× প্রচ্ছদ অনলাইনপ্রথম পাতাশেষের পাতাখেলাবিনোদনএক্সক্লুসিভভারতবিশ্বজমিনবাংলারজমিনদেশ বিদেশশিক্ষাঙ্গনসাক্ষাতকাররকমারিপ্রবাসীদের কথামত-মতান্তরফেসবুক ডায়েরিবই থেকে নেয়া তথ্য প্রযুক্তি শরীর ও মন চলতে ফিরতে ষোলো আনা মন ভালো করা খবরকলকাতা কথকতাখোশ আমদেদ মাহে রমজানস্বাধীনতার সুবর্ণ জয়ন্তীসেরা চিঠিইতিহাস থেকে
ঢাকা, ২৮ নভেম্বর ২০২১, রবিবার , ১৪ অগ্রহায়ণ ১৪২৮ বঙ্গাব্দ, ২২ রবিউস সানি ১৪৪৩ হিঃ

বাংলাদেশের আমন্ত্রণ না পাওয়া নিয়ে যা বলছেন বিশ্লেষকরা

প্রথম পাতা

তামান্না মোমিন খান
২৫ নভেম্বর ২০২১, বৃহস্পতিবার
সর্বশেষ আপডেট: ১০:০৭ অপরাহ্ন

যুক্তরাষ্ট্রের প্রেসিডেন্ট জো বাইডেন ডিসেম্বরে অনুষ্ঠেয় ভার্চ্যুয়াল গণতন্ত্র সম্মেলনে ১১০টি দেশকে আমন্ত্রণ জানিয়েছেন। যেখানে আমন্ত্রণ পায়নি বাংলাদেশ। মূলত বাংলাদেশকে কূটনৈতিক চাপে রাখতেই আমন্ত্রণ জানানো হয়নি বলে মনে করেন আন্তর্জাতিক সম্পর্ক বিষয়ক বিশ্লেষকরা। তারা মনে করছেন চীনের সঙ্গে বাংলাদেশের সুসম্পর্ক আমন্ত্রণ না পাওয়ার একটি বড় কারণ। এ বিষয়ে ঢাকা বিশ্ববিদ্যালয়ের আন্তর্জাতিক সম্পর্ক বিভাগের অধ্যাপক ড. ইমতিয়াজ আহমেদ বলেন, রাজনৈতিক উদ্দেশ্যে বাইডেনের গণতন্ত্র সম্মেলনে বাংলাদেশকে আমন্ত্রণ জানানো হয়নি। যেহেতু চীনের সঙ্গে বাংলাদেশের ভালো সম্পর্ক এটাও একটা কারণ হতে পারে। আমন্ত্রণ না পাওয়াটা বাংলাদেশের জন্য আশীর্বাদও হতে পারে। যেখানে আমেরিকার নিজেদের গণতন্ত্রই নড়বড়ে সেখানে তারা অন্যের গণতন্ত্র নিয়ে কি আলোচনা করবে।
মানবজমিনের সঙ্গে আলাপকালে অধ্যাপক ইমতিয়াজ বলেন, আমার মনে হয়ে চীনের বিরুদ্ধে বিভিন্ন দেশকে একাত্ম করতেই সম্মেলন ডেকেছেন বাইডেন। বাংলাদেশ এখানে অংশগ্রহণ না করটাই ভালো। কারণ বাংলাদেশ এখানে অংশ নিয়ে কি-ই বা বলবে। যুক্তরাষ্ট্র কেন বাংলাদেশকে আমন্ত্রণ জানালো না সেটা তারাই ভালো বলতে পারবে। যেখানে ভারত, পাকিস্তান ও ইরাকের মতো দেশ আমন্ত্রণ পেয়েছে। বুঝলাম না কিসের মানদণ্ডে গণতন্ত্র যাচাই করা হয়েছে। হয়তো বাংলাদেশ ছোট দেশ দেখে যুক্তরাষ্ট্র ডাকেনি। আমি মনে করি এ ধরনের গণতন্ত্র সম্মেলন ডাকার আগে যুক্তরাষ্ট্রের নিজের গণতন্ত্রকে ঠিক করা দরকার।  

