× প্রচ্ছদ অনলাইনপ্রথম পাতাশেষের পাতাখেলাবিনোদনএক্সক্লুসিভভারতবিশ্বজমিনবাংলারজমিনদেশ বিদেশশিক্ষাঙ্গনরকমারিমত-মতান্তরবই থেকে নেয়া তথ্য প্রযুক্তি শরীর ও মন চলতে ফিরতে কলকাতা কথকতাসেরা চিঠিইতিহাস থেকেঅর্থনীতি
ঢাকা, ১৮ মে ২০২২, বুধবার , ৪ জ্যৈষ্ঠ ১৪২৯ বঙ্গাব্দ, ১৬ শওয়াল ১৪৪৩ হিঃ

মহানন্দা নদীর রাবার ড্যাম গতি আনবে চাঁপাই নবাবগঞ্জের কৃষি অর্থনীতিতে

বাংলারজমিন

চাঁপাই নবাবগঞ্জ প্রতিনিধি
২৯ জানুয়ারি ২০২২, শনিবার

দীর্ঘ প্রতীক্ষার পর প্রধানমন্ত্রী প্রতিশ্রুত মহানন্দা নদীতে রাবার ড্যাম নির্মাণ কাজ শুরু করা হয়েছে। বাংলাদেশ নৌবাহিনী পরিচালিত বাণিজ্যিক প্রতিষ্ঠান ডকইয়ার্ডস অ্যান্ড ইঞ্জিনিয়ারিং ওয়ার্কস লিমিটেড মহানন্দা নদীতে রাবার ড্যাম নির্মাণ কাজ শুরু করেছে। চাঁপাই নবাবগঞ্জ শহরের বীরশ্রেষ্ঠ ক্যাপ্টেন মহিউদ্দিন জাহাঙ্গীর সেতুর ৫০০ মিটার ভাটিতে রাবার ড্যাম নির্মাণের কর্মযজ্ঞ চলছে। গেল বছরের ১লা নভেম্বর রাবার ড্যাম নির্মাণ কাজ শুরু হয়েছে। ২০২৩ সালের মে মাসের মধ্যে এর নির্মাণ কাজ শেষ করার লক্ষ্যমাত্রা ধরা হয়েছে।
বিশেষজ্ঞদের মতে, মহানন্দা নদীতে রাবার ড্যাম নির্মিত হলে কৃষিখাতের সম্প্রসারণ হবে। বাড়বে ফসল ও মাছের উৎপাদন। ফলে চাঁপাই নবাবগঞ্জের কৃষি অর্থনৈতিতে সমৃদ্ধির গতি ত্বরান্বিত হবে। বারার ড্যাম নির্মিত হলে কীভাবে চাঁপাই নবাবগঞ্জের কৃষি অর্থনীতিতে প্রভাব পড়বে, তা পাওয়া যায় ‘মহানন্দা নদীতে রাবার ড্যাম নির্মাণ প্রকল্প প্রস্তাবনায়।
এ প্রকল্পটি এলাকার মানুষের আর্থ-সামাজিক উন্নয়নে অনন্য ভূমিকা রাখবে। প্রকল্প প্রস্তাবনায় বলা হয়, এ প্রকল্পের ফলে মহানন্দা নদীর প্রবাহ ও নিষ্কাশন সক্ষমতা বৃদ্ধির পাশাপাশি কৃষি কাজে ৮ হাজার হেক্টর জমিতে সেচ সুবিধা বৃদ্ধি পাবে। এতে ৫৫ কোটি ৮৩ লাখ টাকার কৃষি উৎপাদন বৃদ্ধি পাবে। এছাড়াও এতে দুই কোটি ৩৭ লাখ টাকার মৎস্য উৎপাদনের মাধ্যমে এলাকার জনগণের আর্থ-সামাজিক অবস্থার উন্নয়ন হবে। ৩৬ কিলোমিটার নদী খনন, প্রায় ৭ হেক্টর জমি অধিগ্রহণ, রাবার ড্যাম নির্মাণ, ওয়াকওয়ে নির্মাণসহ বিভিন্ন কার্যক্রম থাকবে এ প্রকল্পের অধীনে। প্রকল্পের পরিকল্পনায় এ প্রকল্পটিকে লাভজনক হিসেবে উল্লেখ করা হয়েছে। জানা গেছে, চাঁপাই নবাবগঞ্জের মহানন্দা নদীর নাব্য ঠিক রাখতে ড্রেজিং ও ভাঙনরোধে রাবার ড্যাম নির্মাণ প্রকল্পটি প্রক্রিয়াকরণ শুরু হয় ২০১৭ সালের জানুয়ারিতে। ২০১৮ সালের ১৬ই জানুয়ারি জাতীয় অর্থনৈতিক পরিষদের নির্বাহী কমিটিতে (একনেক) পাস হয়। এজন্য ১৮৭ কোটি ৩১ লাখ ৬৩ হাজার টাকা ব্যয় প্রাক্কলন করে প্রকল্প প্রক্রিয়াকরণ করে পরিকল্পনা কমিশন। পরিকল্পনা কমিশনের কৃষি, পানিসম্পদ ও পল্লী প্রতিষ্ঠান বিভাগের সেচ উইংয়ের সংশ্লিষ্ট সিদ্ধান্ত অনুসারে এ প্রকল্পটি বাস্তবায়ন হবে। পানি উন্নয়ন বোর্ডের কর্মকর্তারা বলছেন, ৩৫৩ মিটার দীর্ঘ রাবার ড্যামটি নির্মাণ সম্পন্ন হলে শুষ্ক মৌসুমে মহানন্দায় পানি ধরে রেখে বিস্তীর্ণ বরেন্দ্র অঞ্চলে অধিকতর সেচ সুবিধা নিশ্চিত করা যাবে। আর এতে এ অঞ্চলে ফসল উৎপাদন দ্বিগুণ হবে। এছাড়া মহানন্দা নদী খননের ফলে নদীর গভীরতার পাশাপাশি বাড়বে নাব্য ও পানি। এতে মৎস্য প্রজনন ও আহরণের আরও সুযোগ সৃষ্টি হবে। বদলে যাবে এই এলাকার মানুষের অর্থনৈতিক দৃশ্যপট। চাঁপাই নবাবগঞ্জ সদর উপজেলা কৃষি সম্প্রসারণ কর্মকর্তা সালেহ আকরাম বলেন, শুষ্ক মৌসুমে নদীতে পানি হ্রাস পাওয়ায় ভূগর্ভস্থ পানির স্তরও নেমে যায়। ফলে গভীর-অগভীর নলকূপ দ্বারা সেচ কাজ ব্যয়বহুল হয়ে পড়ে। মহানন্দায় রাবার ড্যাম নির্মাণ সম্পন্ন হলে সেচ সুবিধা নিশ্চিত হবে চাষীদের। কম খরচে কৃষকরা বিভিন্ন ধরনের কৃষিপণ্য উৎপাদন করতে পারবে। রাবার ড্যাম প্রকল্পটি বাস্তবায়িত হলে কৃষিতে গুরুত্বপূর্ণ অবদান রাখবে বলে জানান এ কৃষি কর্মকর্তা। এ প্রসঙ্গে এক্সিম ব্যাংক কৃষি বিশ্ববিদ্যালয়ের কৃষি অর্থনীতি বিভাগের চেয়ারম্যান ড. আশরাফুল আরিফ বলেন, কৃষিনির্ভর জনপদ চাঁপাই নবাবগঞ্জ। এ জেলার অর্থনীতি কৃষির উপর নির্ভরশীল। রাবার ড্যাম কৃষি উপযোগী একটি প্রকল্প। এটি বাস্তবায়ন হলে চাষীদের সেচ সুবিধা নিশ্চিত হবে। বাড়বে ফল, ফসল ও মাছের উৎপাদন। ফলে চাঁপাই নবাবগঞ্জের অর্থনৈতিতে সমৃদ্ধির গতি ত্বরান্বিত হবে। এলাকার মানুষের অর্থনৈতিক জীবন ধারা বদলে যাবে। উল্লেখ্য, ২০১১ সালের মে মাসে প্রধানমন্ত্রী শেখ হাসিনা চাঁপাই নবাবগঞ্জ সফরে এসে স্থানীয় মানুষের দাবির পরিপ্রেক্ষিতে মহানন্দা নদীতে আন্তর্জাতিক মানের রাবার ড্যাম নির্মাণের ঘোষণা দেন। সে অনুযায়ী প্রধানমন্ত্রীর কার্যালয় থেকে ব্যবস্থা নিতে পানি উন্নয়ন বোর্ডকে নির্দেশনা দেয়া হয়। পরে পরিকল্পনা কমিশনে এ-সংক্রান্ত পিইসি সভা হয় ২০১৩ সালের সেপ্টেম্বরে। প্রয়োজনীয় সমীক্ষা চালানোর জন্য আইডবিউএমকে নিয়োগ দেয়া হয়। আইডবিউএম এ-সংক্রান্ত চূড়ান্ত ফিজিবিলিটি স্টাডি ও ইআইএ প্রতিবেদন দাখিল করে। তার ভিত্তিতেই প্রকল্পটির পরিকল্পনা সম্পন্ন করা হয়।
অবশ্যই দিতে হবে *
অবশ্যই দিতে হবে *
অন্যান্য খবর