিশকা অপরাজিত থাকেন ফিফটি হাঁকিয়ে। বাংলাদেশের পক্ষে বল হাতে সর্বোচ্চ ২ উইকেট নেন সৌম্য সরকার। তিন ওভারের স্পেলে মাত্র ১২ রান খরচ করেন সৌম্য। এছাড়া শেখ মেহেদী হাসান, শরীফুল ইসলাম ও তাসকিন আহমেদের শিকার একটি করে উইকেট। আবধাবিতে ব্যাটিংয়ে বাংলাদেশের ইনিংসের শুরুটা খারাপ ছিল না। লিটন দাস আর নাঈম শেখের ২৫ বলের উদ্বোধনী জুটিতে ওঠে ৩১ রান। ১৪ বলে ১৬ করে লিটন ফিরলে ভাঙে এই জুটি। এরপর ১৯ বলে ১১ রান করে সাজঘরের পথ ধরেন নাঈমও। ব্যর্থ হন মুশফিকুর রহীম এবং আফিফ হোসেন ধ্রুবও। মুশফিক ১৩ বলে ১৩ আর আফিফ ১১ বলে ১১ রানে আউট হন। সৌম্য সরকার অবশ্য হারানো ফর্ম ফিরে পেয়েছেন অনেকটাই। দুই ছক্কা হাঁকিয়ে দারুণ কিছুর ইঙ্গিতই ছিল তার ব্যাটে। তবে দলের ১০০ রান পূরণ হওয়ার কিছু পরই থামতে হয়েছে তাকেও। ২৬ বলে ১ বাউন্ডারি আর ২ ছক্কায় টাইগারদের মধ্যে সর্বোচ্চ ৩৪ রান করেন সৌম্য। এরপর দুশমন্থ চামিরার করা ইনিংসের ১৮তম ওভারে টানা দুই বলে সাজঘরে ফেরেন শামীম হোসেন পাটোয়ারী আর নুরুল হাসান সোহান। শামীম ৮ বলে ৫ আর সোহান ১৪ বলে করেন ১৫ রান। শেষদিকে শেখ মেহেদী হাসানের ১২ বলে অপরাজিত ১৬ এবং তাসকিন আহমেদের ৪ বলে ৪ রানে ১৪৭ রানের সংগ্রহ পায় বাংলাদেশ।

অবশ্যই দিতে হবে *
অবশ্যই দিতে হবে *
অন্যান্য খবর