× প্রচ্ছদ অনলাইনপ্রথম পাতাশেষের পাতাখেলাবিনোদনএক্সক্লুসিভভারতবিশ্বজমিনবাংলারজমিনদেশ বিদেশশিক্ষাঙ্গনরকমারিমত-মতান্তরবই থেকে নেয়া তথ্য প্রযুক্তি শরীর ও মন চলতে ফিরতে কলকাতা কথকতাসেরা চিঠিইতিহাস থেকেঅর্থনীতি
ঢাকা, ২৫ মে ২০২২, বুধবার , ১১ জ্যৈষ্ঠ ১৪২৯ বঙ্গাব্দ, ২৩ শওয়াল ১৪৪৩ হিঃ

বিসিবি’র সঙ্গে ‘অপ্রিয় অতীত’ নিয়ে ভাবতে চান না রোডস

খেলা

স্পোর্টস রিপোর্টার
১৯ জানুয়ারি ২০২২, বুধবার

পরিসংখ্যানের হিসেবে বাংলাদেশের অন্যতম সফল ক্রিকেট কোচ স্টিভ রোডস। কিন্তু ২০১৯ বিশ্বকাপের পর পরই তাকে চাকুরিচ্যুত করে বাংলাদেশ ক্রিকেট বোর্ড (বিসিবি)।  কেন হঠাৎ করে বিদায়  দেয়া  হলো তাকে! তা নিয়ে আজও সঠিক কোনো উত্তর জানা যায়নি। সেই সময় নানা গুঞ্জন ছিল কিন্ত তার সত্যি-মিথ্যে প্রমাণ মেলেনি। বাংলাদেশে ফিরে এসেছেন এই ইংলিশ কোচ। তবে এবার তাকে দেখা যাবে বিপিএলের দল কুমিল্লা ভিক্টোরিয়ানসের পরামর্শক হিসেবে। তবে সংবাদমাধ্যমের মুখোমুখি হয়ে তাকে শুনতে হয়েছে অপ্রিয় প্রশ্ন। কেন বিসিবির সঙ্গে তার দ্রুত বিচ্ছেদ হয়েছিল! যদিও এই প্রশ্নের উত্তর দিতে রাজি হননি এই কোচ। বিসিবির সঙ্গে তার সেই অপ্রিয় অতীত নিয়ে কথা বলতে চান না তিনি তবে মনে রাখতে চান তার সময়ে দলের পাওয়া সুখস্মৃতিগুলোই।
তিনি বলেন, ‘বিসিবি বা কারও সঙ্গে আমি এটা নিয়ে আলোচনা করতে চাই না। এটা অতীত। তবে যেটুকু বলতে পারি- বিশ্বকাপের ম্যাচগুলোর দিকে তাকালে দেখবেন আমরা পাকিস্তানের বিপক্ষে ভালো করতে পারিনি। এছাড়া বাকি সব ম্যাচেই আমরা ভালো খেলেছি। ইংল্যান্ড, ভারতের বিপক্ষে হেরে গেলেও আমরা লড়াই করেছি, হাল ছাড়িনি। আমাদের ভালো কিছু জয় ছিল। নিউজিল্যান্ডকে চেপে ধরেছিলাম। আমার মনে হয় মানুষ যেভাবে ভাবে ততটা খারাপ আমরা করিনি। মানুষের অভিমত থাকবেই। তবে এখন এসব নিয়ে বলতে চাই না। ফিরে এসে ভালো লাগছে, এটুকুই।’
বাংলাদেশে ফিরতে পেরে দারুণ আপ্লুত ইংলিশ কোচ স্টিভ রোডস। বিশেষ করে কুমিল্লার সঙ্গে যুক্ত হতে পেরে আনন্দিত। তবে বিপিএলের দল কুমিল্লার প্রধান কোচ হিসেবে আছেন মোহাম্মদ সালাউদ্দিন। যে কারণে রোডসের ভূমিকা নিয়ে আছে নানা প্রশ্নও। তবে  কোচ নিজেই তা পরিষ্কার বরে দিলেন। তিনি বলেন, ‘এখানে ফিরে এসে ভালো লাগছে। আসার পর কুমিল্লা ভিক্টোরিয়ানস আমাকে সাদরে গ্রহণ করেছে, এটা খুব ভালো লেগেছে। মানুষ অনেক সমাদর করছে। তাই বাংলাদেশে ফিরে আসতে পেরে সম্মানিত বোধ করছি। এই জায়গায় আমি অনেক উপভোগ করি। (ভূমিকা) এই প্রশ্ন শুনে সত্যিই খুশি হলাম। সালাউদ্দিন অনেক সফল একজন কোচ। শুধু বিপিএলে নয়, অনেক ক্রিকেটারের জন্যও সে দারুণ ভূমিকা রেখেছে। আশা করি প্রধান কোচ হিসেবেও তার সাফল্য অব্যাহত থাকবে। আমি এখানে সহায়তার জন্য এসেছি। শুধু খেলোয়াড় নয়, কোচদেরও সহায়তা করবো। আশা করি আমার অভিজ্ঞতা ও জ্ঞান কাজে লাগবে, আমিও এখান থেকে শিখবো। সালাউদ্দিনের সঙ্গে সুন্দর সময় কাটছে। আশা করি দারুণ কাজে দিবে। খেলোয়াড়দের জানা প্রয়োজন, তাদের প্রধান কোচ সালাউদ্দিন আর আমি টুকটাক সহযোগিতার জন্য এসেছি। কুমিল্লা দারুণ একটি ফ্র্যাঞ্চাইজি। তাদের অনেক সাফল্য আছে। এবার কিছুটা অবদান রেখে তাদের সাফল্যে আমি যেন অংশ হতে পারি এজন্যই এসেছি।’
ঢাকায় রোডস তার পুরানো শিষ্যদের দেখে খুব খুশি। মাশরাফি বিন মুর্তজা ও মাহমুদুল্লাহ রিয়াদের  সঙ্গে প্রথম দিনই দেখা হওয়ার পর মেতে ওঠেন প্রাণবন্ত আড্ডায়। দেশের দুই তারকাকে নিয়ে এই ইংলিশ কোচ  বলেন, ‘(ম্যাশ, রিয়াদ) তারা অনেক বন্ধুত্বপূর্ণ। আবার তাদের সঙ্গে দেখা হওয়ায় খুব ভালো লাগলো। তাদের অনেকের সঙ্গেই আমার গভীর সম্পর্ক। সবাইকে আবার দেখতে পেরে খুব ভালো লাগছে।’
বাংলাদেশ  ক্রিকেটের এখনো তিনি গভীরভাবে খোঁজ খবর রাখেন স্টিভ রোডস। তিনি বলেন, ‘একটু অদ্ভুত শোনাবে, তবে আমি খুব নিবিড়ভাবে বাংলাদেশ ক্রিকেটের খোঁজখবর রাখি। কুমিল্লার সঙ্গে আগামী ৫ সপ্তাহ উপভোগ্য হবে। তবে এই দেশে কখন কী হচ্ছে সব খোঁজ রাখি, যা আপনারা খবর আকারে প্রচার করেন।’ বাংলাদেশের বর্তমান ক্রিকেট নিয়েও তার পরিষ্কার ধারণা তুলে ধরেন রোডস। তিনি বলেন, ‘এখন আমি যুক্ত নই, জানি না কী চলছে। তাই মন্তব্য করা ঠিক হবে না। আমি আপনাদের প্রতিবেদন পড়ি, তাই আপনারা আমার চেয়েও ভালো জানেন। যতটুক জানি- কোচিং স্টাফরা পরিশ্রমী। কিছু ফলাফল হয়ত পক্ষে আসেনি। তবে দল দারুণ কিছু ফলাফলও এনেছে। কয়দিন আগে নিউজিল্যান্ডকে টেস্ট হারালো, এটা দারুণ ছিল। দ্বিতীয় ম্যাচে নিউজিল্যান্ড ঘুরে দাঁড়ানোয় ভালো করতে পারেনি। দেশে টি-টোয়েন্টিতেও কিছু সাফল্য পেয়েছে। আমি যেহেতু দায়িত্বে নই, আমার জন্য মন্তব্য করা কঠিন। তবে ফলাফলে উত্থানপতন থাকবেই।’
অবশ্যই দিতে হবে *
অবশ্যই দিতে হবে *
অন্যান্য খবর