× প্রচ্ছদ অনলাইনপ্রথম পাতাশেষের পাতাখেলাবিনোদনএক্সক্লুসিভভারতবিশ্বজমিনবাংলারজমিনদেশ বিদেশশিক্ষাঙ্গনসাক্ষাতকাররকমারিপ্রবাসীদের কথামত-মতান্তরফেসবুক ডায়েরিবই থেকে নেয়া তথ্য প্রযুক্তি শরীর ও মন চলতে ফিরতে ষোলো আনা মন ভালো করা খবরকলকাতা কথকতাখোশ আমদেদ মাহে রমজানস্বাধীনতার সুবর্ণ জয়ন্তীসেরা চিঠিইতিহাস থেকে
ঢাকা, ২৯ জানুয়ারি ২০২২, শনিবার , ১৫ মাঘ ১৪২৮ বঙ্গাব্দ, ২৫ জমাদিউস সানি ১৪৪৩ হিঃ

ঢাকা টেস্ট /তৃতীয় সেশনে গড়ালো না এক বলও

খেলা

স্পোর্টস ডেস্ক
৪ ডিসেম্বর ২০২১, শনিবার

৫৭ ওভার শেষে ২ উইকেট হারিয়ে ১৬১ রান নিয়ে বিরতিতে গিয়েছিল পাকিস্তান। আলোকস্বল্পতার কারণে তৃতীয় সেশনে গড়ায়নি এক বলও। বিকাল ৪:০৫ মিনিটে বেল তুলে নেন আম্পায়ার। আনুষ্ঠানিকভাবে শেষ হয় প্রথম দিনের খেলা। ৯৯ বলে ৬০ রান নিয়ে ক্রিজে আছেন বাবর আজম। ৩৬ রান নিয়ে আগামীকাল তার সঙ্গে নামবেন আজহার আলী।

বাবরের হাফসেঞ্চুরি

বাংলাদেশের বিপক্ষে প্রথম টেস্টের দুই ইনিংসে নিষ্প্রভ ছিলেন পাকিস্তান অধিনায়ক বাবর আজম। প্রথম ইনিংসে ১০ এবং দ্বিতীয় ইনিংসে করেন ১৩ রান। ঢাকা টেস্টে এবার জ্বলে উঠলেন বাবর।
দৃঢ় ব্যাটিংয়ে তুলে নিলেন ক্যারিয়ারের ১৮তম হাফসেঞ্চুরি।
৫২ ওভার শেষে ২ উইকেট হারিয়ে পাকিস্তানের সংগ্রহ ১৪৮ রান। ৮৪ বলে ৫৪ রান নিয়ে বাবর অপরাজিত রয়েছেন। আজহারী আলী ৯৭ বলে ২৯ রান নিয়ে সঙ্গ দিচ্ছেন অধিনায়ককে।

বৃষ্টি শেষে খেলা শুরু

দ্বিতীয় সেশনে ১৩ ওভার খেলা শেষে হানা দেয় বৃষ্টি।  বৃষ্টির কারণে ক্রিজ কাভার দিয়ে ঢেকে দেয়া হয়। ড্রেসিংরুমে ফিরে যায় দুই দলের ক্রিকেটাররা। বৃষ্টি শেষে ফের শুরু হয়েছে খেলা। ৪৭ ওভার শেষে ২ উইকেট হারিয়ে পাকিস্তানের সংগ্রহ ১৩৪ রান।


ইনিংস বড় করছেন বাবর-আজহার


প্রথম সেশনের ব্যাটিংয়ে সফলই বলা যেতো পাকিস্তানি ব্যাটারদের। দারুণ শুরু করলেও তাইজুল ইসলামে ঘূর্ণিতে উইকেট হারায় দুই ওপেনার আব্দুল্লাহ শফিক ও আবিদ আলী। দুজনই হয়েছেন বোল্ড। ধাক্কা সামলে ইনিংস বড় করছেন বাবর আজম ও আজহার আলী। দুই ব্যাটার ৪৪ ওভার শেষে গড়েছেন ৫৩ রানের জুটি। তার মধ্যে ৫৭ বলে ৩৮ করে অপরাজিত রয়েছেন অধিনায়ক বাবর আজম। ৭৬ বলে আজহার আলীর সংগ্রহ ২০* রান।
৪৪ ওভার শেষে ২ উইকেট হারিয়ে পাকিস্তানের সংগ্রহ ১২৩ রান।

প্রথম সেশনে পাকিস্তানের সংগ্রহ ৭৮/২


চট্টগ্রাম টেস্টের প্রথম ইনিংসে দুর্দান্ত ছিলেন পাকিস্তানের আবিদ আলী। করেছিলেন ১৩৩ রান। ঢাকা টেস্টেও সাবধানী শুরু করেছিলেন এই ওপেনার ব্যাটার। দেখেশুনে এগিয়ে যাচ্ছিলেন হাফসেঞ্চুরির দিকে। তবে আবিদকে ৩৯ রানে আটকে দিলেন তাইজুল ইসলাম, করলেন বোল্ড। ফেরার আগে ৮১টি বল খেলেছেন আবিদ, হাঁকিয়েছেন ৬টি চার। লাঞ্চ বিরতিতে যাওয়ার আগে পাকিস্তানের সংগ্রহ ৩১ ওভার শেষে ২ উইকেট হারিয়ে ৭৮ রান।
ক্রিজে রয়েছেন আজহার আলী (৬*) ও অধিনায়ক বাবর আজম (৮*)।

