× প্রচ্ছদ অনলাইনপ্রথম পাতাশেষের পাতাখেলাবিনোদনএক্সক্লুসিভভারতবিশ্বজমিনবাংলারজমিনদেশ বিদেশশিক্ষাঙ্গনসাক্ষাতকাররকমারিপ্রবাসীদের কথামত-মতান্তরফেসবুক ডায়েরিবই থেকে নেয়া তথ্য প্রযুক্তি শরীর ও মন চলতে ফিরতে ষোলো আনা মন ভালো করা খবরকলকাতা কথকতাখোশ আমদেদ মাহে রমজানস্বাধীনতার সুবর্ণ জয়ন্তীসেরা চিঠিইতিহাস থেকে
ঢাকা, ৫ ডিসেম্বর ২০২১, রবিবার , ২০ অগ্রহায়ণ ১৪২৮ বঙ্গাব্দ, ২৯ রবিউস সানি ১৪৪৩ হিঃ

করোনা ভাইরাসের উৎস সন্ধানে শেষ সুযোগ!

বিশ্বজমিন

মানবজমিন ডেস্ক
(১ মাস আগে) অক্টোবর ১৪, ২০২১, বৃহস্পতিবার, ১০:৩২ পূর্বাহ্ন

করোনা ভাইরাসের মূল উৎস খুঁজে পেতে নতুন একটি পরিষদ গঠন করেছে বিশ্ব স্বাস্থ্য সংস্থা। এর নাম দেয়া হয়েছে ‘সায়েন্টিফিক অ্যাডভাইজরি গ্রুপ অন দ্য অরিজিনস অব নোবেল প্যাথোজেন্স (সাগো)। এতে মনোনয়ন দেয়া হয়েছে ২৬ জন বিশেষজ্ঞকে। বিশ্ব স্বাস্থ্য সংস্থা বলেছে, নতুন এই টাক্সফোর্সই হতে পারে করোনার উৎস খোঁজার শেষ সুযোগ। এ খবর দিয়েছে অনলাইন বিবিসি। এখন থেকে দেড় বছরেরও আগে চীনের উহান শহর থেকে ছড়িয়ে পড়ে এই ভয়াবহ ভাইরাস। তারপর থেকে ছড়িয়ে পড়ে সারাবিশ্বে। পুরো বিশ্বকে কার্যত অচল করে দেয় এই আণুবীক্ষণিক ভাইরাস। কিভাবে, কোন উৎস থেকে এই ভাইরাসের বিস্তার তা নিয়ে অনেক গবেষণা, তৎপরতা চলছে। কিন্তু কোনো সদুত্তর এখনও পরিষ্কারভাবে পাওয়া যায়নি।
চীনে খাদ্য হিসেবে পশু বিক্রির বাজার থেকে নাকি ল্যাবরেটরি থেকে দুর্ঘটনাক্রমে এই ভাইরাসের বিস্তার তা বিবেচনায় নেবে নবগঠিত সাগো কমিটি। ল্যাবরেটরি থেকে ভাইরাসের বিস্তার হওয়ার অভিযোগ জোরালোভাবে প্রত্যাখ্যান করে আসছে চীন। ফেব্রুয়ারিতে বিশ্ব স্বাস্থ্য সংস্থার একটি টিম করোনা ভাইরাসের উৎস সন্ধানে চীনে যায়। তারা বলেন, এই ভাইরাস সম্ভবত বাদুর থেকে ছড়িয়ে পড়েছে। তবে এ নিয়ে এখনও অনেক গবেষণা করার বাকি।
পরে বিশ্ব স্বাস্থ্য সংস্থার মহাপরিচালক ড. টেডরোস আধানম ঘেব্রেয়েসাস বলেন, ওই কমিটিকে পর্যাপ্ত ডাটা দেয়নি চীন। এ ছাড়া চীনের স্বচ্ছতার অভাব ছিল। এসব কারণে বিশ্ব স্বাস্থ্য সংস্থার ওই টিমের তদন্তে ব্যাঘাত ঘটেছে। ওই তদন্তে যেসব সদস্য ছিলেন, নবগঠিত সাগো কমিটিতে তার মধ্যে ৬ জনকে রাখা হয়েছে। করোনা ভাইরাস ছাড়াও অন্য উচ্চ ঝুঁকিপূর্ণ ভাইরাস সম্পর্কেও তদন্ত করবে সাগো কমিটি। সংস্থাটির মহাপরিচালক বলেন, ভবিষ্যতে নতুন ভাইরাস ছড়িয়ে পড়া রোধে নতুন নতুন ভাইরাস বা প্যাথোজেন সম্পর্কে জানা অত্যাবশ্যক।
সায়েন্স জার্নালে যৌথ একটি সম্পাদকীয়তে ড. টেডরোস আধানম ঘেব্রেয়েসাস ও বিশ্ব স্বাস্থ্য সংস্থার অন্য কর্মকর্তারা বলেছেন, করোনা ভাইরাসের বিস্তারের ক্ষেত্রে ল্যাবরেটরি থেকে দুর্ঘটনার বিষয়টি উড়িয়ে দেয়া যায় না। অন্যদিকে বিশ্ব স্বাস্থ্য সংস্থার ইমার্জেন্সি ডিরেক্টর মাইকেল রায়ান বলেছেন, করোনা ভাইরাসের উৎস সন্ধানের জন্য সাগো কমিটির কাজই শেষ বলে মনে হয় না।
এরই মধ্যে সিএনএন রিপোর্ট করেছে যে, মহামারির প্রথম দিকে যে লাখ লাখ ব্লাডব্যাংকে রক্তের নমুনা নেয়া হয়েছিল, তা পরীক্ষা করতে প্রস্তুত চীন। ঠিক এমন সময়ে নতুন এই কমিটির ঘোষণা দিলো বিশ্ব স্বাস্থ্য সংস্থা। তবে জেনেভায় জাতিসংঘে নিযুক্ত চীনের রাষ্ট্রদূত চেন সু বলেছেন, সাগো’র কর্মকা-কে রাজনৈতিক করা উচিত হবে না। এই টিমকে অন্য কোথাও পাঠানো উচিত।

অবশ্যই দিতে হবে *
অবশ্যই দিতে হবে *
অন্যান্য খবর