× প্রচ্ছদ অনলাইনপ্রথম পাতাশেষের পাতাখেলাবিনোদনএক্সক্লুসিভভারতবিশ্বজমিনবাংলারজমিনদেশ বিদেশশিক্ষাঙ্গনরকমারিমত-মতান্তরবই থেকে নেয়া তথ্য প্রযুক্তি শরীর ও মন চলতে ফিরতে কলকাতা কথকতাসেরা চিঠিইতিহাস থেকেঅর্থনীতি
ঢাকা, ১৬ মে ২০২২, সোমবার , ২ জ্যৈষ্ঠ ১৪২৯ বঙ্গাব্দ, ১৪ শওয়াল ১৪৪৩ হিঃ

বন্ধুর বাসায় আত্মগোপনে যায় চালক

দেশ বিদেশ

স্টাফ রিপোর্টার
২৮ জানুয়ারি ২০২২, শুক্রবার

রাজধানীর বেইলী রোডে পিকআপের ধাক্কায় ডিম বহনকারী ভ্যানচালক নূর আলম (৩৩) নিহতের ঘটনায় একজনকে গ্রেপ্তার করেছে র‌্যাব। গ্রেপ্তারকৃত জসিম উদ্দিন র‌্যাবকে জানায়, সে দুর্ঘটনার পর ট্রাকটি রেখে ঘটনাস্থল থেকে পালিয়ে যায়। এরপর সিমেন্ট কোম্পানির কর্তৃপক্ষের সঙ্গে যোগাযোগ করে। পরবর্তীতে তার প্রতিষ্ঠান থেকে তাকে আত্মগোপনে যাওয়ার পরামর্শ দিলে সে চট্টগ্রামে তার এক বন্ধুর বাসায় আত্মগোপনে যায়। গতকাল দুপুরে রাজধানীর কাওরান বাজারে র‌্যাবের মিডিয়া সেন্টারে আয়োজিত সংবাদ সম্মেলনে এসব তথ্য জানান র‌্যাবের লিগ্যাল অ্যান্ড মিডিয়া উইংয়ের পরিচালক কমান্ডার খন্দকার আল মঈন।
তিনি বলেন, গত ২৪শে জানুয়ারি রাজধানীর বেইলি রোডে ভোর সাড়ে ৫টায় একটি সিমেন্ট কোম্পানির ট্রাক বেপরোয়া গতিতে চালানোর কারণে ডিম বহনকারী দু’টি ভ্যানকে পিছন থেকে সজোরে ধাক্কা দেয়। এতে ভ্যান চালক তুহিন (৩০) রাস্তায় ছিটকে পড়ে আহত হয় এবং অপর চালক নূর আলম (৩৩) ট্রাকের নিচে চাপা পড়ে। ফলে ভ্যান দু’টি দুমড়ে-মুচড়ে যায়। ঘটনাস্থল হতে তাদেরকে আহত অবস্থায় উদ্ধার করে ঢাকা মেডিকেল কলেজ হাসপাতালে নিয়ে গেলে কর্তব্যরত চিকিৎসক নূর আলমকে মৃত ঘোষণা করেন।
চিকিৎসা শেষে তুহিনকে হাসপাতাল থেকে ছেড়ে দেয়া হয়। দুর্ঘটনা-পরবর্তী ঘাতক চালক ট্রাকটি রেখে পালিয়ে যায়। এ ঘটনায় দেশব্যাপী ব্যাপক চাঞ্চল্যের সৃষ্টি হয়। ওই দুর্ঘটনায় নিহতের পরিবারের সদস্যরা সড়ক ও পরিবহন আইনে রমনা মডেল থানায় একটি মামলা করেন। যার মামলা নং-২০। এরপর র‌্যাব জড়িতদের আইনের আওতায় নিয়ে আসতে গোয়েন্দা নজরদারি বৃদ্ধি করে।
