× প্রচ্ছদ অনলাইনপ্রথম পাতাশেষের পাতাখেলাবিনোদনএক্সক্লুসিভভারতবিশ্বজমিনবাংলারজমিনদেশ বিদেশশিক্ষাঙ্গনরকমারিমত-মতান্তরবই থেকে নেয়া তথ্য প্রযুক্তি শরীর ও মন চলতে ফিরতে কলকাতা কথকতাসেরা চিঠিইতিহাস থেকেঅর্থনীতি
ঢাকা, ২৫ মে ২০২২, বুধবার , ১১ জ্যৈষ্ঠ ১৪২৯ বঙ্গাব্দ, ২৩ শওয়াল ১৪৪৩ হিঃ

চট্টগ্রামকে হারিয়ে শুভ সূচনা বরিশালের

খেলা

স্পোর্টস ডেস্ক
২১ জানুয়ারি ২০২২, শুক্রবার

বেনি হাওয়েল প্রতিরোধ গড়তে না পারলে একশ’র গণ্ডি পার করাই কঠিন হয়ে পড়তো চট্টগ্রাম চ্যালেঞ্জার্সের। ইংলিশ অলরাউন্ডারের ঝড়ো ইনিংসে ফরচুন বরিশালকে ১২৬ রানের টার্গেট দেয় চট্টগ্রাম। মামুলি লক্ষ্যে খেলতে নেমে ৪ উইকেটের জয় পায় ফরচুন বরিশাল।
মিরপুর শেরে বাংলা ক্রিকেট স্টেডিয়ামে বিপিএলের উদ্বোধনী ম্যাচে টসে জিতে শুরুতে বোলিংয়ের সিদ্ধান্ত নেন বরিশালের অধিনায়ক সাকিব আল হাসান। প্রথমে ব্যাট করে ২০ ওভারে ৮ উইকেট হারিয়ে ১২৫ রান জড়ো করে চট্টগ্রাম। জবাবে ১৮.২ ওভারে জয়ের বন্দরে পৌঁছায় বরিশাল।
সহজ লক্ষ্যে ব্যাট করতে নেমে মেহেদী হাসান মিরাজের ঘূর্ণি জাদুর মুখে পড়ে বরিশালের ব্যাটাররা। চট্টগ্রাম অধিনায়ক ক্যারিয়ার সেরা বোলিংয়ে ৪ ওভারে ১৬ রানের বিনিময়ে নেন ৪ উইকেট।
বরিশাল শিবিরে প্রথম আঘাতটাও হানেন মিরাজ। দলীয় ৪ রানে নাজমুল হোসেন শান্তকে বোল্ড করেন তিনি।
বরিশালের অধিনায়ক সাকিব আল হাসানের গুরুত্বপূর্ণ উইকেটটিও নেন মিরাজ। ১৬ বলে ১৩ রান নিয়ে বোল্ড আউট হন সাকিব।
দলীয় ২৮ রানে ২ উইকেট হারানোর পর প্রতিরোধ গড়ে তোলার আভাস দেন সৈকত আলী ও তৌহিদ হৃদয়।
দুই ব্যাটার মিলে ৩৪ রানের জুটি গড়েন। হৃদয় ১৬ রানে আউট হলে ভাঙে জুটিটি। একপাশ আগলে রেখে ইনিংস বড় করছিলেন সৈকত আলী। তবে বেশিদূর এগোতে পারেননি। মিরাজের জাদুতে বন্দি হয়ে ফেরেন ৩৯ রান নিয়ে। যা বরিশালের দলীয় সর্বোচ্চ।
এরপর ইরফান শুক্কুর ১৬ ও জিয়াউর রহমান ১৯ রান করেন।
এর আগে শুরুতে ব্যাট করতে নেমে দলীয় ৬ রানে প্রথম উইকেট হারায় চট্টগ্রাম। নাঈম হাসানের বলে সাজঘরে ফেরেন কেনার লুইস। দলীয় ২২ রানে ফেরেন আফিফ হোসেন। এই ব্যাটারের সংগ্রহ ৬ বলে ৬ রান। নিজেকে হারিয়ে খোঁজা টাইগার ব্যাটার সাব্বির আহমেদও করতে পারেননি সুবিধা। ৮ বলে ৮ করে বরিশালের অধিনায়ক সাকিবের বলে আউট হন তিনি। ২০ বলে ১৬ রান করেন চট্টগ্রামের ইংলিশ ব্যাটার উইল জ্যাকস। দলীয় ৫৬ রানে পঞ্চম উইকেট হিসেবে সাজঘরে ফেরেন মেহেদী হাসান মিরাজ। ২০ বলে মাত্র ৯ রান করে নাঈম হাসানের বলে ক্যাচ তোলেন চট্টগ্রামের অধিনায়ক।
এরপর শামীম হোসেন ১৪ এবং নাঈম ইসলাম ১৫ রান করে আউট হন। ৯৫ রানে ৭ উইকেট হারায় চট্টগ্রাম।
খাদের কিনারায় থাকা দলের হাল ধরেন বেনি হাওয়েল। ঝড়ো ব্যাটিংয়ে করেন ৪১ রান। ২০ বলের দুর্দান্ত ইনিংসটি হাওয়েল সাজান ৩ চার ও ৩ ছক্কায়।
বরিশালের আলজেরি জোশেফ ৪ ওভারে ৩২ রান দিয়ে ৩ উইকেট নেন। নাঈম হাসান নেন ২ উইকেট। ১টি করে উইকেট পান জ্যাক লিনোট, সাকিব আল হাসান ও ডুয়ানে ব্রাভো।
অবশ্যই দিতে হবে *
অবশ্যই দিতে হবে *
অন্যান্য খবর