× প্রচ্ছদ অনলাইনপ্রথম পাতাশেষের পাতাখেলাবিনোদনএক্সক্লুসিভভারতবিশ্বজমিনবাংলারজমিনদেশ বিদেশশিক্ষাঙ্গনসাক্ষাতকাররকমারিপ্রবাসীদের কথামত-মতান্তরফেসবুক ডায়েরিবই থেকে নেয়া তথ্য প্রযুক্তি শরীর ও মন চলতে ফিরতে ষোলো আনা মন ভালো করা খবরকলকাতা কথকতাখোশ আমদেদ মাহে রমজানস্বাধীনতার সুবর্ণ জয়ন্তীসেরা চিঠিইতিহাস থেকে
ঢাকা, ২৩ জানুয়ারি ২০২২, রবিবার , ৯ মাঘ ১৪২৮ বঙ্গাব্দ, ১৯ জমাদিউস সানি ১৪৪৩ হিঃ

নন্দীগ্রামে আদিবাসী-পুলিশ সংঘর্ষ মামলায় আসামি ৭০

বাংলারজমিন

নন্দীগ্রাম (বগুড়া) প্রতিনিধি
৯ ডিসেম্বর ২০২১, বৃহস্পতিবার

 বগুড়ার নন্দীগ্রাম উপজেলায় চোলাই মদ উদ্ধার করতে গিয়ে পুলিশের সঙ্গে আদিবাসীদের সংঘর্ষের ঘটনায় থানায় পৃথক দুটি মামলায় ৭০ জনকে আসামি করা হয়েছে। থানার এসআই রেজাউল করিম বাদী হয়ে এ মামলা দায়ের করেছেন। গতকাল বুধবার দুপুরে নন্দীগ্রাম থানার অফিসার ইনচার্জ (ওসি) আবুল কালাম আজাদ এ তথ্য নিশ্চিত করেছেন। এজাহারভুক্ত আসামিরা পলাতক থাকায় কাউকে গ্রেপ্তার করতে পারেনি পুলিশ। জানা গেছে, মঙ্গলবার রাতে উপজেলার বুড়ইল ইউনিয়নের দাসগ্রাম বৃন্দাবনপাড়ায় আদিবাসী পল্লীতে বিপুল পরিমাণ চোলাই মদ মজুত ও কেনাবেচা চলছিল। গোপনে এমন সংবাদ পেয়ে নন্দীগ্রাম থানা পুলিশের একটি দল আদিবাসী নয়ন মাহাতোর বাড়িতে অভিযান চালায়। এ সময় আদিবাসীদের ঘর তল্লাশিকালে পুলিশকে বাধা দেয়া হয়। একপর্যায়ে আদিবাসীরা ক্ষুব্ধ হয়ে পুলিশের ওপর চড়াও হয়।
এ সময় আদিবাসী নারী-পুরুষ সংঘবদ্ধ হয়ে পুলিশের সঙ্গে সংঘর্ষে জড়িয়ে পড়ে। এতে আদিবাসী পল্লীর ৭-৮ জন নারী-পুরুষ আহত হন। এদিকে আদিবাসীদের হামলায় নন্দীগ্রাম থানার ৭ পুলিশ সদস্য আহত হয়েছেন। আহতদের মধ্যে এসআই রেজাউল করিমকে গুরুতর অবস্থায় বগুড়া জিয়াউর রহমান মেডিকেল কলেজ হাসপাতালে ভর্তি করা হয়। অপর ৬ পুলিশ সদস্য স্থানীয় হাসপাতালে চিকিৎসাধীন রয়েছেন। পরে থানা থেকে অতিরিক্ত পুলিশ ঘটনাস্থলে পৌঁছে পরিস্থিতি নিয়ন্ত্রণে আনে। সেখান থেকে ১৮ লিটার চোলাই মদ উদ্ধার করে পুলিশ। এই ঘটনায় রাতেই নন্দীগ্রাম থানার এসআই রেজাউল করিম বাদী হয়ে সরকারি কাজে বাধা ও পুলিশের ওপর হামলার ঘটনায় ৯ জনের নাম উল্লেখসহ ৬০ জনকে অজ্ঞাতনামা আসামি করে মামলা করেছে। এ ছাড়া চোলাই মদ উদ্ধার ঘটনায় একজনকে আসামি করে মাদকদ্রব্য আইনে আরও একটি মামলা করা হয়েছে। তবে মামলার পর থেকে এজাহারভুক্ত আসামিরা পলাতক রয়েছে। দাসগ্রামের আদিবাসী পল্লীর জাম্বু মাহাতো বলেন, আগামী শনিবার তার দুই মেয়ে পাতা মাহাতো ও লতা মাহাতোর বিয়ে। বিয়ে উপলক্ষে সামাজিক রীতি অনুযায়ী বরপক্ষের জন্য বাড়িতে চোলাই মদ তৈরি করে রাখা হয়। তিনি আরও বলেন, নন্দীগ্রাম থানা পুলিশের একটি দল আদিবাসীদের বাড়িতে হানা দিয়ে ঘরে ঘরে তল্লাশির সময় নারী-পুরুষদের মারধর করেছে। এই পুলিশি হামলার আমরা প্রতিবাদ করছি। এ বিষয়ে নন্দীগ্রাম থানার অফিসার ইনচার্জ (ওসি) মো. আবুল কালাম আজাদ বলেন, চোলাই মদ উদ্ধার করতে গেলে আদিবাসীরা পুলিশের ওপর হামলা করে। এতে ৭ পুলিশ সদস্য আহত হন। তাদের হেফাজত থেকে ১৮ লিটার চোলাই মদ উদ্ধার করা হয়েছে। এ ঘটনায় থানায় পৃথক দুটি মামলা করা হয়েছে।
অবশ্যই দিতে হবে *
অবশ্যই দিতে হবে *
অন্যান্য খবর