× প্রচ্ছদ অনলাইনপ্রথম পাতাশেষের পাতাখেলাবিনোদনএক্সক্লুসিভভারতবিশ্বজমিনবাংলারজমিনদেশ বিদেশশিক্ষাঙ্গনরকমারিমত-মতান্তরবই থেকে নেয়া তথ্য প্রযুক্তি শরীর ও মন চলতে ফিরতে কলকাতা কথকতাসেরা চিঠিইতিহাস থেকেঅর্থনীতি
ঢাকা, ২৬ মে ২০২২, বৃহস্পতিবার , ১২ জ্যৈষ্ঠ ১৪২৯ বঙ্গাব্দ, ২৪ শওয়াল ১৪৪৩ হিঃ

শেষের নাটকে হার এড়ালো রিয়াল মাদ্রিদ

খেলা

স্পোর্টস ডেস্ক
২৪ জানুয়ারি ২০২২, সোমবার

কোপা দেল রের শেষ ষোলোয় ঘরের মাঠে তুমুল প্রতিদ্বন্দ্বিতা করেও রিয়াল মাদ্রিদকে পরাস্ত করতে পারেনি এলচে। জয় পেতে ১১৫ মিনিট পর্যন্ত লড়াই করতে হয়েছে লস ব্লাঙ্কোদের। দুই দিনের ব্যবধানে আরো একটি মঞ্চে রিয়ালের মুখোমুখি ফ্র্যান এস্ক্রিবার দল। এবার সান্তিয়াগো বার্নাব্যুতে কার্লো আনচেলত্তির শিষ্যদের টুটি চেপে ধরে এলচে। ৮২ মিনিট পর্যন্ত দুই গোলে এগিয়েও থাকে সফরকারীরা। তবে শেষ আট মিনিটের নাটকীয়তায় নিশ্চিত হার এড়ায় স্বাগতিক রিয়াল মাদ্রিদ। রোববার রাতে স্প্যানিশ লা লিগার ম্যাচটি ২-২তে ড্র হয়।

হারের শঙ্কায় থাকলেও গোটা ম্যাচে বল দখল এবং আক্রমণে এগিয়ে ছিল রিয়াল মাদ্রিদ। ৬৫ শতাংশ বল দখলে রেখে ২৩টি শট নেয় লস ব্লাঙ্কোরা।
যার মধ্যে লক্ষ্যে ছিল ৮টি। অপরদিকে মাত্র ৩৫ শতাংশ বল দখলে রাখা এলচে ৩টি শটে দুটিই লক্ষ্যভেদ করে।
ম্যাচ শুরু হয়েছিল কিংবদন্তি পাকো হেন্তোর প্রতি শ্রদ্ধা জানিয়ে। ম্যাচ শুরু হওয়ার আগে রিয়ালের সব খেলোয়াড় নেমেছিলেন হেন্তোর ১১ নম্বর জার্সি পরে। গত সপ্তাহেই না ফেরার দেশে পাড়ি জমান মাদ্রিদের হয়ে ৬টি চ্যাম্পিয়নস লীগ ও ১২টি লা লিগা জেতা এই উইঙ্গার। তবে সান্তিয়াগো বার্নাব্যুতে হেন্তোর স্মরণটা সুখকর করতে পারেনি বেনজেমা-ভিনিসিউসরা।

ম্যাচের শুরু থেকে রিয়াল আক্রমণে ওঠার চেষ্টা করলেও প্রতিপক্ষের জমাট রক্ষণে সুবিধা করতে পারছিল না। একাদশ মিনিটে প্রথম সুযোগ পেয়ে ছয় গজ বক্সের বাইরে থেকে গোলরক্ষককে ফাঁকি দিতে পারেননি ভিনিসিউস জুনিয়র। ২৭তম মিনিটে গোলরক্ষক বরাবর শট নেন করিম বেনজেমা।

৩০তম মিনিটে মদ্রিচের শট দারুণভাবে পা বাড়িয়ে ঠেকিয়ে দেন এলচে গোলরক্ষক এদগার বাদিয়া। দুই মিনিট পরই ডি-বক্সে ভিনিসিউস ফাউলের শিকার হলে পেনাল্টি পায় রিয়াল। কিন্তু ক্রসবারে মেরে বসেন এখন পর্যন্ত আসরে সর্বোচ্চ ১৭ গোল করা করিম বেনজেমা।

৪২তম মিনিটে এগিয়ে যায় এলচে। বাঁ থেকে মিডফিল্ডার ফিদেলের বাড়ানো ক্রসে ডাইভিং হেডে গোলটি করেন আর্জেন্টাইন ফরোয়ার্ড বোয়ে।

৭১তম মিনিটে ভালো একটি সুযোগ কাজে লাগাতে ব্যর্থ হয় রিয়াল। তবে ডিফেন্ডার পালাসিওকে কাটানোর পর শট লক্ষ্যে রাখতে পারেননি ভিনিসিউস।

পাঁচ মিনিট পরই দ্বিতীয় গোল হজম করে রিয়াল। বোয়ের পাস ডি-বক্সে ধরে সময় নিয়ে কোনাকুনি শটে ঠিকানা খুঁজে নেন মিয়া।
৮২ মিনিটে দারুণভাবে ম্যাচে ফেরে রিয়াল। মদ্রিচের কর্নারে ডি-বক্সে এলচে ফরোয়ার্ড মিয়ার হাতে বল লাগলে ভিএআরের সাহায্যে পেনাল্টি দেন রেফারি। সফল স্পট কিকে বল জালে পাঠান ক্রোয়াট মিডফিল্ডার।

আর যোগ করা সময়ের দ্বিতীয় মিনিটে সমতা টানেন মিলিতাও। স্বদেশি ফরোয়ার্ড ভিনিসিউসের ক্রসে হেডে গোলটি করেন ব্রাজিলিয়ান ডিফেন্ডার।

লা লিগায় ২২ ম্যাচে ১৫ জয় ও পাঁচ ড্রয়ে রিয়ালের পয়েন্ট ৫০। ৪৬ পয়েন্ট নিয়ে দুইয়ে সেভিয়া।
অবশ্যই দিতে হবে *
অবশ্যই দিতে হবে *
অন্যান্য খবর