× প্রচ্ছদ অনলাইনপ্রথম পাতাশেষের পাতাখেলাবিনোদনএক্সক্লুসিভভারতবিশ্বজমিনবাংলারজমিনদেশ বিদেশশিক্ষাঙ্গনরকমারিমত-মতান্তরবই থেকে নেয়া তথ্য প্রযুক্তি শরীর ও মন চলতে ফিরতে কলকাতা কথকতাসেরা চিঠিইতিহাস থেকেঅর্থনীতি
ঢাকা, ১৮ মে ২০২২, বুধবার , ৪ জ্যৈষ্ঠ ১৪২৯ বঙ্গাব্দ, ১৬ শওয়াল ১৪৪৩ হিঃ

বিমানবন্দর থেকে চুরি হওয়া প্রবাসী রাকিবের লাগেজ উদ্ধার

অনলাইন

অনলাইন ডেস্ক
(৩ মাস আগে) জানুয়ারি ২৯, ২০২২, শনিবার, ১০:২২ পূর্বাহ্ন

হযরত শাহজালাল আন্তর্জাতিক বিমানবন্দর থেকে চুরি হওয়া সৌদি আরব প্রবাসী রাকিবের লাগেজ উদ্ধার করা হয়েছে। লাগেজটি হারানোর ২৪ ঘণ্টার মধ্যে উদ্ধার করেছেন বিমানবন্দরে দায়িত্বরত আর্মড পুলিশ ব্যাটালিয়ন (এপিবিএন) সদস্যরা। তবে পুলিশ সদস্যরা দাবি করেছেন- রাকিবের লাগেজটি চুরি হয়নি, অন্য এক প্রবাসী ভুলে নিজের লাগেজ ফেলে রাকিবের লাগেজটি নিয়ে যান।

এপিবিএন জানায়, প্রায় ১৩ বছর সৌদি আরবে ছিলেন নড়াইলের কালিয়া থানা এলাকার বাসিন্দা রাকিব। ভিসা না থাকায় বৃহস্পতিবার (২৭ জানুয়ারি) বেলা ৩টায় সৌদি আরব থেকে দেশে ফেরেন। তবে হযরত শাহজালাল আন্তর্জাতিক বিমানবন্দরে নেমেই হারিয়ে ফেলেন লাগেজ ও মূল্যবান সামগ্রী।
লাগেজে সাড়ে ৭ লাখ টাকা সমমূল্যের চেক ছিল বলে দাবি করেন রাকিব। লাগেজটি হারানোর পর অনেক খোঁজাখুঁজি করেও না পেয়ে এপিবিএন অফিসে যোগাযোগ করেন রাকিব।

এর মধ্যেই রাকিবের কান্নাজড়িত একটি ভিডিও সামাজিক যোগাযোগ মাধ্যমে ছড়িয়ে পড়ে। সেই ভিডিওতে রাকিব বলেন, বিমানবন্দরের বাইরে থেকে চুরি হলে ভিন্ন কথা ছিল। কিন্তু লাগেজটি বিমানবন্দরের ভেতর থেকে হারিয়ে যায়।
চার বছর পর দেশে আসছি। লাগেজের ভেতর ব্যাংকের সাতটি চেক ছিল, তাতে বাংলাদেশি টাকায় সাড়ে সাত লাখ টাকা হয়। তাৎক্ষণিকভাবে রাকিবের লগেজ উদ্ধারে তৎপরতা শুরু করে এপিবিএন।

ঘটনার সময় ও ঘটনার পরবর্তী সময়ের সিসিটিভি ফুটেজ বিশ্লেষণ করে শুক্রবার (২৮ জানুয়ারি) বিকালে লাগেজটি উদ্ধার করা হয়।

