ঢাকা, ২৫ নভেম্বর ২০১৭, শনিবার

শিশুকন্যাকে জবাই করে হত্যার দায়ে বাবার মৃত্যুদণ্ড

স্টাফ রিপোর্টার, কিশোরগঞ্জ থেকে | ১৩ সেপ্টেম্বর ২০১৭, বুধবার, ৩:১১

আবুল হোসেন

ভৈরবে দুই বছরের শিশুকন্যাকে জবাই করে হত্যার দায়ে বাবা আবুল হোসেন (২৮) কে মৃত্যুদণ্ড দিয়েছেন আদালত। আজ বুধবার দুপুরে কিশোরগঞ্জের অতিরিক্ত জেলা ও দায়রা জজ প্রথম আদালতের বিচারক মো. শাহজাহান কবীর এই রায় দেন। রায় ঘোষণার সময় শিশু হত্যাকারী বাবা আবুল হোসেন আদালতে উপস্থিত ছিলেন। মৃত্যুদণ্ডে দণ্ডিত আবুল হোসেন ভৈরব উপজেলার শম্ভুপুর রেলগেইট এলাকার মো. নূর আলী মিয়ার ছেলে। তিনি পেশায় একজন রিকশাচালক। মামলার বিবরণে জানা যায়, ২০০৮ সালের শুরুর দিকে আবুল হোসেনের সঙ্গে পার্শ্ববর্তী কালিকাপ্রসাদ গাজীরটেক এলাকার কালাচাঁনের মেয়ে সুরাইয়া বেগমের পারিবারিকভাবে বিয়ে হয়। বিয়ের এক বছর পর তাদের একটি কন্যাসন্তান হলে তার নাম রাখা হয় সুমাইয়া। পারিবারিক কলহের কারণে ২০১০ সালের শেষ দিকে সুরাইয়া তাদের একমাত্র সন্তান সুমাইয়াকে নিয়ে বাবার বাড়ি গাজীরটেক এলাকায় চলে যান। এরপর আবুল হোসেন মাঝে মাঝে গাজীরটেক এলাকার শ্বশুরবাড়িতে যেতেন। এক পর্যায়ে ২০১১ সালের ৩রা এপ্রিল সকালে আবুল হোসেন গাজীর টেক এলাকায় শ্বশুরবাড়িতে গিয়ে তার শিশুকন্যা সুমাইয়াকে ব্লেড দিয়ে জবাই করে হত্যা করেন। শিশুকন্যাকে হত্যার পর পালিয়ে যাওয়ার সময় এলাকাবাসী আবুল হোসেনকে আটক করে পুলিশে সোপর্দ করে। এ ঘটনায় শিশুটির মা সুরাইয়া বেগম বাদী হয়ে ভৈরব থানায় স্বামী আবুল হোসেনের বিরুদ্ধে মামলা করেন। তদন্ত শেষে পুলিশ ২০১১ সালের পহেলা জুলাই আদালতে অভিযোগপত্র দাখিল করে। রাষ্ট্রপক্ষে এপিপি অ্যাডভোকেট সৈয়দ মো. শাহজাহান ও আসামি পক্ষে অ্যাডভোকেট অশোক সরকার মামলাটি পরিচালনা করেন।

পাঠকের মতামত

**মন্তব্য সমূহ পাঠকের একান্ত ব্যক্তিগত। এর জন্য সম্পাদক দায়ী নন।