× প্রচ্ছদ অনলাইনপ্রথম পাতাশেষের পাতাখেলাবিনোদনএক্সক্লুসিভভারতবিশ্বজমিনবাংলারজমিনদেশ বিদেশশিক্ষাঙ্গনরকমারিমত-মতান্তরবই থেকে নেয়া তথ্য প্রযুক্তি শরীর ও মন চলতে ফিরতে কলকাতা কথকতাসেরা চিঠিইতিহাস থেকেঅর্থনীতি
ঢাকা, ২৩ মে ২০২২, সোমবার , ৯ জ্যৈষ্ঠ ১৪২৯ বঙ্গাব্দ, ২১ শওয়াল ১৪৪৩ হিঃ

নাদালের রেকর্ডের পথে বাধা মেদভেদেভ

খেলা

স্পোর্টস ডেস্ক
২৯ জানুয়ারি ২০২২, শনিবার

উন্মুক্ত যুগে পুরুষ এককে সর্বাধিক গ্র্যান্ড স্লাম জিতেছেন তিনজন- রজার ফেদেরার, নোভাক জকোভিচ ও রাফায়েল নাদাল। সমান ২০টি করে শিরোপা রয়েছে প্রত্যেকেরই। তবে রাফায়েল নাদালের সামনে এখন বাকি দু’জনকে ছাড়িয়ে যাওয়ার সুযোগ। মাত্তেও বেরত্তিনিকে হারিয়ে গতকাল অস্ট্রেলিয়ান ওপেনের ফাইনালে উঠেছেন নাদাল। অর্থাৎ মাত্র একটি জয় হলেই এককভাবে রেকর্ডটি গড়ে ফেলবেন এই স্প্যানিয়ার্ড। সেজন্য নাদালকে হারাতে হবে দানিল মেদভেদেভকে। অন্য সেমিফাইনালে স্তেফানোস সিটসিপাসকে হারিয়ে টানা দ্বিতীয়বারের মতো অস্ট্রেলিয়ান ওপেনের ফাইনালে উঠেছেন মেদভেদেভ।
রড লেভার এরেনায় ইতালিয়ান তারকা বেরেত্তেনির বিপক্ষে নাদালের জয়টা ৬-৩, ৬-২, ৩-৬, ৬-৩ গেমের।
ক্যারিয়ারে ষষ্ঠবারের মতো অস্ট্রেলিয়ান ওপেনের ফাইনালে উঠলেন তিনি। তবে শিরোপা জিততে পেরেছেন কেবল একবারই। ২০০৯ সালে রজার ফেদেরারকে হারিয়ে এই টুর্নামেন্টে প্রথম সাফল্যের দেখা পান নাদাল। এরপর ২০১২তে নোভাক জকোভিচ, ২০১৪তে স্তান ভাভারিঙ্কা, ২০১৭তে ফেদেরার এবং সবশেষ ২০১৯-এ হারেন জকোভিচের কাছে। মেদভেদেভ গতবারও সেমিতে হারিয়েছিলেন সিটসিপাসকে। এরপর ফাইনালে জকোভিচের কাছে হার নেমেছিলেন তিনি। এবার রড লেভার এরেনায় গ্রিক তারকার সিটসিপাসের বিপক্ষে মেদেভেদেভ জিতেছেন ৭-৬ (৭/৫), ৪-৬, ৬-৪, ৬-১ গেমে।
গ্র্যান্ড স্লাম টুর্নামেন্টের নাদাল-মেদভেদেভের দ্বিতীয় ফাইনাল এটি। এর আগে ২০১৯ ইউএস ওপেনের ফাইনালে মেদভেদেভকে হারান নাদাল। চার দেখায় তিন জয় নিয়ে এগিয়ে রয়েছেন তিনি। তবে ২০২০ সালে সবশেষ দেখায় নাদালকে হারের স্বাদ দিয়েছিলেন মেদভেদেভ। দ্বিতীয় বাছাই হিসেবে টুর্নামেন্ট খেলতে আসা এই রাশান গত বছর শেষ করেন ইউএস ওপেনের শিরোপা জিতে। নাদালের মুখোমুখি হওয়া নিয়ে তিনি বলেন, ‘আমি ইতিহাসের অন্যতম সেরা টেনিস তারকার বিপক্ষে ফাইনাল খেলতে যাচ্ছি। গ্র্যান্ড স্লাম ফাইনাল সবসময়ই স্পেশাল। আমি প্রস্তুত। আমি জানি রাফা অনেক শক্তিশালী খেলোয়াড়। আমি জানি, ম্যাচটা জিততে আমাকে সেরাটাই দিতে হবে।’
টুর্নামেন্টের কিছুদিন আগেও নাদাল জানতেন না তিনি অস্ট্রেলিয়ান ওপেনে অংশ নেবেন কিনা। ইনজুরি আর কোভিডের কারণে তার অংশগ্রহণ অনিশ্চিত ছিল। সব বাধা পেরিয়ে সেই নাদালই এখন ফাইনালে। ম্যাচের পর তিনি বলেন, ‘এখানে আমি নোভাকের বিপক্ষে ২০১২ এবং রজারের বিপক্ষে ২০১৭তে প্রতিদ্বন্দ্বিতাপূর্ণ ফাইনাল খেলেছি। একবার ২০০৯-এ জেতার সৌভাগ্য হয়েছিল। কিন্তু ২০২২-এ এসে আরেকটা ফাইনাল খেলবো তা কখনো ভাবিনি। এখন এই জয়কে উপভোগ করতে চাই।’
অবশ্যই দিতে হবে *
অবশ্যই দিতে হবে *
অন্যান্য খবর