× প্রচ্ছদ অনলাইনপ্রথম পাতাশেষের পাতাখেলাবিনোদনএক্সক্লুসিভভারতবিশ্বজমিনবাংলারজমিনদেশ বিদেশশিক্ষাঙ্গনসাক্ষাতকাররকমারিপ্রবাসীদের কথামত-মতান্তরফেসবুক ডায়েরিবই থেকে নেয়া তথ্য প্রযুক্তি শরীর ও মন চলতে ফিরতে ষোলো আনা মন ভালো করা খবরকলকাতা কথকতাখোশ আমদেদ মাহে রমজানস্বাধীনতার সুবর্ণ জয়ন্তীসেরা চিঠিইতিহাস থেকে
ঢাকা, ২৯ জানুয়ারি ২০২২, শনিবার , ১৫ মাঘ ১৪২৮ বঙ্গাব্দ, ২৫ জমাদিউস সানি ১৪৪৩ হিঃ

সংবাদ সম্মেলনে অভিযোগ / কুলাউড়ায় নবনির্বাচিত ইউপি চেয়ারম্যানের ইন্ধনে সীমানা প্রাচীর ভাঙচুর

বাংলারজমিন

স্টাফ রিপোর্টার, মৌলভীবাজার থেকে
৫ ডিসেম্বর ২০২১, রবিবার

মৌলভীবাজারের কুলাউড়ার হাজীপুর ইউনিয়নে নবনির্বাচিত চেয়ারম্যান ওয়াদুদ বক্সের ইন্ধনে স্থানীয় এক ব্যবসায়ীর জায়গার ওপর নির্মাণাধীন সীমানা প্রাচীর ভেঙে ফেলার অভিযোগ উঠেছে। এ নিয়ে উভয় পক্ষের মধ্যে উত্তেজনা বিরাজ করছে। কুলাউড়া থানায় এ ব্যাপারে একটি লিখিত অভিযোগ দিয়েছেন হাজীপুর ইউনিয়নের পাইকপাড়া গ্রামের বাসিন্দা ভুক্তভোগী মাজহারুল আলম। এ ঘটনায় গতকাল দুপুরে কুলাউড়ায় সংবাদ সম্মেলন করে ন্যায়বিচার ও দোষীদের বিরুদ্ধে আইনি ব্যবস্থা গ্রহণের দাবি জানান ভুক্তভোগী মাজহারুল আলম।
সংবাদ সম্মেলনে লিখিত বক্তব্যে মাজহারুল অভিযোগ করে গণমাধ্যমকর্মীদের জানান, প্রায় একমাস পূর্বে উপজেলার হাজীপুরের রনচাপ মৌজার জে.এল নং ৮৮, খতিয়ান নং ৬২ এবং ৭৩০ ও ৭৭৫ নং দাগের ৪৫ শতক জায়গার চারপাশে সীমানা প্রাচীর নির্মাণ শুরু করেন। সম্প্রতি অনুষ্ঠিত ইউপি নির্বাচনের আগে ওই ইউনিয়নের নবনির্বাচিত চেয়ারম্যান ও ইউপি আওয়ামী লীগের সাধারণ সম্পাদক ওয়াদুদ বক্সের ভাই ছালিক বক্স ২ লাখ টাকা চাঁদা দাবি করেন। চাঁদা না দেয়ায় নির্বাচনের তিনদিনের মাথায় গত বৃহস্পতিবার দুপুরে ওয়াদুদ বক্সের ইন্ধনে মেম্বার পদপ্রার্থী জাহাঙ্গীর হোসেন নামে স্থানীয় এক বাসিন্দা সীমানা প্রাচীরের পিলার ভেঙে ফেলেন। পরদিন শুক্রবার আবারো ওয়াদুদ বক্সের ভাই ছালিক বক্স দেশীয় অস্ত্র ও লোকজন নিয়ে ঘটনাস্থলে গিয়ে নির্মাণাধীন সীমানা প্রাচীর ভাঙচুর করেন।
এতে প্রায় ৫ লাখ টাকার ক্ষতি হয়। ভাঙচুর শেষে ছালিক বক্স মুঠোফোনে মাজহারুলকে এ বিষয়ে কোনো আইনি ব্যবস্থা গ্রহণের চেষ্টা করলে প্রাণনাশের হুমকি দেন। থানা পুলিশ ঘটনাস্থল সরজমিন পরিদর্শন করেন এবং পরিস্থিতি শান্ত করেন। এ ঘটনায় গতকাল ভুক্তভোগী মাজহারুল আলম হুকুমদাতা হিসেবে ওয়াদুদ বক্স, ছালিক বক্সকে প্রধান আসামি, জাহাঙ্গীর হোসেন, সামছুল হক, লিয়াকত আলী, রইছ আলী, মখন মিয়া, সিয়াম মিয়াকে অভিযুক্ত করে থানায় একটি অভিযোগ দায়ের করেন। অভিযোগের বিষয়ে জানতে চাইলে হাজীপুরের নবনির্বাচিত চেয়ারম্যান ওয়াদুদ বক্স মুঠোফোনে বলেন, আমার বিরুদ্ধে আনীত অভিযোগ সত্য নয়। রাস্তা নিয়ে স্থানীয় কয়েকটি গ্রামের বাসিন্দাদের সঙ্গে মাজহারুল আলমের জায়গার সীমানা প্রাচীর নির্মাণ নিয়ে বিরোধ ছিল। এলাকার লোকজনের বাধা না মেনে সীমানা প্রাচীর নির্মাণ করায় এলাকার লোকজনই উত্তেজিত হয়ে সীমানা প্রাচীর ভাঙচুর করেছে বলে তিনি দাবি করেন। এ বিষয়ে কুলাউড়া থানার পরিদর্শক (তদন্ত) আমিনুল ইসলাম জানান, হাজীপুরে রাস্তার ওপর সীমানা প্রাচীর নির্মাণ নিয়ে স্থানীয় দুই পক্ষের বিরোধ চলছে। শুক্রবার সীমানা প্রাচীর ভাঙচুরের ঘটনার খবর পেয়ে পুলিশ ঘটনাস্থলে গিয়েছে। দুই পক্ষের বিষয়টি তদন্ত করে প্রয়োজনীয় ব্যবস্থা গ্রহণ করা হবে।
অবশ্যই দিতে হবে *
অবশ্যই দিতে হবে *
অন্যান্য খবর