× প্রচ্ছদ অনলাইনপ্রথম পাতাশেষের পাতাখেলাবিনোদনএক্সক্লুসিভভারতবিশ্বজমিনবাংলারজমিনদেশ বিদেশশিক্ষাঙ্গনসাক্ষাতকাররকমারিপ্রবাসীদের কথামত-মতান্তরফেসবুক ডায়েরিবই থেকে নেয়া তথ্য প্রযুক্তি শরীর ও মন চলতে ফিরতে ষোলো আনা মন ভালো করা খবরকলকাতা কথকতাখোশ আমদেদ মাহে রমজানস্বাধীনতার সুবর্ণ জয়ন্তীসেরা চিঠিইতিহাস থেকে
ঢাকা, ২৫ জানুয়ারি ২০২২, মঙ্গলবার , ১১ মাঘ ১৪২৮ বঙ্গাব্দ, ২১ জমাদিউস সানি ১৪৪৩ হিঃ

মুরাদের অশ্লীল অডিও-ভিডিও সরানোর নির্দেশ

শেষের পাতা

স্টাফ রিপোর্টার
৮ ডিসেম্বর ২০২১, বুধবার

পদত্যাগকারী তথ্য ও সমপ্রচার প্রতিমন্ত্রী এবং আওয়ামী লীগের জামালপুর জেলা কমিটি  থেকে বহিষ্কৃত ডা. মুরাদ হাসানের অশ্লীল অডিও-ভিডিও সামাজিক যোগাযোগ মাধ্যম ফেসবুকসহ সব প্ল্যাটফরম থেকে সরাতে বাংলাদেশ টেলিযোগাযোগ রেগুলেটরি কমিশন- বিটিআরসি’র চেয়ারম্যানকে নির্দেশ দিয়েছেন হাইকোর্ট। মঙ্গলবার বিচারপতি এম ইনায়েতুর রহিম ও বিচারপতি মো. মোস্তাফিজুর রহমানের হাইকোর্ট বেঞ্চ মৌখিক এ আদেশ দেন। এ বিষয়ে বুধবার আদালতকে অগ্রগতি জানাতে রাষ্ট্রপক্ষকে বলা হয়েছে।
এর আগে ভিডিওর প্রসঙ্গ আদালতে তুলে ধরে সেগুলো সরানোর নির্দেশনা চান সুপ্রিম কোর্টের আইনজীবী সৈয়দ সায়েদুল হক। পরে সায়েদুল হক বলেন, সামাজিক যোগাযোগমাধ্যমে থাকা মুরাদ হাসানের ওই অশ্লীল ও কুরুচিপূর্ণ বক্তব্যের অডিও-ভিডিও বাচ্চারা শুনলে বা দেখলে তাদের মনে বিরূপ প্রভাব পড়বে। সাধারণ মানুষের মধ্যে একধরনের মানসিক অবক্ষয় দেখা দেবে। যে কারণে ভাইরাল হওয়া অডিও-ভিডিও সামাজিক যোগাযোগমাধ্যম থেকে সরানো প্রয়োজন। পরে আদালত সামাজিক যোগাযোগমাধ্যমে থাকা মুরাদ হাসানের অশ্নীল অডিও-ভিডিও সরাতে ব্যবস্থা নিতে বলেছেন।
কী ব্যবস্থা নেয়া হয়েছে, তা বুধবার রাষ্ট্রপক্ষকে জানাতে বলা হয়েছে।
২০১৯ সালের মে মাসে স্বাস্থ্য প্রতিমন্ত্রীর দায়িত্ব থেকে সরিয়ে মুরাদ হাসানকে তথ্য প্রতিমন্ত্রীর দায়িত্ব দেয়া হয়েছিল। মুরাদ হাসান জামালপুর-৪ (সরিষাবাড়ী উপজেলা) আসনের সংসদ সদস্য। তার বাবা প্রয়াত মতিউর রহমান তালুকদার জামালপুর জেলা আওয়ামী লীগের সভাপতি ছিলেন। বিএনপি’র চেয়ারপারসন খালেদা জিয়ার নাতনিকে নিয়ে প্রতিমন্ত্রীর করা অশ্লীল মন্তব্যকে ঘিরে কয়েকদিন ধরেই সামাজিক যোগাযোগমাধ্যমে তীব্র সমালোচনা হচ্ছিল। এর মধ্যেই  সোমবার ফেসবুকসহ বিভিন্ন যোগাযোগমাধ্যমে প্রতিমন্ত্রীর ফোনালাপের একটি অডিও ছড়িয়ে পড়ে। যেখানে একজন চিত্রনায়িকার সঙ্গে কথা বলার সময় তিনি নোংরা ও অশ্লীল ভাষা ব্যবহার করেন। একই সঙ্গে তাকে হুমকিও দেন।
অবশ্যই দিতে হবে *
অবশ্যই দিতে হবে *
পাঠকের মতামত
**মন্তব্য সমূহ পাঠকের একান্ত ব্যক্তিগত। এর জন্য সম্পাদক দায়ী নন।
Mustafa Ahsan
৮ ডিসেম্বর ২০২১, বুধবার, ২:১৩

ভালো উদ্যোগ -এই জনোয়ারের ভিডিওতে যা আছে তা এক কথায় Tocsin material এবং তা মানুষের Mental health hazard এর কারন হয়ে দাড়িয়েছে। কয়েকজন ভদ্রলোক বলেছেন ওর ভিডিও শুনার পর তারা রাতের ডিনার করতে পারেননি ক্ষুদা মন্দায় ভুগেছেন কিছু খেতে গেলে বমির উদ্দেগ হয়েছে।মুরাদের গ্রেফতার ও বিচার চাই।আজ বিরোধীদলের কেউ এই আচরন করলে তাকে চৌদ্দ শিকের ভিতর থাকতে হতো সে রাস্ট্রকে একটি Fail state এ পরিনত করেছে।

অন্যান্য খবর