× প্রচ্ছদ অনলাইনপ্রথম পাতাশেষের পাতাখেলাবিনোদনএক্সক্লুসিভভারতবিশ্বজমিনবাংলারজমিনদেশ বিদেশশিক্ষাঙ্গনসাক্ষাতকাররকমারিপ্রবাসীদের কথামত-মতান্তরফেসবুক ডায়েরিবই থেকে নেয়া তথ্য প্রযুক্তি শরীর ও মন চলতে ফিরতে ষোলো আনা মন ভালো করা খবরকলকাতা কথকতাখোশ আমদেদ মাহে রমজানস্বাধীনতার সুবর্ণ জয়ন্তীসেরা চিঠিইতিহাস থেকে
ঢাকা, ২৬ জানুয়ারি ২০২২, বুধবার , ১২ মাঘ ১৪২৮ বঙ্গাব্দ, ২২ জমাদিউস সানি ১৪৪৩ হিঃ

এ বছর সড়ক দুর্ঘটনায় নিহতদের অর্ধেকের বেশিই পথচারী

অনলাইন

স্টাফ রিপোর্টার
(১ মাস আগে) নভেম্বর ২৮, ২০২১, রবিবার, ৪:১৬ অপরাহ্ন

চলতি বছরের জানুয়ারি থেকে ২৫শে নভেম্বর পর্যন্ত রাজধানীতে ১১৪ টি সড়ক দুর্ঘটনায় ১১৯ জন নিহত হয়েছেন। নিহতদের মধ্যে পথচারী ৬২ জন (৫২.১০%)। নিহত অন্যদের মধ্যে রয়েছেন মোটরসাইকেল চালক ও আরোহী ৩৩ জন (২৭.৭৩%) এবং অন্যান্য যানবাহন (বাস, রেকার, প্যাডেল রিকশা, প্যাডেল ভ্যান, অটোভ্যান, ঠ্যালাগাড়ি ইত্যাদি)-এর  যাত্রী ও আরোহী ২৪ জন (২০.১৬%)।

এসব দুর্ঘটনায় ১৭২টি যানবাহন সম্পৃক্ত। ট্রাক-৩৭টি, বাস-৪২টি, মোটরসাইকেল-৩৩টি, কাভার্ডভ্যান-৪টি, পিকআপ-১৫টি, সিটি করপোরেশনের ময়লাবাহী ট্রাক ৪টি, অটোরিকশা-৮টি, লরি-২টি, লেগুনা-৪টি, জীপ-২টি, রিকশা-৬টি, ট্রেন-১টি, রেকার-২টি, প্রাইভেটকার-৭টি, ঠেলাগাড়ি-১টি এবং অটোভ্যান-৪টি।

রবিবার রোড সেফটি ফাউন্ডেশন এক প্রেস বিজ্ঞপ্তিতে এসব তথ্য জানিয়েছে। দুর্ঘটনার কারণ হিসেবে উল্লেখ করা হয়েছেঃ

১. অপরিকল্পিত নগরায়ণ ও অপ্রতুল সড়ক;
২. একই সড়কে অযান্ত্রিক-যান্ত্রিক, স্বল্প ও দ্রুতগতির যানবাহনের চলাচল এবং দুর্বল ট্রাফিক ব্যবস্থাপনা;
৩.সড়ক ব্যবহারকারীদের মধ্যে সচেতনতার অভাব;
৪.যথাস্থানে ফুটওভার ব্রিজ ও আন্ডারপাস না থাকা। থাকলেও সেগুলো ব্যবহার উপযোগী না থাকা এবং ফুটপাত হকারদের দখলে থাকা;
৫. রাজধানীর যাত্রীবাহী বাস টার্গেটভিত্তিক চালানোর ফলে চালক-শ্রমিকরা পথে পথে যাত্রী ওঠানোর জন্য বেপরোয়া প্রতিযোগিতায় অবতীর্ন হয়।
এতে প্রায়শ: দুর্ঘটনা ঘটে;  
৬. শিক্ষাপ্রতিষ্ঠান, হাসপাতালসহ নির্দিষ্ট স্থানে বাস-বে ও বাস স্টপেজ না থাকা;
৭. ঢাকা শহরের পাশ দিয়ে বাইপাস না থাকার ফলে রাত ১০টা থেকে সকাল পর্যন্ত পণ্যবাহী যানবাহন রাজধানীর ভেতরে বেপরোয়াভাবে চলাচল করে। এই সময়টিতে সবচেয়ে বেশি দুর্ঘটনা ঘটে;
৮. রাজধানীতে অধিক পরিমাণে মোটরসাইকেলের চলাচল;
৯. দীর্ঘসময় যানজটে আটকে থাকার পর ট্রাফিক সিগন্যাল ছাড়লে সবধরনের যানবাহন একযোগে বেপরোয়া গতিতে ছোটা;
১০. অসহনীয় যানজটের কারণে সড়ক ব্যবহারকারীদের আচরণে অসহিষ্ণুতা ও অস্থিরতা তৈরি হওয়া;
১১. গণপরিবহন মানসম্মত ও সহজলভ্য না হওয়ার কারণে রিকশার ব্যবহার ব্যাপকহারে বৃদ্ধি পেয়েছে, যা দ্রুতগতির যানবাহন চলাচলকারী সড়কে খুবই ঝুঁকিপূর্ণ;
১২. ফ্লাইওভারগুলোতে যানবাহনের গতি নিয়ন্ত্রণ ও মনিটরিং ব্যবস্থা না থাকা।
অবশ্যই দিতে হবে *
অবশ্যই দিতে হবে *
অন্যান্য খবর