× প্রচ্ছদ অনলাইনপ্রথম পাতাশেষের পাতাখেলাবিনোদনএক্সক্লুসিভভারতবিশ্বজমিনবাংলারজমিনদেশ বিদেশশিক্ষাঙ্গনসাক্ষাতকাররকমারিপ্রবাসীদের কথামত-মতান্তরফেসবুক ডায়েরিবই থেকে নেয়া তথ্য প্রযুক্তি শরীর ও মন চলতে ফিরতে ষোলো আনা মন ভালো করা খবরকলকাতা কথকতাখোশ আমদেদ মাহে রমজানস্বাধীনতার সুবর্ণ জয়ন্তীসেরা চিঠিইতিহাস থেকে
ঢাকা, ২৭ জানুয়ারি ২০২২, বৃহস্পতিবার , ১৩ মাঘ ১৪২৮ বঙ্গাব্দ, ২৩ জমাদিউস সানি ১৪৪৩ হিঃ

একাই থাকতে চান সানিয়া

বিনোদন

বিনোদন ডেস্ক
১ ডিসেম্বর ২০২১, বুধবার

ব্রেকআপ, হার্ট ব্রেক নিয়ে মুখ খুললেন বলিউড অভিনেত্রী সানিয়া মালহোত্রা। সাধারণত ব্যক্তিগত জীবন নিয়ে কখনো কথা বলতে শোনা যায় না তাকে। কিন্তু সম্প্রতি একটি সাক্ষাৎকারে শেষ ব্রেকআপ নিয়ে নানা কথা বললেন নায়িকা। জানালেন, লকডাউনের ঠিক আগেই চার বছরের সম্পর্ক ভেঙে যায় তার। আর এটা তার জীবনে এক বড় ধাক্কা ছিল। ব্রেকআপের যন্ত্রণা পেরিয়ে নিজেকে সামলে নিতে খানিকটা সময় লেগে গিয়েছিল তার। একইসঙ্গে তিনি জানালেন বর্তমানে এখন সিঙ্গেল আছেন। একেবারেই রেডি টু মিঙ্গল নন।
বরং এই মুহূর্তে নিজের ক্যারিয়ারেই ফোকাস করতে চান তিনি। অকপটে সানিয়া বলেন, বেশকিছু সময় ধরে আমি সিঙ্গেল। আমার ফোকাস সম্পূর্ণ শিফট করে গেছে নিজের ওপর। নিজের মানসিক স্বাস্থ্যের খেয়াল রাখছি এবং নিজের যত্ন নিতে শিখছি। নিজেকে চেনার ও জানার এই সুযোগ পেয়ে আমি সত্যিই খুব খুশি। আমার বয়স ২৯। আমি ধীরে ধীরে নিজেকে চিনতে পারছি। ব্রেকআপের যন্ত্রণা নিয়ে কথা বলতে গিয়ে এ নায়িকা বলেন, সবার জন্যই ব্রেকআপ যন্ত্রণাদায়ক। এরপরই নিজের জন্য ভাবা শুরু করলাম। সাড়ে চার বছরের সম্পর্ক ছিল আমাদের। দিল্লিতে থাকার সময়ে সম্পর্ক শুরু হয়। ব্রেকআপের ঠিক পর পরই লকডাউনের ঘোষণা হয়। তখন আমি মুম্বইতে সম্পূর্ণ একা। সে সময়টা অনেক ভেবেছি। বোঝার চেষ্টা করেছি কেন সম্পর্কটা ভেঙে গেল। তখনই অনুভব করলাম কমিউনিকেশন কতটা গুরুত্বপূর্ণ। আমরা একসঙ্গে হলেও কখনো কোনো সমস্যা নিয়ে আলোচনা করতাম না। দু’জন মানুষের একসঙ্গে আনন্দ করাটা যেমন গুরুত্বপূর্ণ তেমনই সমস্যা নিয়ে আলোচনাটাও জরুরি। ভালোবাসায় সবচেয়ে বড় মিথ কি? নায়িকার উত্তর, নিজেকে ভালোবাসা জরুরি নয়। এটা সবচেয়ে বড় মিথ। বলিউডে সব সময়েই দেখা যায় একজন আর একজনের পেছনে দৌড়াচ্ছে ভালোবাসার খোঁজে। আমরা ভুলেই যাই ভালোবাসা আসলে আমাদের মনেই রয়েছে। তাকে কোথাও খুঁজতে যাওয়ার প্রয়োজন পড়ে না।
অবশ্যই দিতে হবে *
অবশ্যই দিতে হবে *
অন্যান্য খবর