× প্রচ্ছদ অনলাইনপ্রথম পাতাশেষের পাতাখেলাবিনোদনএক্সক্লুসিভভারতবিশ্বজমিনবাংলারজমিনদেশ বিদেশশিক্ষাঙ্গনরকমারিমত-মতান্তরবই থেকে নেয়া তথ্য প্রযুক্তি শরীর ও মন চলতে ফিরতে কলকাতা কথকতাসেরা চিঠিইতিহাস থেকেঅর্থনীতি
ঢাকা, ২০ মে ২০২২, শুক্রবার , ৬ জ্যৈষ্ঠ ১৪২৯ বঙ্গাব্দ, ১৮ শওয়াল ১৪৪৩ হিঃ

বিআইপি’র ১৫তম কার্যনির্বাহী পরিষদের অভিষেক অনুষ্ঠিত

দেশ বিদেশ

স্টাফ রিপোর্টার
২৩ জানুয়ারি ২০২২, রবিবার

বাংলাদেশ ইনস্টিটিউট অব প্ল্যানার্স (বিআইপি) এর ১৫তম কার্যনির্বাহী পরিষদের অভিষেক অনুষ্ঠিত হয়েছে। একই সঙ্গে নগর পরিকল্পনা পেশা, গবেষণা ও শিক্ষায় বিশেষ অবদানের স্বীকৃতি স্বরূপ জ্যেষ্ঠ পরিকল্পনাবিদকে সংবর্ধনা দেয়া হয়েছে। শনিবার ঢাকাস্থ প্ল্যানার্স টাওয়ারে বিআইপি কনফারেন্স হলরুমে এ অভিষেক ও সংবর্ধনা অনুষ্ঠিত হয়।

বিআইপি’র সভাপতি পরিকল্পনাবিদ মোহাম্মদ ফজলে রেজা সুমন’র সভাপতিত্বে অনুষ্ঠানে প্রধান অতিথি হিসেবে উপস্থিত ছিলেন, ঢাকা উত্তর সিটি করপোরেশন মেয়র মো. আতিকুল ইসলাম। বিশেষ অতিথি হিসেবে উপস্থিত ছিলেন, পরিকল্পনা মন্ত্রণালয়ের প্রতিমন্ত্রী ড. শামসুল আলম এবং বিআইপি’র সাবেক সভাপতি পরিকল্পনাবিদ অধ্যাপক ড. আকতার মাহমুদ। অনুষ্ঠানে স্বাগত্য বক্তব্য রাখেন ইনস্টিটিউট এর যুগ্ম সম্পাদক পরিকল্পনাবিদ মোহাম্মদ রাসেল কবির। নবনির্বাচিত ১৫তম কার্যনির্বাহী পরিষদ এর পক্ষ থেকে বিগত ১৪তম কার্যনির্বাহী পরিষদ সদস্যদের ফুলেল শুভেচ্ছা ও সম্মাননা স্মারক প্রদান করা হয়।

প্রধান অতিথির বক্তব্যে ঢাকা উত্তর সিটি কর্পোরেশন মেয়র মো. আতিকুল ইসলাম নগরের সামগ্রিক উন্নয়নে নগর পরিকল্পনাবিদদের গুরুত্বের কথা তুলে ধরেন। একইসাথে পরিকল্পিত নগরায়নের মাধ্যমে গণপরিসর বৃদ্ধিসহ সকলকে নিয়ে নগর গড়ার আহ্বান জানান। নবনির্বাচিত ১৫তম কার্যনির্বাহী পরিষদ এর সকল সদস্যকে শুভেচ্ছাসহ ও উত্তরোত্তর সফলতা কামনা করেন তিনি।

পরিকল্পনা মন্ত্রণালয়ের প্রতিমন্ত্রী ড. শামসুল আলম তার বক্তব্যে সুষ্ঠু নগর পরিকল্পনায় নগর পরিকল্পনাবিদদের সম্পৃক্ততার গুরুত্বের উপর আলোকপাত করেন।
নগর পরিকল্পনায় বর্তমান সরকার এর লক্ষ্য ও উদ্দেশ্য এবং গৃহীত পদক্ষেপ সমূহ তুলে ধরেন। তিনি বলেন, দীর্ঘমেয়াদী পরিকল্পনা বাস্তবায়নের ফলে মাথাপিছু আয়, কর্মসংস্থান বৃদ্ধিসহ সকল ক্ষেত্রে উন্নয়ন সম্ভব হয়েছে।

