× প্রচ্ছদ অনলাইনপ্রথম পাতাশেষের পাতাখেলাবিনোদনএক্সক্লুসিভভারতবিশ্বজমিনবাংলারজমিনদেশ বিদেশশিক্ষাঙ্গনসাক্ষাতকাররকমারিপ্রবাসীদের কথামত-মতান্তরফেসবুক ডায়েরিবই থেকে নেয়া তথ্য প্রযুক্তি শরীর ও মন চলতে ফিরতে ষোলো আনা মন ভালো করা খবরকলকাতা কথকতাখোশ আমদেদ মাহে রমজানস্বাধীনতার সুবর্ণ জয়ন্তীসেরা চিঠিইতিহাস থেকে
ঢাকা, ২৯ নভেম্বর ২০২১, সোমবার , ১৫ অগ্রহায়ণ ১৪২৮ বঙ্গাব্দ, ২৩ রবিউস সানি ১৪৪৩ হিঃ

নরসিংদীর রায়পুরায় আধিপত্য বিস্তার নিয়ে সংঘর্ষ, গুলি ও টেটাবিদ্ধে ২ জন নিহত, আহত অন্তত ৪০ জন

অনলাইন

মোর্শেদ শাহরিয়ার, নরসিংদী থেকে
(১ মাস আগে) অক্টোবর ২৮, ২০২১, বৃহস্পতিবার, ১২:১০ অপরাহ্ন

নরসিংদীর রায়পুরার চরাঞ্চলে আধিপত্য বিস্তারকে কেন্দ্র করে দুই গ্রুপের মধ্যে বিবধমান সংঘর্ষে গুলি ও টেটাবিদ্ধহয়ে ২ জন নিহত হয়। নিহতরা হলো সাদির মিয়া (২২) কাচারীকান্দি গ্রামের মৃত মলফত মিয়ার ছেলে এবং হিরণ মিয়া (৩৫) একই গ্রামর আসাদ মিয়ার ছেলে। আজ বৃহস্পতিবার সকলে পাড়াতলী ইউনিয়নের কাচারীকান্দি গ্রামে এই হতাহতের ঘটনা ঘটে।
এ ঘটনায় গুরুতর আহত হয়েছে আরো অন্তত ৪০ জন আহত হয়। আহতদেরকে রায়পুরা উপজেলা স্বাস্থ্য কমপ্লেক্স, নরসিংদী সদরসহ বিভিন্ন হাসপাতালে ভর্তি করা হয়েছে। আহতদের মধ্যে যাদের নাম জানা গেছে তারা হলেন: আল আমিন (২০), হক মিয়া (৪৮), দানু মিয়া (৬০), নাজমা বেগম (২৪), সামসুন্নাহার (৩৪), নাজির মিয়া (২১), মহারাজ মিয়া (২০), শুক্কুর মিয়া (৩০), রাকিব মিয়া (১৮), রমজান (১৮), মোখলেছ (১৮), জজ মিয়া (১৬), শহিদ মিয়া (৪৫) সহ অন্তত ৪০ জন।
স্থানীয় সূত্রে জানা যায়, একই গ্রামে সাবেক ইউপি সদস্য মৃত ফজলু মিয়ার ছেলে শাহ আলম ওরফে ছোট শাহআলম এর সাথে সাবেক ইউপি সদস্য আব্দুল কাদির মেম্বারের ছেলে বর্তমান ইউপি সদস্য শাহ আলম ওরফে বড় শাহ আলমের দ্বন্ধ চলে আসছে দীর্ঘদিন ধরে। তাদের বিবাধমান দ্বন্ধের জেরে গত রোজার ঈদের পরের দিন উভয় গ্রুপের সংঘর্ষে ছোট শাহ আলম সমর্থক শহিদ মিয়া ও ইয়াসিন মিয়া নামে দুই জন টেটাবিদ্ধ হয়ে প্রাণ হারায়। উক্ত ঘটনার পর বড় শাহ আলমের লোকজন এলাকা ছেড়ে পালিয়ে যায়।
চলমান ইউপি নির্বাচনকে সামনে রেখে এলাকা ছেড়ে পালিয়ে বেড়ানো লোকজন আবার এলাকা প্রবেশের চেষ্টা করতে থাকে । এরই জেরে বৃহস্পতিবার সকালে বড় শাহ আলমের লোকজন দেশী-বিদেশী অস্ত্রশস্ত্র নিয়ে ছোট শাহ আলমের লোকজনের ওপর হামলা চালিয়ে এলাকায় প্রবেশের চেষ্টা করে।
এসময় হামলাকারীদের গুলি ও টেটায় উভয় পক্ষের অন্তত ৪০জন গুরুতর আহত হয়। এর মধ্যে ঘটনাস্থলেই ছোট শাহ আলম সমর্থক হিরন মিয়া গুলিবিদ্ধ হয়ে মারা যায় এবং সাদির মিয়াকে রায়পুরা স্বাস্থ্য কমপ্লেক্সে নিয়ে আসলে কর্তব্যরত ডাক্তার তাকে মৃত ঘোষণা করেন। আহতদের মধ্যে আশংকাজনক অবস্থায় মোখলেছসহ বেশ কয়েকজনকে নরসিংদী সদর হাসপাতালে নিয়ে যাওয়া হয়েছে বলে খবর পাওয়া গেছে।
আহত রাকিব মিয়া জানান, বৃহস্পতিবার সকালে বড় শাহআলমের লোকজন অতর্কিতভাবে আমাদের উপর হামলা চালায়। এসময় তাদের হাতে থাকা টেটা, বল্লম, বন্দুকসহ দেশী-বিদেশী অস্ত্র দিয়ে আঘাত করে।
এ ব্যাপারে রায়পুরা থানার পুলিশ পরিদর্শক (তদন্ত) গৌবিন্দ সরকার বলেন, সংঘর্ষে দুইজন নিহতের সংবাদ পেয়েছি। বর্তমানে পরিস্থিতি শান্ত রয়েছে। পরবর্তী সহিংসতা এড়াতে এলাকায় পর্যাপ্ত পুলিশ মোতায়েন করা হয়েছে।
এ রিপোর্ট লেখা পর্যন্ত এলাকায় উভয় পক্ষের সর্মথকদের মধ্যে চাপা উত্তেজনা বিরাজ করছিল। আইনশৃঙ্খলা পরিস্থিতি শান্ত রাখতে এলাকায় মোতায়েন রয়েছে।

অবশ্যই দিতে হবে *
অবশ্যই দিতে হবে *
অন্যান্য খবর