× প্রচ্ছদ অনলাইনপ্রথম পাতাশেষের পাতাখেলাবিনোদনএক্সক্লুসিভভারতবিশ্বজমিনবাংলারজমিনদেশ বিদেশশিক্ষাঙ্গনসাক্ষাতকাররকমারিপ্রবাসীদের কথামত-মতান্তরফেসবুক ডায়েরিবই থেকে নেয়া তথ্য প্রযুক্তি শরীর ও মন চলতে ফিরতে ষোলো আনা মন ভালো করা খবরকলকাতা কথকতাখোশ আমদেদ মাহে রমজানস্বাধীনতার সুবর্ণ জয়ন্তীসেরা চিঠিইতিহাস থেকে
ঢাকা, ২৭ জানুয়ারি ২০২২, বৃহস্পতিবার , ১৩ মাঘ ১৪২৮ বঙ্গাব্দ, ২৩ জমাদিউস সানি ১৪৪৩ হিঃ

৩২ বছর পর বৃটিশ ভেড়ার মাংসের স্বাদ পাচ্ছেন আমেরিকানরা

অনলাইন

তারিক চয়ন
(১ মাস আগে) ডিসেম্বর ৩, ২০২১, শুক্রবার, ১০:৪৩ অপরাহ্ন

যুক্তরাষ্ট্রের মানুষের খাবার প্লেটে ফের স্থান পাচ্ছে যুক্তরাজ্য থেকে আমদানি করা ভেড়ার মাংস। ৩২ বছর পর যুক্তরাষ্ট্রে আবারো ভেড়ার মাংস রপ্তানির অনুমতি পেয়েছে বৃটেন।

বোভাইন স্পঞ্জিফর্ম এনসেফেলোপ্যাথি (বিএসই) বা ম্যাড কাউ রোগের সংক্রমণের জেরে ১৯৮৯ সালে যুক্তরাজ্য থেকে ভেড়ার মাংস আমদানি নিষিদ্ধ করেছিল যুক্তরাষ্ট্র। একই কারণে ১৯৯৬ সালে গরুর মাংস আমদানিতেও দেয়া হয়েছিল নিষেধাজ্ঞা। গত বছর থেকে যুক্তরাষ্ট্রের বাজারে বৃটিশ গরুর মাংসের প্রবেশাধিকার মিললেও ভেড়ার মাংসের ক্ষেত্রে অনুমতি মিলছিল না।

এবার সে দরজা খুলে গেছে বলে খবর দিয়েছে যুক্তরাষ্ট্রের অ্যানিমেল অ্যান্ড প্ল্যান্ট হেলথ ইন্সপেকশন সার্ভিস (এপিএইচআইএস)। যুক্তরাষ্ট্রের কৃষি বিভাগের ওয়েবসাইটে এ তথ্য নিশ্চিত করা হয়েছে।

অবশ্য গেলো সেপ্টেম্বরেই যুক্তরাষ্ট্র সফররত বৃটিশ প্রধানমন্ত্রী বরিস জনসন ঘোষণা করেছিলেন যে, বৃটিশ ভেড়ার মাংস আমদানির ওপর থেকে কয়েক দশকের পুরনো নিষেধাজ্ঞা তুলে নিচ্ছে যুক্তরাষ্ট্র।
তখন তিনি নিষেধাজ্ঞাটি "অযৌক্তিক" বলেও মন্তব্য করেছিলেন।

যাই হোক, যুক্তরাষ্ট্রের বাজারে ফের ভেড়ার মাংস রপ্তানি করতে পারার সুযোগে বেজায় খুশি বৃটিশ পররাষ্ট্রমন্ত্রী লিজ ট্রাসও। শুক্রবার এক টুইটবার্তায় যুক্তরাষ্ট্রকে বিশ্বের দ্বিতীয় বৃহৎ ভেড়ার মাংসের আমদানিকারক উল্লেখ করে লিজ আশা প্রকাশ করেছেন, উক্ত নিষেধাজ্ঞা তুলে দেওয়ার ফলে এখন যুক্তরাজ্যের গ্রামীণ সম্প্রদায়ে চাকরি ও জীবিকার নতুন পথ উন্মোচিত হবে।
অবশ্যই দিতে হবে *
অবশ্যই দিতে হবে *
পাঠকের মতামত
**মন্তব্য সমূহ পাঠকের একান্ত ব্যক্তিগত। এর জন্য সম্পাদক দায়ী নন।
নাহিদ জামাল
৪ ডিসেম্বর ২০২১, শনিবার, ৯:৫১

নিরীহ জীবনযাপনই সবচেয়ে সুন্দর। তার নিরীহ জীবন সন্তুষ্ট হলে ঈশ্বর সন্তুষ্ট হন। আমরা যদি নিরীহ জীবন নিরাপদ করতে না পারি তবে আমরা তাদের জন্য স্বাভাবিক মৃত্যু নিশ্চিত করব।

অন্যান্য খবর