× প্রচ্ছদ অনলাইনপ্রথম পাতাশেষের পাতাখেলাবিনোদনএক্সক্লুসিভভারতবিশ্বজমিনবাংলারজমিনদেশ বিদেশশিক্ষাঙ্গনরকমারিমত-মতান্তরবই থেকে নেয়া তথ্য প্রযুক্তি শরীর ও মন চলতে ফিরতে কলকাতা কথকতাসেরা চিঠিইতিহাস থেকেঅর্থনীতি
ঢাকা, ১৯ মে ২০২২, বৃহস্পতিবার , ৫ জ্যৈষ্ঠ ১৪২৯ বঙ্গাব্দ, ১৭ শওয়াল ১৪৪৩ হিঃ

 কলকাতা কথকতা /বিরাটের নেতৃত্ব ছাড়া নিয়ে সৌরভ মন্তব্যহীন, ভারতজুড়ে ক্ষোভ দাদার ওপর

কলকাতা কথকতা

জয়ন্ত চক্রবর্তী, কলকাতা
(৪ মাস আগে) জানুয়ারি ১৬, ২০২২, রবিবার, ৯:২০ পূর্বাহ্ন

সাত বছর ধরে ভারতকে টেস্ট ক্রিকেটে নেতৃত্ব দেয়ার পর শনিবার সন্ধ্যায় একটি টুইট করে ভারতীয় ক্রিকেট দলের নেতৃত্ব ছাড়ার কথা ঘোষণা করেন বিরাট কোহলি। ভারতীয় ক্রিকেট বোর্ডের প্রেসিডেন্ট, প্রাক্তন ভারত অধিনায়ক সৌরভ গঙ্গোপাধ্যায় বিষয়টিকে কোহলির ব্যক্তিগত ব্যাপার বলে মন্তব্যহীন থাকলেও ভারতজুড়ে সৌরভবিরোধী ঝড় উঠেছে। সোশ্যাল মিডিয়ায় অনেকেই এমন মন্তব্য করছেন যে, বিরাট কোহলির নেতৃত্বের ইনিংস খতম করার মূলে সৌরভ। তার আর বোর্ড সভাপতি পদে থাকার অধিকার নেই। বন্দুকের নল কেন্দ্রীয় স্বরাষ্ট্রমন্ত্রী অমিত শাহ পুত্র জয় শাহর দিকেও ঘুরেছে। ভারতীয় ক্রিকেট জনতা মনে করছে, সৌরভ-শাহ জুটি ভারতীয় ক্রিকেটকে শেষ করে দিচ্ছে। বিরাট নিজেই এই বিষয়টিতে প্রকারন্তরে  ইন্ধন জুগিয়েছেন। বিদায়বেলায় তিনি ধন্যবাদ জানিয়েছেন মাত্র দু’জনকে-রবি শাস্ত্রী এবং মাহেন্দ্রা সিং ধোনি।
বিরাট লিখেছেন- রবিজি এবং তাঁর সাপোর্ট স্টাফ আমাদের সাফল্যের গাড়ির ইঞ্জিন হয়ে দলকে টেনে নিয়ে গেছেন। মাহেন্দ্রা সিং ধোনিকে ধন্যবাদ জানিয়েছেন, ২০১৪ সালে নেতৃত্ব ছেড়ে দেয়ার পরেও তাকে সুপরামর্শ দেয়ার জন্য। বিরাট একবারের জন্যও নাম করেননি  সৌরভ গঙ্গোপাধ্যায় অথবা রাহুল দ্রাবিরের। এর ফলে রাতেই এই গুঞ্জন ছড়িয়ে পড়ে, তাহলে কি বিরাট বিদায়ের স্ক্রিপ্ট সৌরভেরই লেখা? ভারতীয় ক্রিকেট বোর্ডের  ট্রেজারার অরুন ধুমলের একটি সর্বভারতীয় সংবাদ মাধ্যমে দেয়া বক্তব্য আগুনে ঘৃতাহুতি দেয়। ধুমল দাবি করেন, এটি বিরাটের ব্যক্তিগত সিদ্ধান্ত। সৌরভের বোর্ড-এর সঙ্গে যুক্ত নয়। বিরাট ইচ্ছা করলে আরও দু’বছর ভারতীয় দলকে নেতৃত্ব দিতে পারতেন। বোর্ডের ( পড়ুন সৌরভ ) সঙ্গে বিরাটের  লড়াই শুরু হয়েছে বেশ  কিছুদিন ধরেই। রোহিত শর্মার সঙ্গে ইগোর লড়াইয়ে বোর্ড রোহিতকেই সঙ্গ দেয়। এরপর সাংবাদিক সম্মেলনে বিরাট কোহলি প্রকাশ্যে বোর্ডের সমালোচনা করেন। এরপর টি টোয়েন্টি নেতৃত্ব ছাড়েন কোহলি। একদিনের ক্রিকেট নেতৃত্ব থেকে বিরাটের অপসারণ প্রসঙ্গে সৌরভ জানান, বিরাটকে বিষয়টি জানিয়ে তাঁর সিদ্ধান্তের জন্য নির্বাচকরা অপেক্ষা করেছিলেন। কিন্তু, যখন কোনো সিদ্ধান্ত এলো না তখন নতুন অধিনায়কের নাম ঘোষণা করা হয়। বিরাট কার্যত সৌরভকে মিথ্যাবাদী বলে জানান তাঁকে একদিনের ক্রিকেট নেতৃত্ব নিয়ে কিছুই জানানো হয়নি। টেস্ট ক্রিকেটে বিরাটের সাফল্য ভারতীয়দের নিরিখে সবার সেরা। ৬৮টি  ম্যাচে নেতৃত্ব দিয়ে তিনি জিতেছেন ৪০টিতে, হার ১৭টি ম্যাচে জেতার গড় ৫৮.৮২। মাহেন্দ্রা সিং ধোনি ৬৭টি টেস্টে ভারতকে নেতৃত্ব দিয়ে জিতেছেন ২৭টি ম্যাচ। জেতার গড় ৪৫.০০। সৌরভ গঙ্গোপাধ্যায় ৪৯টি টেস্টে ভারতকে নেতৃত্ব দিয়ে ২১টি ম্যাচ জিতেছেন। জেতার গড় ৪২.৮৫।
অবশ্যই দিতে হবে *
অবশ্যই দিতে হবে *
পাঠকের মতামত
**মন্তব্য সমূহ পাঠকের একান্ত ব্যক্তিগত। এর জন্য সম্পাদক দায়ী নন।
Mahmud
১৫ জানুয়ারি ২০২২, শনিবার, ৯:৫৩

কোহলি পৃথিবীর শ্রেষ্ঠ ব্যাটারদের একজন । কিন্তু বেয়াদবিতে তার সমকক্ষ কেউ নেই। তার আচরন সবসময়ই চরম ঔদ্ধত্যপূর্ণ । এমন নেতা না থাকাই ভালো।‌

অন্যান্য খবর