× প্রচ্ছদ অনলাইনপ্রথম পাতাশেষের পাতাখেলাবিনোদনএক্সক্লুসিভভারতবিশ্বজমিনবাংলারজমিনদেশ বিদেশশিক্ষাঙ্গনসাক্ষাতকাররকমারিপ্রবাসীদের কথামত-মতান্তরফেসবুক ডায়েরিবই থেকে নেয়া তথ্য প্রযুক্তি শরীর ও মন চলতে ফিরতে ষোলো আনা মন ভালো করা খবরকলকাতা কথকতাখোশ আমদেদ মাহে রমজানস্বাধীনতার সুবর্ণ জয়ন্তীসেরা চিঠিইতিহাস থেকে
ঢাকা, ২৯ জানুয়ারি ২০২২, শনিবার , ১৫ মাঘ ১৪২৮ বঙ্গাব্দ, ২৫ জমাদিউস সানি ১৪৪৩ হিঃ

বড়লেখায় ব্যালট ছিনিয়ে নৌকায় সিল

বাংলারজমিন

বড়লেখা (মৌলভীবাজার) প্রতিনিধি
২৯ নভেম্বর ২০২১, সোমবার

মৌলভীবাজারের বড়লেখা উপজেলার দক্ষিণ শাহবাজপুর ইউনিয়নের ছোটলেখা সরকারি প্রাথমিক বিদ্যালয় ভোটকেন্দ্রে নৌকার প্রার্থী নাহিদ আহমদ বাবলুর সমর্থকরা জোরপূর্বক প্রিজাইডিং কর্মকর্তার কাছ থেকে  ২০০ ব্যালট পেপার ছিনিয়ে ১৩৪টি ব্যালটে সিল মেরেছে বলে অভিযোগ পাওয়া গেছে। রোববার বেলা আড়াইটায় এই ঘটনা ঘটে। এ সময় নৌকায় সিল মারা ১৩৪টি ব্যালট উদ্ধার করা হয়। এর আগে একই ইউনিয়নের মোহাম্মদনগর সরকারি প্রাথমিক বিদ্যালয়কেন্দ্রে নৌকার প্রার্থীর এজেন্টদের বিরুদ্ধে জোরপূর্বক ভোটারদের কাছ থেকে ব্যালট কেড়ে নিয়ে নৌকা প্রতীকে সিল মারার অভিযোগ ওঠে। রোববার বেলা ১১টায় ওই কেন্দ্রে ভোট দিতে আসা কয়েকজন ভোটার সাংবাদিকদের কাছে এই অভিযোগ করেন। জানা গেছে, ভোটকেন্দ্রের দায়িত্বরত প্রিজাইডিং কর্মকর্তা মাসুদ আহম্মদের কক্ষে ঢুকে  নৌকার প্রার্থীর ৪ জন সমর্থক  জোরপূর্বক ২০০ ব্যালট ছিনিয়ে নেয়। পরে তারা প্রিজাইডিং কর্মকর্তার কক্ষে ১৩৪টি ব্যালটে সিল মারে। খবর পেয়ে অন্য প্রার্থী ও তাদের সমর্থকরা এগিয়ে এলে তারা পালিয়ে যায়।
ছোটলেখা সরকারি প্রাথমিক বিদ্যালয় ভোটকেন্দ্রের দায়িত্বরত প্রিজাইডিং কর্মকর্তা মাসুদ আহম্মদ বলেন, হঠাৎ কক্ষে ঢুকে নৌকার প্রার্থীর সমর্থক পরিচয়ে দিয়ে চারজন ২০০ ব্যালট ছিনিয়ে নিয়ে ১৩৪টি ব্যালটে নৌকা প্রতীকে সিল মারে। তাদের চিনতে পারিনি। এ সময় নৌকায় সিল মারা ১৩৪টি ব্যালট উদ্ধার করা হয়েছে। এগুলো বাতিল করা হয়েছে। অন্যদিকে,  হালিমা বেগম নামে এক  ভোটার বলেন, বেলা ১২টায় ওই  কেন্দ্রে খায়রুননেছা ও রেহানা বেগম নামের দুই নারী ভোটার অভিযোগ করে বলেন, তাদের কাছ থেকে ব্যালট নিয়ে নৌকায় সিল মারার চেষ্টা করা হয়েছে। তবে তাদের প্রতিবাদের কারণে তারা (নৌকার এজেন্টরা) ব্যালট ফিরিয়ে দিয়েছে। তারা জানান, ওই কেন্দ্রে নারীদের কাছ থেকে ব্যালট নিয়ে নৌকায় সিল মারা হচ্ছে। স্বতন্ত্র  চেয়ারম্যান প্রার্থী আব্দুল কুদ্দুস স্বপনের (আনারস) প্রধান এজেন্ট আব্দুল বাছিত শামীম বলেন, কেন্দ্রের ভেতরে কয়েকজন ভোটারের কাছ থেকে ব্যালট নিয়ে নৌকায় সিল মারা হচ্ছে। আমরা অভিযোগ করেও কোনো সমাধান পাইনি। স্বতন্ত্র চেয়ারম্যান প্রার্থী (ঘোড়া) শাহাব উদ্দিন অভিযোগ করে সাংবাদিকদের বলেন, আমার এজেন্টদের বের করে দেয়া হয়েছে। জোর করে নারী ভোটারদের কাছ  থেকে ব্যালট কেড়ে নৌকায় সিল মারা হয়েছে। আমি কারও কাছে কোনো সহায়তা পাইনি। প্রসঙ্গত, তৃতীয় ধাপে ইউপি নির্বাচনে মৌলভীবাজারের বড়লেখা উপজেলার ১০ ইউপিতে রোববার (২৮শে নভেম্বর) সকাল ৮টা  থেকে উপজেলার ১০টি ইউনিয়নে ৯২টি কেন্দ্রে ভোটগ্রহণ হয়। নির্বাচনে উপজেলার ১০ ইউনিয়নে চেয়ারম্যান পদে ৪৪ জন ও সংরক্ষিত নারী সদস্য পদে ৯০ জন ও সাধারণ সদস্য পদে ৩৬১ জন প্রার্থী প্রতিদ্বন্দ্বিতা করেন।
অবশ্যই দিতে হবে *
অবশ্যই দিতে হবে *
অন্যান্য খবর