× প্রচ্ছদ অনলাইনপ্রথম পাতাশেষের পাতাখেলাবিনোদনএক্সক্লুসিভভারতবিশ্বজমিনবাংলারজমিনদেশ বিদেশশিক্ষাঙ্গনসাক্ষাতকাররকমারিপ্রবাসীদের কথামত-মতান্তরফেসবুক ডায়েরিবই থেকে নেয়া তথ্য প্রযুক্তি শরীর ও মন চলতে ফিরতে ষোলো আনা মন ভালো করা খবরকলকাতা কথকতাখোশ আমদেদ মাহে রমজানস্বাধীনতার সুবর্ণ জয়ন্তীসেরা চিঠিইতিহাস থেকে
ঢাকা, ২৩ জানুয়ারি ২০২২, রবিবার , ৯ মাঘ ১৪২৮ বঙ্গাব্দ, ১৯ জমাদিউস সানি ১৪৪৩ হিঃ

জুয়া খেলায় বাধা দেয়ায় স্ত্রীকে কুপিয়ে জখম, অভিযুক্ত স্বামীকে গণধোলাই

বাংলারজমিন

দশমিনা (পটুয়াখালী) প্রতিনিধি
৯ ডিসেম্বর ২০২১, বৃহস্পতিবার

দশমিনা উপজেলায় স্বামীকে জুয়া খেলায় বাধা দেয়ায় স্ত্রীকে কুপিয়ে গুরুতর আহত করে পালিয়ে যাওয়ার সময় জনতার গণধোলাইয়ে গুরুতর আহত হয়েছে স্বামী। দুজনকে গুরুতর আহত অবস্থায় দশমিনা হাসপাতালে ভর্তি করা হয়েছে। গত মঙ্গলবার রাতে দশমিনা উপজেলার আলীপুর ইউনিয়নের রমানাথ সেন এলাকায় এ ঘটনাটি ঘটে।
স্থানীয় বিভিন্ন সূত্রে জানা গেছে, মঙ্গলবার রাত ১১টায় দশমিনা উপজেলার বেতাগী সানকিপুর ইউনিয়নের মাছুয়াখালী গ্রামের ওয়াহেদ ডাক্তারের ছেলে জাকির হোসেন রিফাত (২৫) শ্বশুরবাড়ি  গিয়ে স্ত্রী মনিরা বেগমের (১৮) কাছে জুয়া খেলার জন্য টাকা দাবি করেন। এ সময় স্ত্রী মনিরা বেগম স্বামী রিফাতকে টাকা দিতে অস্বীকৃতি জানিয়ে জুয়া খেলা বন্ধ করার জন্য চাপ প্রয়োগ করেন। এ ঘটনায় স্বামী জাকির হোসেন রিফাত উত্তেজিত হয়ে স্ত্রী মনিরা বেগমের মাথাসহ শরীরের বিভিন্ন অংশে এলোপাথাড়ি কুপিয়ে রক্তাক্ত জখম অবস্থায় ফেলে রেখে মোটরসাইকেলে পালিয়ে যাওয়ার সময় স্থানীয় জনতার গণধোলাইয়ের শিকার হন। গুরুতর আহত অবস্থায় দুজনকে দশমিনা হাসপাতালে ভর্তি করা হয়েছে। মনিরা বেগমের মা তাসলিমা বেগম বলেন, তার মেয়ে মনিরা ঢাকার ধনিয়া কলেজের এইসএসসি শেষ বর্ষে লেখাপড়া করছেন।
কিছুদিন আগে তার মেয়ে মনিরা রিফাতের প্রেম করে বিয়ে করেন। বিয়ের পর থেকেই জুয়ার টাকার জন্য মনিরাকে মারধর শুরু করেন রিফাত। জুয়া খেলায় বাধা দেয়ায় প্রায়ই তার মেয়েকে মারধর করতো রিফাত। এ ঘটনায় মামলার প্রস্তুতি চলছে বলে জানান তিনি। স্থানীয় ইউপি সদস্য জামাল হোসেন বলেন, মনিরাকে কুপিয়ে পালানোর সময় স্থানীয় জনতা রিফাতকে গনধোলাই দিয়েছে। তিনি আরও বলেন খোঁজ নিয়ে জেনেছি রিফাত ছেলেটি খুবই খারাপ প্রকৃতির। পরে স্থানীয়দের সহায়তায় দুজনকে হাসপাতালে নিয়ে ভর্তি করে দিয়েছি। রিফাতের বড় ভাই সাইদুল ইসলাম বলেন, আমার ভাইকে তার শ্বশুরবাড়িতে ডেকে নিয়ে ব্যাপক মারধর করা হয়েছে। দশমিনা থানার ওসি মো. মেহেদি হাসান বলেন, এ ঘটনায় এখনো কোনো লিখিত অভিযোগ পাইনি। পেলে আইনগত ব্যাবস্থা গ্রহণ করা হবে।
অবশ্যই দিতে হবে *
অবশ্যই দিতে হবে *
অন্যান্য খবর