× প্রচ্ছদ অনলাইনপ্রথম পাতাশেষের পাতাখেলাবিনোদনএক্সক্লুসিভভারতবিশ্বজমিনবাংলারজমিনদেশ বিদেশশিক্ষাঙ্গনসাক্ষাতকাররকমারিপ্রবাসীদের কথামত-মতান্তরফেসবুক ডায়েরিবই থেকে নেয়া তথ্য প্রযুক্তি শরীর ও মন চলতে ফিরতে ষোলো আনা মন ভালো করা খবরকলকাতা কথকতাখোশ আমদেদ মাহে রমজানস্বাধীনতার সুবর্ণ জয়ন্তীসেরা চিঠিইতিহাস থেকে
ঢাকা, ৯ ডিসেম্বর ২০২১, বৃহস্পতিবার , ২৫ অগ্রহায়ণ ১৪২৮ বঙ্গাব্দ, ৪ জমাদিউল আউয়াল ১৪৪৩ হিঃ

সিলেট-বিয়ানীবাজার সড়কের সংস্কার কাজে ধীরগতি, দুর্ভোগ

বাংলারজমিন

মিলাদ জয়নুল, বিয়ানীবাজার (সিলেট) থেকে
২৩ অক্টোবর ২০২১, শনিবার

সিলেট-চারখাই-বিয়ানীবাজার সড়কের সংস্কার কাজে ধীরগতির কারণে সাধারণ মানুষের দুর্ভোগ বাড়ছে। কবে এই সড়কের সংস্কার কাজ শেষ হবে, তা কেউ বলতে পারছে না। অবশ্য সড়ক ও জনপদ বিভাগের কর্মকর্তারা বলছেন, করোনা-বৃষ্টিসহ অন্যান্য কারণে সংস্কার কাজে অনিচ্ছাকৃত দেরি হচ্ছে।
সিলেট-বিয়ানীবাজার সড়কের গুরুত্বপূর্ণ চারখাই বাজারে সবচেয়ে ধীরগতির সংস্কার কাজ চলমান থাকায় নিয়মিত যানবাহন আটকা পড়ে যানজটেরট সৃষ্টি হচ্ছে। অল্প কয়েকজন শ্রমিক দিয়ে ঢিমেতালে এই সংস্কার কাজ চলায় ভোগান্তি পোহাচ্ছেন এই সড়ক দিয়ে চলাচলকারীরা।
সরজমিন গিয়ে দেখা গেছে, ধীরগতিতে সংস্কার কাজ চলমান থাকায় ঠিকাদারি প্রতিষ্ঠান কর্তৃক সড়কটির চারখাই বাজারের পশ্চিম অংশ থেকে গাছতলা এলাকা পর্যন্ত প্রায় ২ কিলোমিটার পর্যন্ত সংস্কারের জন্য রাস্তায় বালি ফেলে রাখা হয়েছে। আর প্রতিদিন এই সড়ক দিয়ে আসা যাওয়া করা মালবাহী ট্রাকগুলো আটকা পড়ে যান চলাচল বিঘ্নিত হচ্ছে।
স্থানীয়রা জানান, সড়কটি ২ কিলোমিটার সংস্কারে ঠিকাদারি প্রতিষ্ঠান সময় ক্ষেপণ করছে। ফলে প্রায়শই সড়কের বিভিন্ন স্থানে মালবাহী ট্রাকের চাকা আটকা পড়ে যান চলাচল বিঘ্নিত হয়। এলাকাবাসী সড়ক সংস্কার কাজ দ্রুত সময়ের মধ্যে শেষ করার দাবি জানান। অন্যদিকে সৃষ্ট সমস্যা সমাধান এবং সংস্কার কাজ দ্রুত শেষ করতে অনেকেই সংশ্লিষ্টরা কর্মকর্তাদের সঙ্গে যোগাযোগ করেও কোনো ফল পাননি।
উল্টো ঠিকাদারি প্রতিষ্ঠানের খামখেয়ালিপনায় দুর্ভোগে পড়েছে এই সড়ক ব্যবহারকারী হাজার হাজার মানুষ। এ বিষয়ে সড়ক ও জনপদ বিভাগের এসও আতাউর রহমান জানান, দ্রুত কাজ শেষ করতে ঠিকাদারি প্রতিষ্ঠানকে তাগিদ দেয়া হয়েছে। নির্ধারিত সময়ের মধ্যে কাজ শেষ করতে না পারলে বিধিমোতাবেক ব্যবস্থা নেয়া হবে। এক প্রশ্নের জবাবে তিনি জানান, ঠিকাদারি প্রতিষ্ঠানগুলো নানা অজুহাতে দেরি করে।
অবশ্যই দিতে হবে *
অবশ্যই দিতে হবে *
অন্যান্য খবর