× প্রচ্ছদ অনলাইনপ্রথম পাতাশেষের পাতাখেলাবিনোদনএক্সক্লুসিভভারতবিশ্বজমিনবাংলারজমিনদেশ বিদেশশিক্ষাঙ্গনসাক্ষাতকাররকমারিপ্রবাসীদের কথামত-মতান্তরফেসবুক ডায়েরিবই থেকে নেয়া তথ্য প্রযুক্তি শরীর ও মন চলতে ফিরতে ষোলো আনা মন ভালো করা খবরকলকাতা কথকতাখোশ আমদেদ মাহে রমজানস্বাধীনতার সুবর্ণ জয়ন্তীসেরা চিঠিইতিহাস থেকে
ঢাকা, ৯ ডিসেম্বর ২০২১, বৃহস্পতিবার , ২৪ অগ্রহায়ণ ১৪২৮ বঙ্গাব্দ, ৪ জমাদিউল আউয়াল ১৪৪৩ হিঃ

তমার চাওয়া

বিনোদন

স্টাফ রিপোর্টার
২৩ অক্টোবর ২০২১, শনিবার

চিত্রনায়িকা তমা মির্জা। সময়ের সঙ্গে তাল মিলিয়ে ওয়েবের জগতে কাজ করছেন। ওটিটি প্ল্যাটফরমে মুক্তি পেয়েছে তার অভিনীত ওয়েব ফিল্ম ‘খাঁচার ভেতর অচিন পাখি’। রায়হান রাফির পরিচালনায় এ সিনেমার নাম ভূমিকায় অভিনয় করেছেন জাতীয় চলচ্চিত্র পুরস্কার জয়ী এ অভিনেত্রী। তার চরিত্রের নাম পাখি। এ সিনেমায় তমা সহশিল্পী হিসেবে পেয়েছেন গুণী অভিনেতা ফজলুর রহমান বাবুকে। মানবজমিন-এর সঙ্গে একান্ত আলাপে তমা জানান, ‘খাঁচার ভেতর অচিন পাখি’ তার অভিনয় জীবনের অন্যতম সেরা কাজ বলে মনে হচ্ছে এখন অবধি। তমা বলেন, ভিন্নধর্মী এক গল্প।
রাজনীতি, থ্রিলার, ইমোশন, ড্রামা সবকিছু থাকছে এক গল্পেই। কাজ করতে গিয়ে বেশ চ্যালেঞ্জের মুখোমুখি হতে হয়েছে বলেও জানান এই অভিনেত্রী। তমা বলেন, আমরা যারা ফিল্মে কাজ করি তাদের অভিনয় একটু ড্রামা, লাউড থাকে। ফিল্মে আসলে অনেক কিছু ফিল্মিক হয়। আর অনেক বেশি অভিনেতা-অভিনেত্রী থাকে। জমজমাট একটা সেট, পরিবেশ থাকে সুন্দর। তখন যেটা হয় নিজের পরিশ্রমের জায়গা কমে যায়। নিজের চরিত্রের ব্যাপ্তি ওতো বেশি থাকে না। আমার শেষ মুক্তিপ্রাপ্ত সিনেমাতেও কিন্তু অনেক শিল্পী ছিল। এই প্রথম একটা কাজ করেছি যেটাতে শিল্পী কম। সবমিলিয়ে পাঁচ-ছয়জন শিল্পী। অনেকটা সময় কিন্তু আমি আর বাবু ভাই টেনে নিয়ে গেছি। সেই ফিল্মিক ঘরানা থেকে বের হয়ে একটা বাস্তবধর্মী কাজ করতে গিয়ে সত্যি নতুন এক অভিজ্ঞতা হয়েছে। যেটা বেশ চ্যালেঞ্জের ছিল।  ‘খাঁচার ভেতর অচিন পাখি’ নিয়ে তমা এতটাই উচ্ছ্বসিত যে, রাতে ঘুমও হচ্ছে না তার। এই নায়িকা বলেন, সত্যি কথা বলতে আমার মধ্যে এত এক্সাইটমেন্ট কাজ করছে যে, গত কয়েক রাতে ঘুমাতে পারিনি। তমার চাওয়া কাজটা মানুষ দেখুক। তিনি বলেন, যতটুকু আগ্রহ আমরা দর্শকদের মধ্যে দেখতে পাচ্ছি তাতে সন্তুষ্ট এবং খুশি। ভালো-মন্দ যাই হোক দেখে দর্শকরা জানাক এতটুকুই চাই। সিনেমাটির মাধ্যমে আমরা একটা বিশেষ বার্তা পৌঁছে দিতে চাচ্ছি। এটা সবার মধ্যে ছড়িয়ে পড়ুক। সবশেষ তমা আবেগি কণ্ঠে এও বলেন, দর্শকদের যদি পছন্দ হয় তাহলে মনে করবো, কিছুটা হলেও অভিনয় শিখতে পেরেছি। পছন্দ না হলে মনে করবো কিছুই শিখতে পারিনি। কারণ এর থেকে এফোর্ট, পরিশ্রম আমার পক্ষে দেয়া সম্ভব ছিল না।
অবশ্যই দিতে হবে *
অবশ্যই দিতে হবে *
অন্যান্য খবর