ঢাকা বিশ্ববিদ্যালয়ের আন্তর্জাতিক সম্পর্ক বিভাগের ড. অধ্যাপক দেলোয়ার হোসেন বলেছেন, যুক্তরাষ্ট্র যে গণতন্ত্র সম্মেলন করতে যাচ্ছে আসলে এটি একটি চীনবিরোধী সম্মেলন। এ ধরনের সম্মেলন করে তারা আলোচিত হওয়ার চেয়ে সমালোচিতই হবে বেশি। বাংলাদেশের সঙ্গে চীনের একটা উষ্ণ সম্পর্ক রয়েছে। বাংলাদেশকে কূটনৈতিক চাপে ফেলতেই যুক্তরাষ্ট্র সম্মেলনে আমন্ত্রণ জানায়নি। এটা তাদের একটি কূটনৈতিক কৌশল। কারণ যুক্তরাষ্ট্র এই সম্মেলনে এমন বহু দেশকে আমন্ত্রণ জানিয়েছে যারা গণতন্ত্রের দিক দিয়ে বাংলাদেশের চেয়ে অনেক পিছিয়ে। এ থেকেই বোঝা যায় এ সম্মেলনে গণতন্ত্র মুখ্য নয়। চীনের বিরুদ্ধে এই দেশগুলোর সঙ্গে কূটনৈতিক যোগাযোগ স্থাপন করাই যুক্তরাষ্ট্রের মূল উদ্দেশ্য। এ সম্মেলনে বাংলাদেশের অংশ নেয়া বা না নেয়ায় কিছু এসে যায় না। এমন যে নয় এটি বাংলাদেশের জন্য খুব গুরুত্ববহ। মার্কিন যুক্তরাষ্ট্র বাংলাদেশের নির্বাচন, গণতন্ত্র নিয়ে বরাবরই প্রশ্ন করে আসছে। অতীতেও তারা বাংলাদেশের গণতন্ত্র নিয়ে বহুবার প্রশ্ন করেছে। কিন্তু যুক্তরাষ্ট্রে নিজেদের গণতন্ত্রই আজ হুমকির মুখে।
ওদিকে বাংলাদেশের পররাষ্ট্রমন্ত্রী ড. এ কে আবদুল মোমেন বিবিসিকে বলেন, এই সম্মেলনে আমন্ত্রণ না পাওয়ার বিষয়টি নিয়ে চিন্তিত নই আমরা। তাছাড়া এবারই প্রথম এই সম্মেলন অনুষ্ঠিত হতে যাচ্ছে। এর প্রথম ধাপে বাংলাদেশকে আমন্ত্রণ জানানো হয়নি। সম্মেলনের পরবর্তী ধাপে বাংলাদেশ আমন্ত্রিত হতে পারে। এ বছরের এপ্রিলে যুক্তরাষ্ট্রের আয়োজনে অনুষ্ঠিত হওয়া জলবায়ু সম্মেলনে বাংলাদেশের আমন্ত্রণ পাওয়ার বিষয়টি তুলে ধরেন পররাষ্ট্রমন্ত্রী। তিনি বলেন, এপ্রিলে যুক্তরাষ্ট্রের প্রেসিডেন্টের আহ্বানে আয়োজিত জলবায়ু সম্মেলনে মাত্র ৪০টির মতো দেশ আমন্ত্রিত ছিল, যার মধ্যে বাংলাদেশও ছিল। সেখানে তো অনেক দেশকে আমন্ত্রণ জানানো হয়নি।

অবশ্যই দিতে হবে *
অবশ্যই দিতে হবে *
পাঠকের মতামত
**মন্তব্য সমূহ পাঠকের একান্ত ব্যক্তিগত। এর জন্য সম্পাদক দায়ী নন।
Foyez Hossaien
২৫ নভেম্বর ২০২১, বৃহস্পতিবার, ৯:৫৮

চীনের সাথে পাকিস্তানের আরো গভীর সম্পর্ক তারপরও পাকিস্তানকে আমন্ত্রণ করা হয়েছে কারণ পাকিস্তানে আর যাই হউক রাতের বেলায় ব্যালট বাক্স ভুয়া ভোটে ভর্তি করা হয় না ,দিনে হয়তো কোথাও চেষ্টা করা হয় ,ভোটে জিতে বিরোধী দলের ক্ষমতায় আসার কিছুটা হলেও সুযোগ আছে ,আরেক জন বলেছে এটা চীন বিরোধী সম্মেলন তাই না যাওয়াতেই ভালো হয়েছে ! আঙ্গুর ফল টক !এই বিশ্লেষকরা হয় চীনপন্থী না হয় টুকে বিশ্ব বিদ্যালয়ের শিক্ষক হয়েছে !

