× প্রচ্ছদ অনলাইনপ্রথম পাতাশেষের পাতাখেলাবিনোদনএক্সক্লুসিভভারতবিশ্বজমিনবাংলারজমিনদেশ বিদেশশিক্ষাঙ্গনসাক্ষাতকাররকমারিপ্রবাসীদের কথামত-মতান্তরফেসবুক ডায়েরিবই থেকে নেয়া তথ্য প্রযুক্তি শরীর ও মন চলতে ফিরতে ষোলো আনা মন ভালো করা খবরকলকাতা কথকতাখোশ আমদেদ মাহে রমজানস্বাধীনতার সুবর্ণ জয়ন্তীসেরা চিঠিইতিহাস থেকে
ঢাকা, ২২ জানুয়ারি ২০২২, শনিবার , ৮ মাঘ ১৪২৮ বঙ্গাব্দ, ১৮ জমাদিউস সানি ১৪৪৩ হিঃ

সাংবাদিক খাসোগি হত্যায় ফ্রান্সে গ্রেপ্তার এক সৌদি নাগরিক

বিশ্বজমিন

মানবজমিন ডেস্ক
(১ মাস আগে) ডিসেম্বর ৮, ২০২১, বুধবার, ১১:৫৭ পূর্বাহ্ন

বহুল আলোচিত সৌদি আরবের ভিন্ন মতাবলম্বী সাংবাদিক জামাল খাসোগিকে হত্যায় জড়িত থাকার সন্দেহে ফ্রান্সে গ্রেপ্তার করা হয়েছে এক সৌদি নাগরিককে। পুলিশের সূত্রের উদ্ধৃতি দিয়ে অনলাইন বিবিসি বলছে, মঙ্গলবার প্যারিসের চার্লস ডি গুলে বিমানবন্দরে গ্রেপ্তার করা ওই ব্যক্তির নাম খালেদ আইদ আলোতাইবি। ধারণা করা হচ্ছে, তুরস্কের ইস্তাম্বুলে অবস্থিত সৌদি আরবের কনস্যুলেটের ভিতরে ২০১৮ সালের অক্টোবরে সাংবাদিক জামাল খাসোগিকে হত্যায় অংশ নেয় ২৬ সৌদি নাগরিক। তাদের একজন এই ব্যক্তি। পরে সৌদি এক কর্মকর্তা বলেছেন, ওই ব্যক্তিকে ভুলভাবে শনাক্ত করে গ্রেপ্তার করা হয়েছে। ওই হত্যাকা-ে যারা জড়িত তাদেরকে সৌদি আরবে অভিযুক্ত করা হয়েছে। আরটিএল রেডিও বলেছে, ৩৩ বছর বয়সী আলোতাইবি সৌদি আরবের একজন সাবেক রাজকীয় প্রহরী। তিনি নিজের নাম ব্যবহার করেই সফর করছিলেন।
তাকে বিচারবিভাগীয় তত্ত্বাবধানে আটক রাখা হয়েছে।

সৌদি আরব বলেছে, ওয়াশিংটন পোস্টের প্রয়াত সাংবাদিক জামাল খাসোগিকে একজন এজেন্টের দুর্বৃত্তায়ন অপারেশনে হত্যা করা হয়েছে। তাদেরকে পাঠানো হয়েছিল তাকে ধরে সৌদি আরবে ফিরিয়ে নিতে। কিন্তু তুরস্কের কর্মকর্তাদের অভিযোগ, এসব এজেন্ট হত্যাকা- পরিচালনা করেছে সৌদি আরব সরকারের সর্বোচ্চ পর্যায়ের নির্দেশে। সাংবাদিক খাসোগিকে হত্যাকা-ে বিশ্বজুড়ে তোলপাড় সৃষ্টি হয়। এতে সৌদি আরবের ক্রাউন প্রিন্স মোহাম্মদ বিন সালমানের ভাবমূর্তি ক্ষুন্ন হয়। হত্যার সঙ্গে জড়িত থাকার অভিযোগ প্রত্যাখ্যান করেন তিনি।
এ হত্যাকা-ে জড়িত থাকার অভিযোগে ২০১৯ সালে অজ্ঞাত ৮ ব্যক্তিকে অভিযুক্ত করে সৌদি আরবের আদালত। হত্যায় সরাসরি জড়িত থাকায় তার মধ্যে ৫ জনকে দোষী সাব্যস্ত করা হয়। দেয়া হয় মৃত্যুদ-। কিন্তু পরে সেই শাস্তি কমিয়ে ২০ বছরের জেল দেয়া হয়। অন্য তিনজনকে সাত থেকে ১০ বছরের জেল দেয়া হয়। কিন্তু সৌদি আরবের এই বিচার প্রত্যাখ্যান করেছেন জাতিসংঘের তখনকার স্পেশাল র‌্যাপোর্টিউর অ্যাগনেস ক্যালামার্ড। তিনি ২০১৯ সালে এক রিপোর্টে বলেন, খাসোগিকে ইচ্ছাকৃতভাবে, পূর্বপরিকল্পিতভাবে হত্যা করা হয়েছে। এর জন্য সৌদি আরব দায়ী।

ওদিকে সাংবাদিক খাসোগিকে হত্যার পর প্রথম পশ্চিমা কোনো বড় নেতা হিসেবে কয়েকদিন আগেই সৌদি আরব সফর করেন ফ্রান্সের প্রেসিডেন্ট ইমানুয়েল ম্যাক্রন। তিনি মুখোমুখি সাক্ষাত করেন ক্রাউন প্রিন্স মোহাম্মদ বিন সালমানের সঙ্গে। এর মাত্র কয়েকদিনের মাথায় ফ্রান্সের রাজধানী প্যারিসে ওই আটকের ঘটনা ঘটলো।
অবশ্যই দিতে হবে *
অবশ্যই দিতে হবে *
পাঠকের মতামত
**মন্তব্য সমূহ পাঠকের একান্ত ব্যক্তিগত। এর জন্য সম্পাদক দায়ী নন।
Kazi
৮ ডিসেম্বর ২০২১, বুধবার, ১২:০১

Saudi always give capital punishment for killing. But why in this case they reduces capital punishment to life long jail ? Because killing happened by direction of some one from Royal family.

অন্যান্য খবর