আব্দুল্লাহ শফিককে ফেরালেন তাইজুল

দ্বিতীয় টেস্টে ব্যাটিংয়ে নেমে দারুণ শুরু করে পাকিস্তানের ওপেনাররা। ওপেনিং জুটিতে আব্দুল্লাহ শফিক এবং আবিদ আলী মিলে গড়েন ৫৯ রানের পার্টনারশিপ। আর শফিককে ফিরিয়ে জুটিটি ভাঙেন তাইজুল ইসলাম।
১৮ ওভারের তৃতীয় বলে তাইজুলের বল খেলতে গিয়ে বোল্ড আউট হন আব্দুল্লাহ শফিক। ক্রিজ ছাড়ার আগে পাকিস্তানি ওপেনারের সংগ্রহ ২৫ রান। ৫০ বলের ইনিংসটিতে ২টি চার ও ১টি ছক্কা হাঁকান তিনি।
২২.৪ ওভার শেষে পাকিস্তানের সংগ্রহ ১ উইকেট হারিয়ে ৭০ রান। ৩৯ রানে আবিদ আলী ক্রিজে রয়েছেন, আজহার আলী ৬ রান নিয়ে অপরাজিত।

পাকিস্তানি ওপেনারদের সুন্দর শুরু 

চট্টগ্রাম টেস্টে নিজেদের প্রথম ইনিংসে দুর্দান্ত শুরু করে পাকিস্তান। ওপেনিং জুটিতে ১৪৬ রান সংগ্রহ করে সফরকারীরা। দ্বিতীয় টেস্টেও ভালো শুরুর আভাস দিচ্ছে ওপেনিং জুটি আব্দুল্লাহ শফিক ও আবিদ আলী। ১২ ওভার শেষে বিনা উইকেটে পাকিস্তানের সংগ্রহ ৪৬ রান।
প্রথম ম্যাচের প্রথম ইনিংসে সেঞ্চুরি করা আবিদ আলী ৪৫ বলে ৩২ রান নিয়ে অপরাজিত রয়েছেন। আর চট্টগ্রামে ফিফটি করা আব্দুল্লাহ শফিকের এখন পর্যন্ত সংগ্রহ ২৭ বলে ১৪ রান।

টসে হেরে ফিল্ডিংয়ে বাংলাদেশ, মাহমুদুল জয়ের অভিষেক 

দ্বিতীয় ও সর্বশেষ টেস্টে মুখোমুখি হয়েছে বাংলাদেশ ও পাকিস্তান। মিরপুর শেরে বাংলা ক্রিকেট স্টেডিয়ামে টসে জিতে টাইগারদের ফিল্ডিংয়ে আমন্ত্রণ জানিয়েছেন সফরকারী দলের অধিনায়ক বাবর আজম।
ঢাকা টেস্টে নিজেদের একাদশে তিন পরিবর্তন আনলো বাংলাদেশ দল। যেখানে অভিষেক হয়েছে তরুণ টপঅর্ডার ব্যাটার মাহমুদুল হাসান জয়ের। তিনি খেলবেন সাদমান ইসলামের উদ্বোধনী সঙ্গী হিসেবে।

জয়ের অভিষেক ছাড়াও দলে ফিরেছেন সাকিব আল হাসান ও সৈয়দ খালেদ আহমেদ। এ তিনজনকে জায়গা করে দিতে বাইরে রাখা হয়েছে আগের ম্যাচ খেলা সাইফ হাসান, ইয়াসির আলি রাব্বি ও আবু জায়েদ রাহিকে।

অন্যদিকে অপরিবর্তিত একাদশ নিয়েই খেলতে নেমেছে পাকিস্তান। 

বাংলাদেশ একাদশ
সাদমান ইসলাম, মাহমুদুল হাসান জয়, নাজমুল হোসেন শান্ত, মুমিনুল হক (অধিনায়ক), মুশফিকুর রহীম, সাকিব আল হাসান, লিটন দাস (উইকেটরক্ষক), মেহেদী হাসান মিরাজ, তাইজুল ইসলাম, সৈয়দ খালেদ আহমেদ ও এবাদত হোসেন।

পাকিস্তান একাদশ
আবদুল্লাহ শফিক, আবিদ আলি, আজহার আলি, বাবর আজম (অধিনায়ক), ফাওয়াদ আলম, মোহাম্মদ রিজওয়ান (উইকেটরক্ষক), ফাহিম আশরাফ, নোমান আলী, হাসান আলী, শাহিন শাহ আফ্রিদি ও সাজিদ খান।
অবশ্যই দিতে হবে *
অবশ্যই দিতে হবে *
অন্যান্য খবর