× প্রচ্ছদ অনলাইনপ্রথম পাতাশেষের পাতাখেলাবিনোদনএক্সক্লুসিভভারতবিশ্বজমিনবাংলারজমিনদেশ বিদেশশিক্ষাঙ্গনরকমারিমত-মতান্তরবই থেকে নেয়া তথ্য প্রযুক্তি শরীর ও মন চলতে ফিরতে কলকাতা কথকতাসেরা চিঠিইতিহাস থেকেঅর্থনীতি
ঢাকা, ১৯ মে ২০২২, বৃহস্পতিবার , ৫ জ্যৈষ্ঠ ১৪২৯ বঙ্গাব্দ, ১৭ শওয়াল ১৪৪৩ হিঃ

‘কোনো নোংরামি রাজনীতি হলে সহ্য করবো না’

বিনোদন

মাজহারুল তামিম
২১ জানুয়ারি ২০২২, শুক্রবার

আগামী ২৮শে জানুয়ারি বাংলাদেশ চলচ্চিত্র শিল্পী সমিতির ১৭তম দ্বি-বার্ষিক নির্বাচনে মিশা-জায়েদ প্যানেলের হয়ে কার্যনির্বাহী পদে প্রার্থী হয়েছেন মৌসুমী। গতবারের নির্বাচনে এই প্যানেলের বিপক্ষে সভাপতি পদে নির্বাচন করার পর এবার কার্যনির্বাহী সদস্য পদে নির্বাচন করা নিয়ে বিএফডিসি’র সাধারণ শিল্পী ও ভক্তদের রোষানলে পড়েছেন এ নায়িকা। তবে এসব ব্যাপারে তোয়াক্কা করছেন না মৌসুমী। ইতিবাচকভাবেই এগিয়ে যেতে চান তিনি। গত বুধবার নির্বাচনী প্রচারণায় অংশ নিতে এসে ‘কেয়ামত থেকে কেয়ামত’ খ্যাত নায়িকা সাংবাদকিদকের মুখোমুখি হয়ে তার চাওয়া এবং বিতর্কের জবাব দিয়েছেন। মৌসুমী বলেন, আমি চাইবো নির্বাচনকে কেন্দ্র করে কোনো নোংরামি, রাজনীতি না হোক। এটা মনে প্রাণে চাই। যদি কোনো নোংরামি-রাজনীতি হলে সহ্য করবো না।
কেউ এগুলো করার চেষ্টা করবেন না দয়া করে। সুষ্ঠু নির্বাচনের পক্ষে রয়েছেন উল্লেখ করে তিনি কেন  মিশা-জায়েদ প্যানেলে যোগ দিয়েছেন তারও ব্যাখ্যা দিয়েছেন। এ নায়িকা বলেন, আমি যাচাই-বাছাই না করে মিশা-জায়েদ প্যানেলে যোগ দেইনি। আগের ইলেকশনে আমার অনেক ভুল ছিল বা ওদের অনেক ভুল ছিল। সেই ভুলগুলো স্বল্প সময়ে অতিক্রম করা সম্ভব হয়নি। কিন্তু ওগুলোকে পাশ কাটিয়ে আমরা নতুন করে সুন্দরভাবে একসঙ্গে একজোট হয়েছি। এক হয়েছি সমিতির উন্নয়নের জন্য। এখানে তো কারও কোনো ক্ষতি করছি না। আমি মনে করি, আমাদের সংগঠনটা আমাদের মতোই হোক। আমাদের অনেকগুলো উদ্দেশ্য আছে। পৃষ্ঠপোষকতার পরিকল্পনা রয়েছে। সেগুলো সফল হোক আমরা চাই। বিশ্বাস করি একসঙ্গে থাকলে সেগুলো সফল হবে। সে কারণে আমরা একসঙ্গে থাকার চেষ্টা করেছি। বিভিন্ন জায়গায় গিয়ে প্রশ্নের সম্মুখীন হয়েছি, জায়েদ খানের সঙ্গে আপনার কী? ও তো ছোটভাই ওকে মাফ করে দেন। আমি বলেছি, আমার সঙ্গে ওর তো কিছু না। আমার সঙ্গে ওর কোনো বিরোধিতা নেই। আমরা সম্মিলিতভাবে কাজ করতে চাই। আমাদের বটবৃক্ষ যারা আছেন তাদেরকে নিয়েই। ডিপজল, রুবেল, কাঞ্চন ভাই এ রকম যারা সিনিয়র আছেন তাদেরকে আমরা চাই সবসময়। আমি মনে করি দূরে থাকার সময় নয় এখন। যেহেতু করোনার মধ্যে কঠিন সময় পার করতে হচ্ছে। সেই জায়গা থেকে শিল্পীদের সঠিক মূল্যায়ন করতে হবে। শিল্পীরা সম্মান, ভালোবাসা, আদর চান। এছাড়া আর কিছু চায় না। আমাদের শিল্পীদের টাকা দিয়ে কিনতে পারবেন না। কিন্তু আদর-ভালোবাসা দিয়ে কিনতে পারবেন। সেই সম্মানটুকুই কিন্তু সমিতির এই বর্তমান কমিটি করার চেষ্টা করছে। এবং ভুল-ভ্রান্তি যাই ছিল তারা সেটাকে অতিক্রম করে আরও ভালো করার চেষ্টা করছে। ভালোকে ভালো বলতে পারাটাও কিন্তু একটা সাহসের ব্যাপার। সৌন্দর্যের ব্যাপার। এই কিপ্টেমিটা আমি করতে পারবো না। সেজন্যই মিশা-জায়েদকে বলেছি তোমরা আবারো নির্বাচন করো। আমরা দূর থেকেই তোমাদের সাপোর্ট করবো। কিন্তু ডিপজল ভাই আমাকে বাধ্য করেছেন। তিনি বলেছেন তুমি সামনে এসেই সাপোর্ট করো। এখানে কোনো দলাদলি নেই আসলে। এদিকে সম্প্রতি মৌসুমী শেষ করেছেন ৩টি নতুন চলচ্চিত্রের কাজ। একটির নাম ‘ভাঙন’। পরিচালনা করছেন মীর্জা সাখাওয়াত হোসেন। আরেকটি সিনেমার নাম ‘সোনার চর’। পরিচালনা করছেন জাহিদ হোসেন। অন্য চলচ্চিত্রটির নাম ‘দেশান্তর’। এটি পরিচালনা করছেন আশুতোষ সুজন।
অবশ্যই দিতে হবে *
অবশ্যই দিতে হবে *
পাঠকের মতামত
**মন্তব্য সমূহ পাঠকের একান্ত ব্যক্তিগত। এর জন্য সম্পাদক দায়ী নন।
রাসেল
২১ জানুয়ারি ২০২২, শুক্রবার, ৫:৫২

অনেক জনপ্রিয় নায়িকা মৌসুমী। এফডিসিতে শিল্পী সমিতির গত নির্বাচনে মিশা-যায়েদের বিপক্ষে নির্বাচন করে এখন তাদের পেনেলে যাওয়া উচিত হয়নি।উনার নির্বাচনের সিদ্ধান্ত ভক্তবৃন্দ ও সহকর্মীদের প্রশ্নবিদ্ধ করেছ এবং মৌসুমীর মতো একজন জনপ্রিয় নায়িকার এটা ভুল সিদ্ধান্ত।

অন্যান্য খবর