× প্রচ্ছদ অনলাইনপ্রথম পাতাশেষের পাতাখেলাবিনোদনএক্সক্লুসিভভারতবিশ্বজমিনবাংলারজমিনদেশ বিদেশশিক্ষাঙ্গনরকমারিমত-মতান্তরবই থেকে নেয়া তথ্য প্রযুক্তি শরীর ও মন চলতে ফিরতে কলকাতা কথকতাসেরা চিঠিইতিহাস থেকেঅর্থনীতি
ঢাকা, ১৯ মে ২০২২, বৃহস্পতিবার , ৫ জ্যৈষ্ঠ ১৪২৯ বঙ্গাব্দ, ১৭ শওয়াল ১৪৪৩ হিঃ

কলকাতা কথকতা /সন্ধ্যা মুখোপাধ্যায়কে অপমান করা হয়েছে, গর্জে উঠলেন বাংলার বুদ্ধিজীবীরা

কলকাতা কথকতা

জয়ন্ত চক্রবর্তী, কলকাতা
(৩ মাস আগে) জানুয়ারি ২৭, ২০২২, বৃহস্পতিবার, ৮:১৪ অপরাহ্ন

বিশিষ্ট গায়িকা সন্ধ্যা মুখোপাধ্যায়কে অপমান করেছে কেন্দ্রীয় সরকার। যে সম্মান তাঁকে বহুদিন আগে দেয়া উচিত ছিল সেই সম্মান এখন না দিয়ে তাঁকে ভারতরতœ দেয়া উচিত ছিল। কবির সুমন ও শুভপ্রসন্ন এর নেতৃত্বে বাংলার একদল বুদ্ধিজীবী গর্জে উঠলেন সাধারণতন্ত্র দিবসের দুপুরে, প্রেস ক্লাবে তড়িঘড়ি ডাকা এক সাংবাদিক সম্মেলনে  কবির সুমন বলেন, কেন্দ্রে যারা ক্ষমতায় আছে তারা বাংলার সংস্কৃতি সম্পর্কে বিন্দুমাত্র জ্ঞাত নয়। জ্ঞাত থাকলে তাঁরা জানতেন যে নব্বই বছরের মধ্যে পঁচাওর বছর সুরসাধনা যিনি করেছেন তার প্রাপ্য হতে পারেনা পদ্মশ্রী। সন্ধ্যা মুখোপাধ্যায় এর ভারতরতœ  পাওয়া উচিত ছিল। শুভপ্রসন্ন   বলেন, সন্ধ্যা মুখোপাধ্যায় এর  সমসাময়িক অথবা তাঁর অনুজদের মধ্যে অনেকেই পদ্মশ্রী পেয়ে গেছেন। এতদিন বাদে সন্ধ্যাদি কে এই সম্মান দেওয়া মানে তাঁকে অপমান করা। বাংলার বিদ্ব জগৎ এ ব্যাপারে প্রতিবাদ জানাচ্ছে।
উল্লেখযোগ্য, মঙ্গলবার রাতেই পদ্মশ্রী সম্মান প্রত্যাখ্যান করেন সন্ধ্যা মুখোপাধ্যায়। তাঁর মেয়ে সৌমি সেনগুপ্ত বলেন, নব্বই বছর বয়েসে খেতাব দেয়ার বিষয়টি অর্থহীন তামাশা ছাড়া আর কিছু নয়।       
অবশ্যই দিতে হবে *
অবশ্যই দিতে হবে *
পাঠকের মতামত
**মন্তব্য সমূহ পাঠকের একান্ত ব্যক্তিগত। এর জন্য সম্পাদক দায়ী নন।
Anwarul Azam
৩১ জানুয়ারি ২০২২, সোমবার, ১:০১

সন্ধা বা হেমন্ত এদের গান শুনেনি এমন কেউ দু'বাংলায় বোধ করি আছে বলে মনে হয় না। ৭০ বা তারও বেশী সময় ধরে তাদের গানগুলো আজও সমান জনপ্রিয়। ভারত রত্ন কেন যত বড়োই খেতাব হোকনা কেন তাদের জন্য খুবই ছোট বৈকি, সমমানের জায়গাটা বিশাল।

আকাশ
২৬ জানুয়ারি ২০২২, বুধবার, ৬:৪৩

এর চেয়ে বড় অপমান করা হয়েছে হেমন্ত মুখোপাধ্যায়কে। তৎকালীন পশ্চিমবংগ রাজ্য সরকার এবং বুদ্ধিজীবী সমাজ এই দায় কোন দিন এড়াতে পারবেন না।

অন্যান্য খবর