খন্দকার আল মঈন বলেন, নিহত নূর আলমের গ্রামের বাড়ি দিনাজপুর জেলার পার্বতীপুর উপজেলায়। ঢাকার তেজগাঁও রেলস্টেশনের পাশে ছোট একটি রুম ভাড়া নিয়ে পরিবার নিয়ে বসবাস করতেন। নূর আলম তার পরিবারের একমাত্র উপার্জনক্ষম ব্যক্তি। তিনি দৈনিক ভিত্তিতে তেজগাঁওয়ের একটি ডিমের আড়তের ভ্যানচালক হিসেবে কাজ করতেন। তিনি প্রতিদিন ভোরে আড়ত থেকে ডিম নিয়ে ভ্যানে করে দোকানে দোকানে ডিম সরবরাহ করে জীবিকা নির্বাহ করতেন। ঘটনার দিন রাজধানীর তেজগাঁও আড়ত থেকে ডিম নিয়ে জিনজিরায় বিভিন্ন দোকানে সরবরাহের জন্য যাচ্ছিলেন। নূর আলমের টানাপড়নের সংসারে স্বামীকে হারিয়ে তার স্ত্রী একমাত্র শিশুকন্যাকে নিয়ে বর্তমানে অসহায় দিন কাটাচ্ছেন।
র‌্যাবের এই কর্মকর্তা বলেন, এরই ধারাবাহিকতায় র‌্যাব সদর দপ্তর গোয়েন্দা শাখা, র‌্যাব-৩ এবং র‌্যাব-৭ এর যৌথ অভিযানে গত ২৬শে জানুয়ারি চট্টগ্রাম চাদগাঁও এলাকা হতে ঘাতক ট্রাকের চালক মো. জসিম উদ্দিন (৩২)কে গ্রেপ্তার করা হয়। প্রাথমিক জিজ্ঞাসাবাদে গ্রেপ্তারকৃত বর্ণিত ঘটনায় তার সংশ্লিষ্টতার তথ্য দেয়। জিজ্ঞাসাবাদে গ্রেপ্তারকৃত জসিম জানায়, সে প্রায় ১০ বছর গাবতলীর ট্রাক স্ট্যান্ড হতে বিভিন্ন স্থানে ইট/বালু বহনকারী ট্রাক চালাতো। চলতি মাসের প্রথম দিকে ওই সিমেন্ট কোম্পানিতে মাসিক ৮ হাজার টাকা বেতনে ট্রাক চালক হিসেবে যোগদান করে। ঘাতক ট্রাকটি সে ১ মাস চালিয়ে আসছে। গত ২৩শে জানুয়ারি  রাত ৯টার সময় সিমেন্ট ভর্তি ট্রাকটি নিয়ে মুন্সীগঞ্জ হতে রাজধানীর উত্তরার উদ্দেশ্য রওনা দেয়।
ট্রাকটি থেকে সিমেন্ট নামিয়ে গত ২৪শে জানুয়ারি রাত ৪টায় রাজধানীর উত্তরা হতে মুন্সীগঞ্জে যাওয়ার উদ্দেশ্যে রওনা হলে ভোর সাড়ে ৫টায় রাজধানীর বেইলি রোডে ওই ট্রাকটি বেপরোয়া গতিতে সামনে থাকা দু’টি ডিম বোঝাই ভ্যান গাড়িসহ চালকদের পিছন থেকে জোরে ধাক্কা দেয়। জসিম আরও জানায়, ওই দুর্ঘটনার পর সে ট্রাকটি রেখে ঘটনাস্থল থেকে পালিয়ে তার সিমেন্ট কোম্পানির কর্তৃপক্ষের সঙ্গে যোগাযোগ করে। পরবর্তীতে তার প্রতিষ্ঠান হতে তাকে আত্মগোপনে থাকার পরামর্শ দিলে চট্টগ্রামে অবস্থানরত তার এক বন্ধুর বাসায় আত্মগোপন করে।
অবশ্যই দিতে হবে *
অবশ্যই দিতে হবে *
অন্যান্য খবর