মোতাহার
২৫ নভেম্বর ২০২১, বৃহস্পতিবার, ৯:০১

মন্তব্য লিখে আবার মুছে দিলাম, এই শিক্ষকদের মত আমারো সাহস কম।

ইব্রাহিম
২৫ নভেম্বর ২০২১, বৃহস্পতিবার, ৭:৪১

বাংলাদেশের গণতন্ত্র নাই বাংলাদেশের মানুষ নিজের ভোট নিজে দিতে পারেনা।বাইডেন ভালো করে যানে। বাংলাদেশের গণতন্ত্রকে কবর দিয়ে দিলো হাসিনা

Professor Dr, Mohamm
২৫ নভেম্বর ২০২১, বৃহস্পতিবার, ৮:১৪

এটা সঠিক যে, আমেরিকার নিজেদের গণতন্ত্রই নড়বড়ে অবস্থায় রয়েছে এবং অনেক সময় প্রেসিডেন্ট কে হবেন তার জন্য আদালতের দারস্থ হতে হয় । যাই হোক, গনপ্রজাতন্ত্রী চীনের সঙ্গে গনপ্রজাতন্ত্রী বাংলাদেশের ভালো সম্পর্ক হওয়ার কারন সম্ভবতঃ দুটো দেশই রাজনৈতিক ভাবে সমাজতান্ত্রিক অব কাঠামোর আওতায় আসে । মুলত বাংলাদেশ এবং চীন আমার দৃষ্টে মাক্সবাদি –লেনিনবাদি মতবাদের উপর প্রতিষ্ঠিত এবং এর কোন বাত্যায় ছাড়াই ৫০ বছর পার হয়ে গেছে । অন্য দিকে ভারতের সংবিধানে সমাজতন্ত্র তেমন কোন প্রভাব ফেলতে পারেনি । এমতবস্থায়, আমাদেরকে দাওয়াত দেয়া না দেয়া কোন বড় ব্যাপার নয় বলে আমি বিশ্বাস করি। আমরা চীনের সাথে ভালই আছি । আমাদের অনেকেই প্রজাতন্ত্রী এবং গণপ্রজাতন্ত্রী মাঝে পার্থক্য বুঝতে চেষ্টা করি না । উল্লেখ্য প্রতিবেশী ভারত কিন্তু রিপাবলিক – এর ফেডারেল রাষ্ট্র বাবস্থা দ্বারা পরিচালিত ।ওরা আমাদের কাছে শুধু প্রতিবেশী মাত্র।

harun
২৫ নভেম্বর ২০২১, বৃহস্পতিবার, ৭:২৩

ha ha ha

iftekharul islam
২৫ নভেম্বর ২০২১, বৃহস্পতিবার, ৬:১৪

AI jonnoi Dhaka university ar ai obostha teacher ra nizella porasuna na kore comment koren student ra trader kash theka ki shikbe

omar faruque
২৫ নভেম্বর ২০২১, বৃহস্পতিবার, ৩:২৪

Myopic analysis. Both of the teachers are collaborators of fascist govt.

Jewel
২৫ নভেম্বর ২০২১, বৃহস্পতিবার, ১২:৩৭

চীনের সঙ্গে আমাদের দুধ মাখা সম্পর্ক তাহলে পাকিস্তানের সঙ্গে কি চীনের সাপেনেউলে সম্পর্ক। বোগাস এসালাইসিস। সত্য চেপে যাচ্ছেন অথবা পারেন না বলতে।

Omar Faruk
২৫ নভেম্বর ২০২১, বৃহস্পতিবার, ১:২৮

ফ্যাসিস্ট এর সাথে গণতন্ত্র চর্চা হলো সারাদিন কয়লা ধুয়ে ময়লা তোলা মতোর কাজ। চীনের সাথে সম্পর্কের যে অজুহাত দেয়া হচ্ছে সেটা হাস্যকর। বাংলাদেশের থেকে পাকিস্তানের সাথে চীনের সম্পর্ক অনেক বেশি। আসলেই কি আমাদের দেশে গণতন্ত্র আছে?

Md. Saifullah
২৫ নভেম্বর ২০২১, বৃহস্পতিবার, ১:০৪

চীনের সাথে সম্পর্কের যে অজুহাত দেয়া হচ্ছে সেটা হাস্যকর!

মাকসুদ
২৪ নভেম্বর ২০২১, বুধবার, ১১:৫৬

স্বৈরাচার সাধারণত দুরকমের হয়ে থাকে প্রথমটি যারা কোন রাখঢাক না রেখে ছলচাতুরী না করে সরাসরি স্বৈরতান্ত্রিক পদ্ধতিতে রাষ্ট্র শাসন করে। দ্বিতীয়টি অঘোষিত স্বৈরাচার যারা গণতন্ত্রের লেবাসধারী কিন্তু মননে, চিন্তা, চেতনায় ভয়ংকর পিশাচ। বাংলাদেশ এখন দ্বিতীয়টির অবৈধ দখলে আছে।সুতরাং যৌক্তিক কারণেই আমন্ত্রন বঞ্চিত।এখানে দুই অধ্যাপকের বিশ্লেষণও ছিল নিরপেক্ষতার লেবাসে ভয়ংকর স্বৈরাচারের প্রতি নির্লজ্জ সমর্থন।

Foiz Ahmed Patwary
২৪ নভেম্বর ২০২১, বুধবার, ৯:৫৯

I request to both teachers to read all comments.

sakhawat hossain
২৪ নভেম্বর ২০২১, বুধবার, ৮:৫৯

চীনের সাথে সম্পর্কের যে অজুহাত দেয়া হচ্ছে সেটা হাস্যকর। বাংলাদেশের থেকে পাকিস্তানের সাথে চীনের সম্পর্ক অনেক বেশি। আসলেই কি আমাদের দেশে গণতন্ত্র আছে?

Khandaker Zillur Rah
২৫ নভেম্বর ২০২১, বৃহস্পতিবার, ৯:৪৩

আমাদের দেশে একটা প্রবাদ আছে, বিড়াল সিক্কা ছিড়তে না পারলে বলে , আমি পরের হক খাই না"। ঢাকা বিশ্ববিদ্যালয় এখন গননাতে আসেনা, প্রাছ্যের অক্সফোর্ড এখন বের্ডফোর্ড হয়ে গেছে। দুইজন কৃত্তিমান শিক্ষক নিজেদেরে গা বাঁচানোর জন্য আর কি কি বলবেন,।এ সবের অপেক্ষায় আছি........

Mustafa Kamal
২৪ নভেম্বর ২০২১, বুধবার, ৮:৩২

এই সম্মেলনের প্রতিপাদ্য বিষয় তিনটি,১) গনতন্ত্র২)মানবাধিকার৩) বাক্ স্বাধীনতা। এই তিনটির কোন একটির অস্তিত্ব কি বাংলাদেশে আছে? তাহলে আমন্ত্রন জানাবে কোন যুক্তিতে।

মুরাদ রেজা
২৪ নভেম্বর ২০২১, বুধবার, ৮:০১

এরা কিছুই জানে না। তাহলে পাকিস্থানকে আমন্ত্রণ জানালো কেন।

মোঃ জহিরুল ইসলাম
২৪ নভেম্বর ২০২১, বুধবার, ৭:২৬

বিশেষজ্ঞগণের মতামত পড়ে মনে হলো ওনারা শাক দিয়ে মাছ ঢাকার চেষ্টা করেছেন। চীনের সাথে উষ্ণ সম্পর্ক বিষয়টিকে সামনে এনেছেন। অথচ পাকিস্তানের সাথে চীনের সম্পর্ক বাংলাদেশের চেয়ে অনেক অনেক গুণ গভীর। বিষয়টি এড়িয়ে গিয়েছেন।

আনোয়ার
২৪ নভেম্বর ২০২১, বুধবার, ৬:২০

ফ্যাসিস্ট এর সাথে গণতন্ত্র চর্চা হলো সারাদিন কয়লা ধুয়ে ময়লা তোলা মতোর কাজ।

Yosof
২৪ নভেম্বর ২০২১, বুধবার, ১১:৫০

চীনের সাথে সম্পর্কের কারণেই যদি কোন দেশকে বাদ দিত তাহলে সর্ব প্রথম পাকিস্তান বাদ পড়ত। আমেরিকার গনতন্ত্র নিয়ে যারা প্রশ্ন করেন তাদের কাছে গনতন্ত্র সংজ্ঞা কি আমি জানি না। তবে এ যাবত করোনা থেকে রক্ষা পাওয়ার ক্ষেত্রে যে দেশটি বাংলাদেশকে অন্য সকল দেশ থেকে হাজারগুন বেশী সাহায্য করছে সে দেশটির নাম আমেরিকা।

Ahmed
২৪ নভেম্বর ২০২১, বুধবার, ১১:১৮

আসল কারণ আপনার লিখাতে চেপে গেছেন কিন্তু আমরা সবাই তা জানি।

অন্যান্য খবর