× প্রচ্ছদ অনলাইনপ্রথম পাতাশেষের পাতাখেলাবিনোদনএক্সক্লুসিভভারতবিশ্বজমিনবাংলারজমিনদেশ বিদেশশিক্ষাঙ্গনসাক্ষাতকাররকমারিপ্রবাসীদের কথামত-মতান্তরফেসবুক ডায়েরিবই থেকে নেয়া তথ্য প্রযুক্তি শরীর ও মন চলতে ফিরতে ষোলো আনা মন ভালো করা খবরকলকাতা কথকতাখোশ আমদেদ মাহে রমজানস্বাধীনতার সুবর্ণ জয়ন্তীসেরা চিঠিইতিহাস থেকে
ঢাকা, ৫ ডিসেম্বর ২০২১, রবিবার , ২০ অগ্রহায়ণ ১৪২৮ বঙ্গাব্দ, ২৯ রবিউস সানি ১৪৪৩ হিঃ

কুমিল্লায় কোরআন অবমাননার মামলার নথি-আলামত সিআইডিতে

বাংলারজমিন

স্টাফ রিপোর্টার, কুমিল্লা থেকে
২৬ অক্টোবর ২০২১, মঙ্গলবার

দেশব্যাপী বহুল আলোচিত কুমিল্লা নগরীর একটি পূজামণ্ডপে কোরআন অবমাননার ঘটনায় কোতোয়ালি মডেল থানায় দায়ের করা মামলা তদন্তের জন্য নথি মামলার তদন্ত সংস্থা পুলিশের অপরাধ তদন্ত বিভাগ- সিআইডিতে স্থানান্তর করা হয়েছে বলে জানা গেছে। গতকাল কোতোয়ালি থানা থেকে মামলার নথি এবং উদ্ধার হওয়া কোরআন শরীফ ও হনুমানের গদাসহ সংশ্লিষ্ট অন্যান্য আলামত সিআইডির নিকট হস্তান্তর করা হয়। এদিকে, ৭ দিনের পুলিশ রিমান্ডে থাকা ঘটনার অন্যতম আসামি ইকবাল হোসেন ও অপর ৩ আসামিকেও সিআইডি জিজ্ঞাসাবাদ শুরু করেছে বলে একটি সূত্র জানায়। গতকাল সন্ধ্যায় কোতোয়ালি থানার ওসি আনওয়ারুল আজিম জানান, পুলিশ সদর দপ্তরের নির্দেশে মামলার নথিসহ আলামত হস্তান্তর হয়। এদিকে, মণ্ডপে কোরআন শরীফ রাখার বিষয়ে ইকবাল এবং ৯৯৯-এ কল দেয়া ইকরাম পুলিশের নিকট দায় স্বীকার করেছে এবং ইকবালের দেখানো মতে রোববার রাত সাড়ে ১১টার দিকে হনুমানের মুর্তির গদাটি উদ্ধার করা হয়। তবে এ ঘটনার ১৩ দিন অতিবাহিত হলেও এখনো এ ঘটনার নেপথ্যের নায়ক কিংবা কুশীলবদের বিষয়ে কোনো অগ্রগতি আছে কিনা তা পুলিশের কোনো সূত্র থেকে নিশ্চিত করেনি।  গত ১৩ই অক্টোবর নগরীর নানুয়া দীঘির পাড়ের পূজামণ্ডপে এ ঘটনাকে কেন্দ্র করে কুমিল্লাসহ দেশের বিভিন্ন জেলায় সাম্প্রদায়িক সহিংসতা ছড়িয়ে পড়ে। এ ঘটনায় কুমিল্লার কোতোয়ালি মডেল থানায় পাঁচটি, সদর দক্ষিণ মডেল থানায় ২টি এবং দাউদকান্দি ও  দেবিদ্বার থানায় একটি করে মোট ৯টি মামলা হয়। এসব মামলায় শনিবার পর্যন্ত ৫২ জনকে গ্রেপ্তার করে কারাগারে পাঠানো হয়েছে। গত বৃহস্পতিবার রাতে কক্সবাজার থেকে গ্রেপ্তার করার পর শুক্রবার দুপুরে কুমিল্লায় আনা হয়। শনিবার দুপুরে ইকবালসহ ৪ আসামিকে আদালতে নিয়ে ৭ দিনের রিমান্ডে নেয়া হয়।

অবশ্যই দিতে হবে *
অবশ্যই দিতে হবে *
অন্যান্য খবর