× প্রচ্ছদ অনলাইনপ্রথম পাতাশেষের পাতাখেলাবিনোদনএক্সক্লুসিভভারতবিশ্বজমিনবাংলারজমিনদেশ বিদেশশিক্ষাঙ্গনসাক্ষাতকাররকমারিপ্রবাসীদের কথামত-মতান্তরফেসবুক ডায়েরিবই থেকে নেয়া তথ্য প্রযুক্তি শরীর ও মন চলতে ফিরতে ষোলো আনা মন ভালো করা খবরকলকাতা কথকতা
ঢাকা, ২ ডিসেম্বর ২০২০, বুধবার
করোনা ভাইরাস

২৪ ঘণ্টায় আরো ২১ জনের মৃত্যু, শনাক্ত ১২৫১

করোনা আপডেট

স্টাফ রিপোর্টার | ১৯ মে ২০২০, মঙ্গলবার, ২:৪১

গত ২৪ ঘণ্টায় দেশজুড়ে করোনা ভাইরাসে আক্রান্ত হয়ে আরো ২১ জন মারা গেছেন। একই সময়ে ১ হাজার ২৫১ জনের দেহে করোনার সংক্রমণ পাওয়া যায়। এ নিয়ে মোট আক্রান্তের সংখ্যা ২৫ হাজার ১২১ জন।
মঙ্গলবার দুপুরে স্বাস্থ্য অধিদপ্তরের নিয়মিত অনলাইন স্বাস্থ্য বুলেটিনে এ তথ্য জানান অধিদপ্তরের অতিরিক্ত মহাপরিচালক (প্রশাসন) অধ্যাপক ডা. নাসিমা সুলতানা।

তিনি জানান, ৪২টি ল্যাবের মধ্যে ঢাকার মধ্যে ২১টি ও ঢাকার বাইরে ২১টি ল্যাবে নমুনা সংগ্রহ করা হয়েছে। গত ২৪ ঘণ্টায় নমুনা সংগ্রহ করা হয়েছে ৯ হাজার ৯১টি। পরীক্ষা করা হয়েছে ৮হাজার ৪৪৯টি। পরীক্ষা করা নমুনার মধ্যে ১হাজার ২৫১ জনের দেহে করোনা ভাইরাসের সংক্রমণ পাওয়া যায়।
এ নিয়ে মোট আক্রান্তের সংখ্যা ২৫ হাজার ১২১ জন। এছাড়া গত ২৪ ঘন্টায় করোনায় আরো ২১ জনের মৃত্যু হয়। মোট মৃতের সংখ্যা দাঁড়ালো ৩৭০ জন।

নাসিমা সুলতানা আরো বলেন, ২৪ ঘণ্টায় ৪০৮ জন সুস্থ্য হয়ে বাড়ি ফিরেছেন। এ নিয়ে মোট সুস্থ হয়েছেন ৪ হাজার ৯৯৩ জন।

প্রসঙ্গত, গত ৮ই মার্চ দেশে প্রথম করোনা রোগী শনাক্ত হয় বলে জানিয়েছে সরকারের রোগতত্ত্ব, রোগনিয়ন্ত্রণ ও গবেষণা প্রতিষ্ঠান (আইইডিসিআর)। শুরুর দিকে রোগীর সংখ্যা কম থাকলেও এখন সংক্রমণ সারাদেশে ছড়িয়ে পড়েছে।

গত ডিসেম্বরের শেষ সপ্তাহে চীনের উহানে করোনা ভাইরাসের সংক্রমণ শুরু হয়। ভাইরাসটি ক্রমে সারা বিশ্বে ছড়িয়ে পড়ে। চীনের পর ইরান, কোরিয়াসহ বেশকিছু দেশে সংক্রমণ ছড়ালেও সবচেয়ে বেশি করোনা আঘাত হানে ইতালি, স্পেনসহ ইউরোপের দেশগুলোতে। পরবর্তীতে যুক্তরাষ্ট্রেও ব্যাপক প্রাণহানি ঘটে। করোনায় মৃত্যুর তালিকায় শীর্ষেও রয়েছে দেশটি।
যুক্তরাষ্ট্র ভিত্তিক জরিপ সংস্থা ওয়ার্ল্ডোমিটার বলছে, বিশ্বজুড়ে এখন পর্যন্ত করোনা ভাইরাসে আক্রান্ত হয়ে মারা গেছেন (প্রতিবেদন লেখার সময়) ৩ লাখ ২০ হাজার ৩৬৭ জন মানুষ। এছাড়া আক্রান্তের সংখ্যা ৪৯ লাখ ৫ হাজার ৪৭১ জন । অন্যদিকে সুস্থ হয়েছেন ১৯ লাখ ১৬ হাজার ২৮১ জন।

অবশ্যই দিতে হবে *
অবশ্যই দিতে হবে *
পাঠকের মতামত
**মন্তব্য সমূহ পাঠকের একান্ত ব্যক্তিগত। এর জন্য সম্পাদক দায়ী নন।
Mohiuddin Palash
১৯ মে ২০২০, মঙ্গলবার, ৫:৫১

সরকারের ভুলের কামায় এতো সংক্রমন, এমন সাধারন ছুটি বা এমন লকডাউন দিয়ে কিছুই হবে না বরং আমাদের অর্থনীতি ধ্বংস হচ্ছে, শক্ত হাতে জরুরি অবস্থা ঘোষণা উচিত ছিলো। আমিতো দেশে দুর্ভিক্ষর আশঙ্কা করছি । এখনো কিছু সময় আছে গনহারে সংক্রমন হয়নি তবে বেশী দেরীও নাই। উত্তরণের উপায় একটি মানুষকে ঘরে রাখা ১৫ থেকে ২০ দিন এটা ভ্যাকসিনের টিকার মতো কাজ করবে। এদেশের জন্য রিয়াল ভ্যাকসিন হলো জরুরি অবস্থা ঘোষণা।

অন্যান্য খবর