× প্রচ্ছদ অনলাইনপ্রথম পাতাশেষের পাতাখেলাবিনোদনএক্সক্লুসিভভারতবিশ্বজমিনবাংলারজমিনদেশ বিদেশশিক্ষাঙ্গনরকমারিমত-মতান্তরবই থেকে নেয়া তথ্য প্রযুক্তি শরীর ও মন চলতে ফিরতে কলকাতা কথকতাসেরা চিঠিইতিহাস থেকেঅর্থনীতি
ঢাকা, ২৯ মে ২০২২, রবিবার , ১৫ জ্যৈষ্ঠ ১৪২৯ বঙ্গাব্দ, ২৭ শওয়াল ১৪৪৩ হিঃ

ভারতে বেড়েছে ৩৩৩ ভাগ পাকিস্তানে ১৩

শেষের পাতা

মানবজমিন ডেস্ক
২৪ জানুয়ারি ২০২২, সোমবার

বিশ্বের দেশে দেশে আবার ভয়াবহ আকার ধারণ করেছে করোনাভাইরাস সংক্রমণ। প্রতিবেশী ভারত ও পাকিস্তানে সংক্রমণ যেন সূচকীয় গতিতে বাড়ছে। ভারতে ২৪ ঘণ্টায় সংক্রমণ বৃদ্ধি পেয়েছে শতকরা ৩৩৩.৩৩ ভাগ। এ সময়ে সংক্রমিত হয়েছেন কমপক্ষে তিন লাখ ৩৩ হাজার মানুষ। মারা গেছেন ৫২৫ জন। পাকিস্তানে একদিনে আক্রান্ত হয়েছেন ৭৫৮৬ জন। এই সংখ্যা করোনা মহামারি শুরুর পর দ্বিতীয় সর্বোচ্চ সংক্রমণ। সেখানে এ সময়ে মারা গেছেন ২০ জন পজেটিভিটির হার বৃদ্ধি পেয়ে দাঁড়িয়েছে শতকরা ১৩ ভাগ।
পাকিস্তানে এ যাবৎ মোট আক্রান্ত হয়েছেন ১৩ লাখ ৬৭ হাজার ৬০৫ জন। মারা গেছেন ২৯ হাজার ৯৭ জন। ওদিকে শীতকালীন বেইজিং অলিম্পিক শুরুর বাকি আর মাত্র কয়েকদিন। এ সময়ে চীনেও বৃদ্ধি পাচ্ছে সংক্রমণ। ফলে সেখানে পরীক্ষা বাড়ানো হয়েছে। রাশিয়াতে টানা তৃতীয় দিনের মতো একদিনে জাতীয় রেকর্ড ভঙ্গ করেছে সংক্রমণ। ২৪ ঘণ্টায় সেখানে নতুন করে আক্রান্ত হয়েছেন কমপক্ষে ৬৩ হাজার ২০৫ জন। আগের দিন শনিবার সেখানে আক্রান্তের সংখ্যা ছিল ৫৭ হাজার ২১২। শুক্রবার আক্রান্ত হয়েছিলেন ৪৯ হাজার ৫১৩ জন। চীনের রাজধানী বেইজিংয়ে ব্যাপক হারে করোনা পরীক্ষার নির্দেশ দেয়া হয়েছে। সেখানকার ফেংতাই এলাকায় গতকাল রোববার সব অধিবাসীর নিউক্লিক এসিড টেস্ট করানোর কথা। কেনাকাটা, ঘরের বাইরে বেরুলে মুখে মাস্ক পরতে বলা হয়েছে সবাইকে।
দক্ষিণ কোরিয়ায় গত ২৪ ঘণ্টায় দ্বিতীয় সর্বোচ্চ সংখ্যক মানুষ আক্রান্ত হয়েছেন নতুন করে। আসন্ন নতুন চন্দ্রবর্ষের ছুটি সেখানে। এ সময় ব্যাপক আয়োজন করেন দেশটির জনগণ। তারা দেশের এক প্রান্ত থেকে অন্যপ্রান্ত পর্যন্ত সফর করেন এ সময়ে। এটা তাদের প্রধান অবকাশগুলোর অন্যতম। তাই লাখ লাখ মানুষ পরিবারের সদস্যদের কাছে ছুটে যান। ফলে সংক্রমণ আরও বৃদ্ধি পাওয়ার আশঙ্কা করা হচ্ছে। সরকারি হিসাবে সেখানে মোট ৭ লাখ ৩৩ হাজার ৯০২ জন আক্রান্ত হওয়ার খবর পাওয়া গেছে। মারা গেছেন ৬৫৪০ জন। অস্ট্রেলিয়ায় একদিনে মারা গেছেন ৫৮ জন। সবচেয়ে জনবহুল নিউ সাউথ ওয়েলস ও ভিক্টোরিয়া রাজ্যে এসব মৃত্যু হয়েছে। সেখানে সপ্তাহে দু’বার শিক্ষার্থীদের ওমিক্রন পরীক্ষার কথা বলা হয়েছে।
ওদিকে ওমিক্রন ভ্যারিয়েন্টের কারণে নিজের বিয়ে বাতিল করেছেন নিউজিল্যান্ডের প্রধানমন্ত্রী জাসিন্দা আরডেন। ওমিক্রন বিস্তার রোধে তিনি দেশজুড়ে নতুন বিধিনিষেধ জারি করেছেন।
অবশ্যই দিতে হবে *
অবশ্যই দিতে হবে *
পাঠকের মতামত
**মন্তব্য সমূহ পাঠকের একান্ত ব্যক্তিগত। এর জন্য সম্পাদক দায়ী নন।
Anwarul Azam
২৪ জানুয়ারি ২০২২, সোমবার, ১২:১৭

অমিক্রন। মৃত্যুর হার কম। করোনাভাইরাস। মৃত্যুর হার বেশী। সংক্রমণ বেশী হলেও ধীরে ধীরে তা'কমছে। তবে সাবধানে থাকুন ভাল থাকুন। টিকা নিন। টিকা বিহীন না থাকাই মন্দের ভালো। হু তাই বলে। আমেরিকান শীর্ষ সংকারামক রোগ বিশেষজ্ঞ ড.ফাউচিও তাই বলেন। অমিক্রন মহামারী এবার বিদায় নিতে পারে । তবে সাধারণ রোগ হিসেবে থেকে যাবে। তার কথা হল অপেক্ষা করতে হবে।

Kazi
২৪ জানুয়ারি ২০২২, সোমবার, ১২:১২

মুসলিম দেশ গুলিতে করোনার সংক্রমণ আগেও কম ছিল এখনও কম। এর কারণ পরিষ্কার পরিচ্ছন্নতা। দৈনিক ৫ বার অজুর কারণে স্বাস্থ্য বিধি অনেকটাই পরিপূর্ণ হয়। হিন্দুদের পূজার জন্য পরিষ্কার পরিচ্ছন্নতা অপরিহার্য নয়। তাই ঐ সব স্থানে বা সমাগম হলে তা সংক্রমণে সহায়ক হয়।

অন্যান্য খবর