× প্রচ্ছদ অনলাইনপ্রথম পাতাশেষের পাতাখেলাবিনোদনএক্সক্লুসিভভারতবিশ্বজমিনবাংলারজমিনদেশ বিদেশশিক্ষাঙ্গনরকমারিমত-মতান্তরবই থেকে নেয়া তথ্য প্রযুক্তি শরীর ও মন চলতে ফিরতে কলকাতা কথকতাসেরা চিঠিইতিহাস থেকেঅর্থনীতি
ঢাকা, ১৯ মে ২০২২, বৃহস্পতিবার , ৫ জ্যৈষ্ঠ ১৪২৯ বঙ্গাব্দ, ১৭ শওয়াল ১৪৪৩ হিঃ

ডিসি সম্মেলনে প্রস্তাব /জাতিসংঘ মিশনে যেতে চান ক্যাডার কর্মকর্তারা

প্রথম পাতা

স্টাফ রিপোর্টার
২০ জানুয়ারি ২০২২, বৃহস্পতিবার

জাতিসংঘ মিশনে বিসিএস প্রশাসন ক্যাডারের কর্মকর্তাদের অংশগ্রহণের সুযোগ সৃষ্টির প্রস্তাব এসেছে চলমান জেলা প্রশাসক (ডিসি) সম্মেলন থেকে। জনপ্রশাসন মন্ত্রণালয় সম্পর্কিত আলোচনার জন্য লিখিত এ প্রস্তাব দেন রংপুরের বিভাগীয় কমিশনার। এর যুক্তি হিসেবে বলা হয়, বর্তমানে জাতিসংঘ মিশনে সেনা, নৌ, বিমানবাহিনীসহ পুলিশ ও আনসার সদস্যরা কাজ করছেন। এ বিষয়ে আন্তঃবাহিনী সমন্বয়ের প্রয়োজন আছে।

গতকাল রাজধানীর ওসমানী স্মৃতি মিলনায়তনে জনপ্রশাসন মন্ত্রণালয় সম্পর্কিত আলোচনা শেষে সাংবাদিকেরা এ প্রস্তাবের বিষয়ে জানতে চাইলে জনপ্রশাসন মন্ত্রণালয়ের সিনিয়র সচিব কেএম আলী আজম বলেন, ইউএন মিশনের বিষয়টি নির্ভর করে যে দেশে ইউএন মিশন যাবে এবং সেখানে ইউএন’র তরফ থেকে চাহিদার ওপর ভিত্তি করে। যেসব দেশের লোকজন ইউএন মিশনে বেশি কাজ করেন, সেসব দেশের লোকজন এ সুযোগ-সুবিধাগুলো পান। এ বিষয়ে জাতিসংঘের স্থায়ী প্রতিনিধি এবং পররাষ্ট্র মন্ত্রণালয়ের কাছে পত্র দেয়ার সিদ্ধান্ত হয়েছে। করোনাভাইরাসের নতুন ধরন ওমিক্রন ছড়িয়ে পড়ায় সর্বোচ্চ সতর্কতা মানার পরামর্শ দেয়া হয়েছে ডিসিদের। এ বিষয়ে জনপ্রশাসন সচিব বলেন, ওমিক্রন খুব বেশি ছড়াচ্ছে।
ডিসিরা আগে যেমন অত্যন্ত গুরুত্বপূর্ণ ভূমিকা পালন করেছেন, আগের মতো এখনো সর্বোচ্চ সতর্ক থেকে, স্বাস্থ্যবিধি মেনে জেলা পর্যায়ে যাতে সব কার্যক্রম পরিচালিত হয়, এর জন্য প্রয়োজনীয় ব্যবস্থা গ্রহণ করতে বলা হয়েছে।

তিনটি বিভাগে সরকারি কর্মচারীদের জন্য হাসপাতাল নির্মাণের প্রস্তাবে সম্মতি দেয়া হয়েছে বলে জানান জনপ্রশাসন সিনিয়র সচিব। এ সম্পর্কে তিনি বলেন, বিভাগীয় পর্যায়ে সরকারি কর্মচারীদের জন্য হাসপাতাল বানাতে আমরা তিন বিভাগ থেকে প্রস্তাব পেয়েছি। ইতিমধ্যে বিভাগীয় পর্যায়ে হাসপাতাল নির্মাণের জন্য প্রধানমন্ত্রী নীতিগত সিদ্ধান্ত দিয়েছেন। যে সুনির্দিষ্ট প্রস্তাব আমরা পেয়েছি, তার পরিপ্রেক্ষিতে পরিকল্পনা গ্রহণ করেছি, এটি নির্মাণ করার জন্য। কার্যক্রম চলমান রয়েছে।