বাংলাদেশ ইনস্টিটিউট অব প্ল্যানার্স’র সভাপতি পরিকল্পনাবিদ মোহাম্মদ ফজলে রেজা সুমন তার বক্তব্যের শুরুতেই অনুষ্ঠানের প্রধান অতিথি এবং বিশেষ অতিধিদের ধন্যবাদ জ্ঞাপন করেন। তিনি বিআইপি’র সকল সম্মানিত সদস্যগেদর ভালোবাসা এবং অগ্রজদের দোয়া নিয়ে ১৫তম বোর্ডের কার্যক্রম সফলভাবে এগিয়ে নিয়ে যাওয়ার প্রত্যয় ব্যক্ত করেন। এছাড়াও তিনি আগামী দুই বছর সকলকে সাথে নিয়ে সর্বোচ্চ স্বচ্ছতা এবং জবাবদিহিতার মাধ্যমে ইনস্টিটিউট পরিচালনার আশাবাদ ব্যক্ত করেন। সকলকে সাথে নিয়ে দেশের টেকসই এবং অন্তর্ভূক্তিমূলক উন্নয়ন নিশ্চিতকরণে বর্তমান সরকারকে নিরবিচ্ছিন্নভাবে সহযোগিতা প্রদানের অঙ্গীকার করেন।

বাংলাদেশ ইনস্টিটিউট অব প্ল্যানার্স’র সাবেক সভাপতি পরিকল্পনাবিদ অধ্যাপক ড. আকতার মাহমুদ পরিকল্পনাবিদদের কাজের যথাযথ মূল্যায়ন এবং পরিকল্পিত উন্নয়নের লক্ষ্যে কাজ করার জন্য ঢাকা উত্তর সিটি কর্পোরেশনের মেয়রকে ধন্যবাদ জ্ঞাপন করেন। পরবর্তীতে ১৫তম কার্যনির্বাহী পরিষদ সদস্যগণের শপথ বাক্য পাঠের মাধ্যমে নবনির্বাচিত পরিষদের অভিষেক সম্পন্ন হয়। শপথ বাক্য পাঠ করান বাংলাদেশ ইনস্টিটিউট অব প্ল্যানার্স এর প্রাক্তন সহ-সভাপতি এবং প্রাক্তন উপদেষ্টা পরিষদ সদস্য পরিকল্পনাবিদ অধ্যাপক ড. রুখসানা হাফিয।

নবনির্বাচিত বোর্ড সদস্যদের অভিষেক শেষে ইনস্টিটিউট এর সাধারণ সম্পাদক পরিকল্পনাবিদ শেখ মুহম্মদ মেহেদী আহসান ১৫তম কার্যনির্বাহী পরিষদ এর দ্বি-বার্ষিক কর্মপরিকল্পনার একটি প্রতিবেদন উপস্থাপন করেন। তিনি বলেন, বাংলাদেশের প্রেক্ষিত পরিকল্পনা ২০৪১ অনুযায়ী ২০৪১ সাল নাগাদ বাংলাদেশ বিশ্বে উন্নত রাষ্ট্র হিসেবে প্রতিষ্ঠা লাভ করবে। বাংলাদেশের উন্নয়নের এই অগ্রযাত্রায় জাতীয় পেশাজীবী প্রতিষ্ঠান হিসেবে বাংলাদেশ ইনস্টিটিউট অব প্ল্যানার্স এর ভূমিকার উপর ভিত্তি করে বিআইপি’র ভিশন-২০৪১, মধ্যমেয়াদী পরিকল্পনার রূপরেখা ২০৩০ এবং ২০২২-২০২৩ সালের দ্বি-বার্ষিক কর্ম পরিকল্পনা উপস্থাপন করা হয়। এই দ্বি-বার্ষিক কর্মপরিকল্পনা চারটি স্তম্ভের সমন্বয়ে প্রণয়ন করা হয়েছে, যথা (১) সুষ্ঠু নগর পরিকল্পনার চর্চা, (২) নগর, অঞ্চল ও গ্রামীণ পরিকল্পনাবিদদের ক্ষমতায়ন, (৩) পরিকল্পনা শিক্ষা, গবেষণা ও প্রশিক্ষণ কর্মসূচী এবং (৪) বিআইপি’র প্রতিষ্ঠানিক উন্নয়ন।

অনুষ্ঠানে বিআইপি’র প্রতিষ্ঠাতা সভাপতি পরিকল্পনাবিদ অধ্যাপক ড. গোলাম রহমানকে বাংলাদেশ ইনস্টিটিউট অব প্ল্যানার্স এর পক্ষ থেকে ‘আজীবন সম্মাননা’ সহ নগর পরিকল্পনা পেশা, গবেষণা ও শিক্ষায় অবদানের স্বীকৃতি স্বরূপ আঠারো (১৮) জন জ্যেষ্ঠ পরিকল্পনাবিদকে ‘বিশেষ সম্মাননা’ প্রদান করা হয়। জ্যেষ্ঠ পরিকল্পনাবিদগণের পক্ষে বিশেষ বক্তা হিসেবে বক্তব্য রাখেন বিআইপি’র প্রাক্তন সভাপতি পরিকল্পনাবিদ অধ্যাপক ড. সারোয়ার জাহান।
অবশ্যই দিতে হবে *
অবশ্যই দিতে হবে *
অন্যান্য খবর