এপিবিএনের অতিরিক্ত পুলিশ সুপার মোহাম্মদ জিয়াউল হক জিয়া গণমাধ্যমকে জানান, সিসিটিভি ফুটেজ বিশ্লেষণ করে সৌদি প্রবাসী রাকিবের লাগেজটি উদ্ধার করা হয়েছে। আসলে তার লাগেজটি চুরি হয়নি। ভুলে অন্য একজন রাকিবের লাগেজটি নিয়ে গিয়েছিলেন এবং নিজের লাগেজটি রেখে গিয়েছিলেন।
অবশ্যই দিতে হবে *
অবশ্যই দিতে হবে *
পাঠকের মতামত
**মন্তব্য সমূহ পাঠকের একান্ত ব্যক্তিগত। এর জন্য সম্পাদক দায়ী নন।
MOHAMMED LOKMAN HAK
২৯ জানুয়ারি ২০২২, শনিবার, ৭:৪৪

গুটি কতেক মুর্খ প্রবাসী নিজেরাতো কষ্ট পানই, উপরন্ত তারা অন্যকেও ভোগান্তিতে ফেলে।বিমানবন্দরে নেমে যেন হুস হারিয়ে ফেলে। এটুকুও ন্যুনতম জ্ঞান রাখেনা যে, ল্যাগেজটা নেওয়ার সময়ে টিকেটের সাথে থাকা ল্যাগেজ ট্যাগটা চেক করে নিলেইতো হয়, তাহলে এই ভুল গুলো হয়না।

Titu Meer
২৯ জানুয়ারি ২০২২, শনিবার, ৫:০৭

সেই অন্য একজন কে ? কি তার পরিচয় ।

Ashraful Alam
২৯ জানুয়ারি ২০২২, শনিবার, ৩:৪৭

এটা একটা চুরি, ধামা চাপা দেয়ার জন‍্য এ নাটক।

Munir Hossain
২৯ জানুয়ারি ২০২২, শনিবার, ২:৩৪

ঢাকার এয়ারপোর্টের বেলটের ওখানে কোনো নজরদারি নেই বেশিরভাগ লোক এমন অবস্থা করে যেন বেল্টের এখানে লুটপাট শুরু হয়েছে কে কার লাগেজ নিয়ে যাচ্ছে তার কোন ঠিক নাই। গত বছর আমার সাথেও এমন হয়েছিল। পরে লিখিত অভিযোগ দিয়ে বেরিয়ে আসার ৫ মিনিট পরেই কল আসে যে আপনার লাগেজ পাওয়া গেছে। ভুলে নাকি আরেক জন নিয়েছিল। তবে যে নিয়েছিল আমি তাকে দেখিনি। দেখলে কোষে একটা থাপ্পড় মারতাম কারণ ওর জন্য এয়ারপোর্টে আমার তিন ঘন্টা দেরি হয়েছে

Dr Shameem Hassan
২৯ জানুয়ারি ২০২২, শনিবার, ২:৫২

চেক কেন লাগেজ ব্যাগে থাকবে? সেটা তো নিজের কাছে হাত ব্যাগে বা কেরি-ওন এ থাকার কথা। ১৩ বৎসর বিদেশে থেকে এই নুন্যতম অভিজ্ঞতা উনার অর্জন করা উচিৎ ছিল। সে যা হউক। হালাল উপার্জন বিধায় আল্লাহ সো,তা তাকে এটি ফেরত পেতে সাহায্য করেছেন। এটাই হল হালাল উপার্জনের আসল প্রতিদান। মনে হয় এই চেক দিয়ে কেউ টাকাটা তুলে নিতে পারত না তবে সেটি ফেরত পেতে হলে ঝামেলা তো হতই। এটাও আল্লাহ্‌র রহমত হালাল উপারজন কারীদের জন্য।

খোরশেদ আলম
২৯ জানুয়ারি ২০২২, শনিবার, ১২:১৭

এগুলো ফেজলামু ছাড়া আর কিছুই না। ভুলে একজনের লাকেস আরেকজনে নেয়, ইয়ার পোর্টের সিকিউরিটি কি করে??? আমি সিকিউরিটি টিমের সাস্হী কামনা করছি।

অন্যান্য খবর