করোনা মহামারির মধ্যে সর্বোচ্চ সতর্ক থাকতে জেলা প্রশাসকদের নির্দেশ দেয়া হয়েছে বলেও জানান আলী আজম। তিনি বলেন, ‘ওমিক্রন এসেছে। খুব বেশি ছড়াচ্ছে। ডিসিরা আগে যেমন অত্যন্ত গুরুত্বপূর্ণ ভূমিকা পালন করেছেন, আগের মতো এখনো সর্বোচ্চ সতর্ক থেকে, স্বাস্থ্যবিধি মেনে জেলা পর্যায়ে যাতে সব কার্যক্রম পরিচালিত হয় সেজন্য প্রয়োজনীয় ব্যবস্থা নিতে বলা হয়েছে।’
অবশ্যই দিতে হবে *
অবশ্যই দিতে হবে *
পাঠকের মতামত
**মন্তব্য সমূহ পাঠকের একান্ত ব্যক্তিগত। এর জন্য সম্পাদক দায়ী নন।
জাফরুল আমিন
২২ জানুয়ারি ২০২২, শনিবার, ৮:২৬

ছেড়ে দে মা লুটে পুটে খাই। নির্লজ্জতার একটা সীমা থাকা উচিৎ। কি কাজ করবে তারা সেখানে গিয়ে, সব জায়গায় তো বিদ্রোহি অস্ত্রবাজ দের দমন করতে হয়, ৯৯% ক্যাডার তো ইংরেজি ভাষায় কোনো দখল নেই, শুধু বেতন ভাতার লোভে এসব আবদার, জাতিসংঘের লোকজন কি এ সব জানে না।

Borno bidyan
১৯ জানুয়ারি ২০২২, বুধবার, ১১:৫৪

এইমুহূর্তে জাতিসংঘের ইউএন মিশন নিয়ে এক ধরণের ধোঁয়াশা ও শঙ্কা চলছে! তাই বিকল্প প্রস্তাবনা নিঃসন্দেহে একটি ভালো প্রস্তাব! তবে, ঘুষ-দুর্নীতি, মানবধিকার ও বাংলাদেশের গণতান্ত্রিক পরিবেশ ধ্বংসে আমলাদের সম্পৃক্ততা বিবেচনায় আনা উচিত!

mamun
২০ জানুয়ারি ২০২২, বৃহস্পতিবার, ১২:৩২

Need to send EC to teach those countries people how to do midnight vote. Ha ha ha.

জাহিদ
১৯ জানুয়ারি ২০২২, বুধবার, ৯:৪৬

ঘুষের পরিধী আন্তর্জাতিক পর্যায়ে নিতে চায় আমাদের বিসিএস ঘূষ ক্যাডারের লোকেরা। খারাপ না ….. চালিয়ে যান।

জাহিদ
১৯ জানুয়ারি ২০২২, বুধবার, ৯:২৪

ঘুষের পরিধী আন্তর্জাতিক পর্যায়ে নিতে চায় আমাদের বিসিএস ঘূষ ক্যাডারের লোকেরা। খারাপ না ….. চালিয়ে যান।

জাহিদ
১৯ জানুয়ারি ২০২২, বুধবার, ৮:৫৪

ঘুষের পরিধী আন্তর্জাতিক পর্যায়ে নিতে চায় আমাদের বিসিএস ঘূষ ক্যাডারের লোকেরা। খারাপ না ….. চালিয়ে যান।

Mohammad Chowdhury
২০ জানুয়ারি ২০২২, বৃহস্পতিবার, ৫:৪৮

What quality do have to go to UN mission?

Shobuj Chowdhury
২০ জানুয়ারি ২০২২, বৃহস্পতিবার, ৩:৫৫

What services the DCs will provide to the war torn countries? Running administration or teach how to make things at midnight?

অন্যান্য খবর